মাধ্যমিক পাশ হলেই সুযোগ! ৩০০ শূন্যপদে নিয়োগ পশ্চিমবঙ্গ পুলিশে

1122
মাধ্যমিক পাশ হলেই সুযোগ! ৩০০ শূন্যপদে নিয়োগ পশ্চিমবঙ্গ পুলিশে 1

নিউজ ডেস্ক: আপনি কী চাকরির সন্ধান করছেন? আপনি যদি মাধ্যমিক পাস হন, তাহলে আপনার কাছে রয়েছে চাকরির সুবর্ণ সুযোগ। পশ্চিমবঙ্গ পুলিশের রিক্রুটমেন্ট বোর্ড প্রায় ৩০০ শূন্য পদে নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে। আগ্রহী প্রার্থীরা আগামী ২৩ মার্চ বিকেল ৫ টা পর্যন্ত আবেদন জানাতে পারবেন। পশ্চিমবঙ্গ বিপর্যয় মোকাবিলা দফতরের সিভিল ডিফেন্স অর্গানাইজেশনের আওতায় অগ্রগামী (পশ্চিমবঙ্গ সিভিল এমার্জেন্সি ফোর্স) এবং অগ্রগামী (ওয়াটার উইং সিভিল ডিফেন্স) পদে মোট ২৮৬ জনকে নিয়োগ করা হবে।

শূন্য পদের সংখ্যা :
অগ্রগামী (পশ্চিমবঙ্গ সিভিল এমার্জেন্সি ফোর্স) – ১৬৯ এবং  অগ্রগামী  (ওয়াটার উইং সিভিল ডিফেন্স) – ১১৭।

মাধ্যমিক পাশ হলেই সুযোগ! ৩০০ শূন্যপদে নিয়োগ পশ্চিমবঙ্গ পুলিশে 2

আবেদনকারীর যোগ্যতা :
১) আবেদনকারীকে সিভিল ডিফেন্স স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত হতে হবে এবং সিভিল ডিফেন্স অর্গানাইজেশনের আওতায় সিভিল ডিফেন্স ফাউন্ডেশনের প্রশিক্ষণ শেষ করতে হবে।২) পশ্চিমবঙ্গ মধ্যশিক্ষা পর্ষদ বা যে কোনও স্বীকৃত বোর্ড থেকে মাধ্যমিক পাশ করতে হবে।      ৩) প্রার্থীদের বাধ্যতামূলক সাঁতার জানতে হবে। ৫০ মিটার সাঁতার কাটতে হবে। ২০০ সেকেন্ডে ৮০০ মিটার দৌঁড়াতে হবে। পাহাড়ি উপজাতি প্রার্থীদের সাঁতারের ক্ষেত্রে ছাড় দেওয়া হবে। তবে নিয়োগের ছ’মাসের মধ্যে সাঁতার শিখে নিতে হবে। নাহলে চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হতে পারে।

আবেদনের উপায় :
পশ্চিমবঙ্গ পুলিশের রিক্রুটমেন্ট বোর্ডের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট wbpolice.gov.in এবং ডিরেক্টরেট অফ সিভিল ডিফেন্সের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট wbdmd.gov.in-তে গিয়ে অনলাইনে আবেদন করতে হবে।

বয়স :
২০২১ সালের ১ জানুয়ারি অনুযায়ী, আবেদনকারীর বয়স ১৮-র নীচে এবং ৩০-র উপর হতে পারবে না। তফসিলি জাতি এবং উপজাতি প্রার্থীদের বয়সের সর্বোচ্চ সীমায় পাঁচ বছরের ছাড় দেওয়া হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গের ওবিসি প্রার্থীরা তিন বছরের ছাড় পাবেন।

আবেদনের সময়সীমা : আগামী ২৩ মার্চ বিকেল ৫ টা পর্যন্ত। অগ্রগামী (পশ্চিমবঙ্গ সিভিল এমার্জেন্সি ফোর্স) এবং অগ্রগামী (ওয়াটার উইং সিভিল ডিফেন্স) পদে নিয়োগের আবেদনের ডিরেক্ট লিঙ্ক – http://wbprb.applythrunet.co.in/PostDetail.aspx?E=IQhEoLP%2fdN3wEndxbtM3zw%3d%3d আপনি পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ রিক্রুমেন্ট বোর্ডের ওয়েবসাইটে গিয়ে সরাসরি আবেদন করতে পারেন।

আবেদন ফি :
১) অসংরক্ষিত প্রার্থী – ২২০ টাকা (আবেদন ফি ২০০ টাকা এবং প্রসেসিং ফি ২০ টাকা)।
২) তফসিলি জাতি এবং উপজাতি প্রার্থী – ২০ টাকা (প্রসেসিং ফি ২০ টাকা)।

অনলাইন আবেদন – অনলাইনে আবেদনের জন্য অসংরক্ষিত প্রার্থীদের ২২৫ টাকা (২২০ টাকার সঙ্গে পাঁচ টাকা সার্ভিস চার্জ) দিতে হবে (যাঁরা ডেবিট কার্ড বা ক্রেডিট কার্ড না নেট ব্যাঙ্কিং বা ই-ওয়ালেট বা অন্যান্য অ্যাপের মাধ্যমে টাকা জমা দেবেন)। তফসিলি জাতি এবং উপজাতি প্রার্থীদের ২৫ টাকা দিতে হবে।

সহজ মিত্র কেন্দ্র – ‘সহজ মিত্র কেন্দ্র’-এর মাধ্যমে অনলাইনে আবেদন জমা দেওয়ার জন্য অসংরক্ষিত প্রার্থীদের ২৪৩ টাকা ফি (জিএসটি-সহ পরিষেবা খরচ ধরে) দিতে হবে। তফসিলি জাতি এবং উপজাতি প্রার্থীদের মোট ৪৩ টাকা আবেদন ফি পড়বে।

ব্যাঙ্কের মাধ্যমে ফি জমা – পঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাঙ্কের মাধ্যমেও ফি জমা দেওয়া যাবে। সেক্ষেত্রে ২৫৬ টাকা (জিএসটি ধরে) জমা দিতে হবে। পশ্চিমবঙ্গের তফসিলি জাতি এবং উপজাতি প্রার্থীদের ‘প্রসেসিং ফি’ ২৫ টাকা জমা দিতে হবে। সঙ্গে জিএসটি বাবদ ‘সহজ মিত্র কেন্দ্র’ এবং ব্যাঙ্কে বাড়তি সার্ভিস চার্জ (৩৬ টাকা) দিতে হবে। অর্থাৎ মোট ৫৬ টাকা দিতে হবে। আগ্রহী প্রার্থীদের তাড়াতাড়ি আবেদন করার কথা জানানো হয়েছে।