এবার থেকে পড়ানো ছাড়া বিদ্যালয়ের অন্যান্য কাজ করতে পারবে না শিক্ষকরা, নয়া শিক্ষানীতিতে ঘোষণা কেন্দ্রের

568

ওয়েব ডেস্ক : স্কুলে পড়ানো ছাড়াও একাধিক কাজের বাইরে শিক্ষকদের দিয়ে বিভিন্ন কাজ করানো নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই শিক্ষকদের মধ্যে একটা অসন্তোষের সৃষ্টি হয়েছে। এবার নয়া শিক্ষানীতিতে কেন্দ্রের তরফে শিক্ষকদের জন্য বড়সড় সুখবর ঘোষণা করা হল। শিক্ষকদের উদ্দেশ্যে জানানো হল, ছাত্রছাত্রীদের পড়াশোনা শেখানোই শিক্ষকদের একমাত্র কাজ। সুতরাং এবার থেকে স্কুলের শিক্ষকরা শুধুমাত্রই পড়াবেন। এর বাইরে স্কুলের অন্যান্য যাবতীয় কাজের সঙ্গে কোনোভাবেই তাঁরা যুক্ত থাকবেন না। কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্তে স্বাভাবিকভাবেই আনন্দিত শিক্ষক মহল।

গত বুধবারই কেন্দ্রের তরফে ছাত্রছাত্রীদের ভবিষ্যতের কথা মাথায় রেখে নয়া শিক্ষানীতির ঘোষণা করেছে কেন্দ্র। এদিন কেন্দ্রের তরফে স্পষ্ট করে জানানো হয়েছে, শিক্ষকরা শুধুমাত্র পড়ানোর কাজে যুক্ত থাকবেন। ভোট বা অন্যান্য কোনও প্রশাসনিক কাজে তাঁদের নিযুক্ত থাকতে হবে না। সেই নথিতে বলা হয়েছে, “অশিক্ষামূলক কোনও কাজে শিক্ষকরা যে অনেক সময় দেন, তা রুখতে পড়ানোর সঙ্গে সরাসরি যুক্ত কাজ ছাড়া অন্য কোনও কাজে তাঁরা আর নিযুক্ত হতে পারবেন না।”

তবে এবার থেকে কোন কোন ক্ষেত্রে শিক্ষকদের আর নিযুক্ত করা যাবে না, নয়া শিক্ষানীতিতে কেন্দ্রের তরফে তাও স্পষ্টভাবে জানানো হয়েছে। কেন্দ্রের নির্দেশিকায় জানানো হয়েছে, ‘শিক্ষকরা ভোটের কাজ, মিড ডে মিল রান্না এবং কঠোর প্রশাসিক কাজে যুক্ত থাকবেন না, যাতে তাঁরা পুরোপুরি পড়ানো-শেখানো দায়িত্বে মনোযোগ দিতে পারেন।’ প্রসঙ্গত, কেন্দ্রের তরফে ছাত্রছাত্রীদের জন্য নয়া শিক্ষানীতির পরিকল্পনা হয়েছে। জানানো হয়েছে, এবার থেকে দশম ও দ্বাদশ শ্রণিতে আর নতুন করে বোর্ডের পরীক্ষা নেওয়া হবে না। এর পরিবর্তে ৫+৩+৩+৪ পদ্ধতিতে পরীক্ষা ব্যবস্থা করা হবে। নতুন এই পদ্ধতিতে প্রাথমিক শিক্ষাক্ষেত্রকেও আনা হচ্ছে স্কুলের আওতায়। ক্লাস ওয়ান ও ক্লাস টু-কে রাখা হচ্ছে প্রি-প্রাইমারির মধ্যে। এটিকে বলা হচ্ছে ফাউন্ডেশন কোর্স।

আরও পড়ুন -  পশ্চিমের প্যাঁচে ঝেঁপে বৃষ্টি জঙ্গলমহলে, মকরের আগেই ভেজা শীতে ঘরবন্দি ঝাড়গ্রাম

নয়া শিক্ষানীতিতে নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত একটি স্টেজ করা হচ্ছে। এটিকে বলা হচ্ছে সেকেন্ডারি স্টেজ। ফলে মাধ্যমিক উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার বদলে এর স্টেজ চালু হলে নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত ৪ বছরের মধ্যে ৪০টি বিষয়ে পরীক্ষা দিতে হবে। তবে এর মধ্যে কয়েকটি পরীক্ষা নেবে বোর্ড। বাকি পরীক্ষা স্কুলের তরফেই নেওয়া হবে। এই চার বছরের কোর্স হবে মাল্টি ডিসিপ্লিনারি। অর্থাত্ পড়ুয়ারা তাদের পছন্দের বিষয় বেছে নিতে পারবে। তবে দেখতে হবে ওই কম্বিনেশন পরবর্তিতে উচ্চশিক্ষায় যেন অসুবিধার কারণ না হয়।

এবার থেকে পড়ানো ছাড়া বিদ্যালয়ের অন্যান্য কাজ করতে পারবে না শিক্ষকরা, নয়া শিক্ষানীতিতে ঘোষণা কেন্দ্রের 1