বাংলায় তোষণের রাজনীতি চলছে! দক্ষিণেশ্বর মন্দির থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তোপ শাহের

193
বাংলায় তোষণের রাজনীতি চলছে! দক্ষিণেশ্বর মন্দির থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তোপ শাহের 1
বাংলায় তোষণের রাজনীতি চলছে! দক্ষিণেশ্বর মন্দির থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তোপ শাহের 2

ওয়েব ডেস্ক : পশ্চিমবঙ্গ সফরে আজ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের দ্বিতীয় দিন। এদিন দলীয় কর্মীদের সাথে কলকাতায় একাধিক বৈঠক রয়েছে। পাশাপাশি এদিন মতুয়া সম্প্রদায়ের এক কর্মীর বাড়িতে মধ্যাহ্নভোজ সারবেন অমিত শাহ। সুতরাং কর্মসূচী শুরু আগে শুক্রবার সকালে দক্ষিণেশ্বর মন্দিরে পুজো দিয়ে দিন শুরু করলেন অমিত শাহ। এদিন তাঁর সঙ্গে দক্ষিণেশ্বরে যান মুকুল রায়, দিলীপ ঘোষ, কৈলাস বিজয়বর্গীয়, বাবুল সুপ্রিয়, অনুপম হাজরা–সহ গেরুয়া শিবিরের একাধিক নেতৃত্ব। এদিন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহকে অভ্যর্থনা জানাতে কড়া পুলিশি নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে দক্ষিণেশ্বর মন্দির প্রাঙ্গণে। শুধু তাই নয়, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর নিরাপত্তার স্বার্থে এদিন দক্ষিণেশ্বর মন্দিরে সাধারণ যাত্রীদের প্রবেশ বন্ধ রাখা হয়েছে।
এদিন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে স্বাগত জানাতে মন্দির প্রাঙ্গনে লাল পেড়ে সাদা শাড়ি পড়ে প্রস্তুত ছিলেন অগ্নিমিত্রা পাল সহ বিজেপি মহিলা মোর্চার সদস্যরা। জানা গিয়েছে, বৃহস্পতিবার দিনভর বাঁকুড়ায় একাধিক কর্মসূচীর পর রাতে কলকাতায় ফেরেন শাহ। এরপর রাতে নিউটাউনের হোটেলে থেকে সেখানে শোভন-বৈশাখীর সাথে বৈঠক করেন শাহ। এরপর শুক্রবার নিউটাউনের হোটেল থেকেই দক্ষিণেশ্বর মন্দিরে যান অমিত শাহ। এদিন মা ভবতারিণী কে পুজো দিয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে অমিত শাহ বলেন, “বাংলা ভক্তি আন্দোলনের পীঠস্থান। মহান মণীষীদের জন্ম এই পূন্যভূমিতে। বাংলা সেই হারানো গৌরব ফিরে পান সেই প্রার্থনাই তিনি ভবতারিণীর কাছে জানিয়েছেন। বাংলাবাসীকে বলব একজোট হয়ে দায়িত্ব পালন করুন। মা কালীর কাছে গোটা দেশ তথা বাংলার মঙ্গল কামনা করেছি। মোদীর নেতৃত্বে দেশ এক নম্বরে পৌঁছক তাই চাই।” শুধু তাই নয়, এদিন তিনি সাংবাদিকদের জানান, “এখানে তোষণের রাজনীতি চলছে। হারানো গৌরব ফিরে পাক বাংলা।”

প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার বাঁকুড়ার সভাতেও অমিত শাহ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কটাক্ষ করে বলেছিলেন, “মমতা ব্যানার্জী ভাবছেন, এই প্রকল্প গুলি রুখে দিয়ে তিনি রাজ্যে বিজেপিকে রুখতে পারবেন। কিন্তু সেটা হবে না। আমি আপনার কাছে অনুরোধ করে বলছি, ভারত সরকার দ্বারা দেওয়া গরিবদের টাকা তাঁদের কাছে পৌঁছাতে দিন, কৃষকদের অ্যাকাউন্টে ৬ হাজার করে টাকা পৌঁছাতে দিন, গরিবদের বিনামূল্যে কেন্দ্র সরকারের চিকিৎসার ব্যবস্থা পৌঁছাতে দিন, তাহলে গরিবেরা আপনার জন্য ভাববে।” গত কয়েকমাসে রাজ্যে একাধিক বিজেপি কর্মীর খুনের ঘটনা সামনে এসেছে। এদিনের সভায় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ এ প্রসঙ্গ তুলে ধরে বলেন, “যেভাবে বিজেপির কর্মীদের উপর মমতার সরকার অত্যাচার চালাচ্ছে, আমি দেখতে পারছি। আর আমি নিশ্চিত রুপে বলছি যে, মমতা সরকারের বিদায়ী ঘণ্টা বেজে গিয়েছে আর আগামী দিনে এখানে বিজেপির সরকার গঠন হবে। দুই তৃতীয়াংশ আসন নিয়ে বিজেপি বাংলায় ক্ষমতায় আসবে।”

বাংলায় তোষণের রাজনীতি চলছে! দক্ষিণেশ্বর মন্দির থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তোপ শাহের 3