ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে আক্রান্ত সাড়ে পাঁচ হাজার! মৃত ১২৬, রাজ্যগুলিকে মহামারি ঘোষণা করার পরামর্শ কেন্দ্র

125
Advertisement

বিশ্বজিৎ দাস: করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের ঢেউয়ের মধ্যেই ফনা তুলছে কালো ছত্রাক বা ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের মত কালান্তক ব্যাধি। সারা দেশে এখনই সাড়ে পাঁচহাজার মানুষ আক্রান্ত বলে চিহ্নিত হয়েছেন, মৃত্যু হয়েছে অন্ততঃ ১২৬ জনের। পরিস্থিতির গুরুত্ব বুঝে এবার এই রোগকেও মহামারি হিসেবে ঘোষণা করার জন্য পরামর্শ দিল কেন্দ্র সরকার। যদিও ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকটি রাজ্য এই রোগকে মহামারি হিসাবে ঘোষণা করেছে।

Advertisement

চিকিৎসকরা বলছেন ব্ল্যাক ফাঙ্গাস অর্থাৎ মিউকরমাইকোসিস একটি বিরল সংক্রমণ।মিউকর নামে একটি ছত্রাকের সংস্পর্শে এলে এই সংক্রমণ হয়। সাধারণত মাটি,গাছপালা, পচনশীল ফল ও
শাকসবজিতে এই ছত্রাক দেখা যায়।

Advertisement
Advertisement

অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অব মেডিকেল সায়েন্সেস (এআইআইএমএস) জানিয়েছে, মিউকরমাইকোসিস মুখে আক্রমণ করতে পারে। নাক, চোখ ও মস্তিষ্কে এর সংক্রমণ ঘটতে পারে। এ সংক্রমণে সাইনাসের ব্যথা, এক নাক বন্ধ হয়ে যাওয়া, মাথার এক পাশে ব্যথা, ফুলে যাওয়া, দাঁতে ব্যথাসহ নানা উপসর্গ দেখা দেয়। সংক্রমণে রোগী দৃষ্টিশক্তি হারাতে পারেন। এটা ফুসফুসেও ছড়িয়ে পড়তে পারে। বিশেষত ডায়াবেটিস রয়েছে—এমন কোভিড পজিটিভ রোগীদের এ ছত্রাকে সংক্রমিত হওয়ার ঝুঁকি বেশি।

তবে বুধবার পর্যন্ত ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে আক্রান্ত হয়েছে ভারতের ৫ হাজার ৫০০ জন। মারা গিয়েছেন ১২৬ জন। শুধুমাত্র মহারাষ্ট্রে মারা গিয়েছেন ৯০ জন। এমনকি অনেক রাজ্যে অ্যান্টি-ফাঙ্গাল ওষুধ লাইপোসোমাল অ্যামফোটারিকিন বি’র ঘাটতি দেখা দিয়েছে।

সরকারি পরিসংখ্যান অনুযায়ী জানা গিয়েছে, ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে মহারাষ্ট্রের পর সবথেকে বেশি আক্রান্ত হয়েছে হরিয়ানা। সেখানে এই নতুন সংক্রমণের কারণে ১৪ জন মারা গিয়েছেন। উত্তর প্রদেশে ৮ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে, তারা সকলেই লখনউয়ের বাসিন্দা।

এই সংক্রমণে পাশাপাশি ঝাড়খণ্ডে চারজন বলি হয়েছে। অন্যদিকে ছত্তিশগড়, মধ্য প্রদেশ এবং উত্তরাখণ্ডে দু’জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। বিহার, আসাম, ওড়িশা এবং গোয়ায় একটি করে মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। তবে কয়েকটি রাজ্য জনিয়েছে যে, তারা এখনও আক্রান্ত ও মৃত্যুর তথ্য সংগ্রহ করেনি।

উল্লেখ্য,রাজস্থান ব্ল্যাক ফাঙ্গাসকে মহামারী হিসেবে ঘোষণা করেছে। রাজস্থান প্রশাসন সূত্রে জানানো হয়েছে, জয়পুরের এই বিখ্যাত হাসপাতালে চলছে ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে আক্রান্তদের চিকিৎসা। ইতিমধ্যেই সাওয়াই ম্যান সিং হাসপাতালের বিভিন্ন ওয়ার্ডে প্রায় ১০০ জন ব্ল্যাক ফাঙ্গাস সংক্রমিত রোগী ভর্তি হয়েছেন। ওয়ার্ডে ক্রমেই বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। একই পথে হেঁটে ব্ল্যাক ফাঙ্গাসকে মহামারী হিসেবে ঘোষণা করেছে তেলেঙ্গানা সরকার। বুধবার সেই রাজ্যের সরকার জানিয়েছে,”১৮৯৭ সালের মহামারী আইন অনুযায়ী, মিউকরমাইকোসিস বা ব্ল্যাক ফাঙ্গাসকে মহামারী হিসেবে ঘোষণা করা হল।”