পরীক্ষা ছাড়াই পাশ ক্লাশ সিক্স থেকে নাইন, নেই ফাইভের কথা! এক বছরেই শেষ করতে হবে দু’ক্লাশের পাঠ

425
পরীক্ষা ছাড়াই পাশ ক্লাশ সিক্স থেকে নাইন, নেই ফাইভের কথা! এক বছরেই শেষ করতে হবে দু'ক্লাশের পাঠ 1

অভিনন্দন রানা : অবেশষে কোনও পরীক্ষায় ছাড়াই পাশ করানো হতে চলেছে ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণীর ছাত্রছাত্রীদের। সোমবার শিক্ষা দফতরের প্রকাশ করা এক বিজ্ঞপ্তিতে এই নির্দেশ সমস্ত স্কুলের প্রধান শিক্ষকদের দেওয়া হয়েছে। অর্থাৎ এই ঘোষণা থেকেই স্পষ্ট যে অন্তত এই শিক্ষাবর্ষে আর ছাত্রছাত্রীদের জন্য স্কুল খুলছেনা। ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণী পর্যন্ত কোনো রকম পরীক্ষা ছাড়াই পরের ক্লাসে তুলে দেওয়া হবে। পাশাপাশি দশম শ্রেণীর নির্বাচনী পরীক্ষাও নেওয়া হবেনা।পরীক্ষা ছাড়াই পাশ ক্লাশ সিক্স থেকে নাইন, নেই ফাইভের কথা! এক বছরেই শেষ করতে হবে দু'ক্লাশের পাঠ 2

মার্চ মাস থেকেই স্কুল কলেজ বন্ধ। এর মাঝে কলেজ গুলি অনলাইনে ক্লাস এবং পরীক্ষা হলেও স্কুলের দরজা খোলেনি এখনও। তার সবচেয়ে বড় কারণ পরিকাঠামোর অভাব। অধিকাংশ ছাত্র ছাত্রীদের কাছেই স্মার্টফোন নেই। ফলে স্কুলে ক্লাস নেওয়া প্রায় অসম্ভব। ফলে এই সিদ্ধান্ত নিতেই হত। যদিও কয়েকটি বেসরকারি চ্যানেলে কিছুদিনের জন্য ক্লাসের ব্যবস্থা হলেও তা বেশিদিন চলেনি। বেশিরভাগ ছাত্র ছাত্রীই এর সুবিধা নিতে পারেনি। তবে আশার কথা উচ্চ মাধ্যমিক ছাত্র ছাত্রীদের ইতোমধ্যেই ট্যাব দেওয়ার ঘোষণা করেছেন, যাতে তারা সহজেই অনলাইনে ক্লাস নেওয়া সম্ভব হয়।

পরীক্ষা ছাড়াই পাশ ক্লাশ সিক্স থেকে নাইন, নেই ফাইভের কথা! এক বছরেই শেষ করতে হবে দু'ক্লাশের পাঠ 3

পাশাপাশি ওই নির্দেশে এও বলা হয়েছে কোনোরকম পরীক্ষা তো নেওয়া হবেই না। বরং পরের ক্লাসে নতুন ক্লাসের পড়া শুরু করার আগে পূর্বর্বতী ক্লাসের সিলেবাস ঝালিয়ে নিতে হবে। তবে আগামী শিক্ষাবর্ষে কবে স্কুল খোলা হবে তার কোনো ঠিক নেই। ফলে এক শিক্ষাবর্ষে দুটো ক্লাসের পড়া শেষ করা কিভাবে সম্ভব তা নিয়ে অবশ্যই প্রশ্ন উঠবে। পাশাপাশি ছাত্র ছাত্রীরা সেই চাপ কতটা নিতে পারবে সেটাও একটা প্রশ্ন। ফলে এই শিক্ষা বর্ষে ছাত্রছাত্রীরা কতটা কি শিখলেন তাও প্রশ্নের মুখে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক শিক্ষকের কথায় এমনিতেই হাজারো ঝামেলায় স্কুলে বেশিরভাগ সময়ই সিলেবাস শেষ করা সম্ভব হয়না। তাই এক শিক্ষাবর্ষে দুটো শিক্ষাবর্ষের পড়া শেষ করা কতটা সম্ভব হবে তা প্রশ্নের বাইরে নয়। ফলে কার্যত এই অতিমারী ছাত্রছাত্রীদের কাছ থেকে একটা গোটা শিক্ষাবর্ষ ছিনিয়ে নিল।
অন্যদিকে শিক্ষক-শিক্ষাকর্মী-শিক্ষানুরাগী ঐক্য মঞ্চের রাজ্য সম্পাদক কিঙ্কর অধিকারী জানিয়েছেন, ” এই সার্কুলারে যথেষ্ট বিভ্রান্তি রয়েছে। বলা হচ্ছে ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত কোন পরীক্ষা ছাড়া সকলেই পাশ কিন্তু
প্রাথমিক শিক্ষার মধ্যে পঞ্চম শ্রেণি থাকলেও অধিকাংশ হাই স্কুল গুলিতে এখনও পঞ্চম শ্রেণি রয়েছে। মধ্যশিক্ষা পর্ষদের এই নোটিফিকেশনে পঞ্চম শ্রেণির কোনো কথা উল্লেখ নেই কেন?”

তিনি আরও বলেন, “রাজ্যে প্রায় সব কিছু স্বাভাবিক হলেও কবে থেকে বিদ্যালয়ে পঠন-পাঠন শুরু হবে এখনো তার কোনো নির্দেশিকা নেই। অথচ জানানো হলো ক্লাস শুরু হলে পূর্বের ক্লাসের সম্পূর্ণ সিলেবাস শেষ করবার পর নতুন ক্লাসের পঠন-পাঠন শুরু হবে। এটা কতটা বাস্তব সম্মত ভাবে কার্যকর করা যাবে এ ব্যাপারে প্রশ্ন থেকে যাচ্ছে।”