Homeএখন খবরসস্তার টেলিস্কোপ থেকে দুষণ মাপার সহজ যন্ত্র কিংবা আলু থেকে তৈরি হওয়া...

সস্তার টেলিস্কোপ থেকে দুষণ মাপার সহজ যন্ত্র কিংবা আলু থেকে তৈরি হওয়া প্লাস্টিক, ভাবি দুনিয়াকে বদলে দিতে আইআইটি খড়গপুরে হাজির ক্ষুদে বিজ্ঞানীরা

Advertisement

নিজস্ব সংবাদদাতা: অষ্টম শ্রেনী থেকে দশম শ্রেনীতে পড়ে এরা। আর এরাই বানিয়ে ফেলেছে এক ধরনের আলু থেকে প্লাস্টিক। ব্যবহারের তিনদিনের মধ্যেই যা নিজে থেকে গলে মাটিতে মিশে যাবে। কিংবা এদের তৈরি একটা যন্ত্র পুলিশের হাতে থাকলে তা দিয়ে পুলিশ জানতে পারবে গাড়ির দুষণের মাত্রা । আবার আরেকজনের তৈরি ছোট্ট একটা যন্ত্র গাড়ির সাইলেন্সর পাইপের মুখে লাগলে তা শুষে নেবে সিসা , কার্বন মনোক্সাইডের বিষ ধোঁয়া। হ্যাঁ , এমনই সব চমকপ্রদ আবিষ্কার নিয়ে আইআইটি খড়গপুরের কালিদাস অডিটোরিয়ামে হাজির ক্ষুদে  বিজ্ঞানীর দল।

ছোট ছোট ছেলে মেয়েদের মধ্যে অনেক উদ্ভাবনী শক্তি লুকিয়ে রয়েছে, যা উৎসাহ পেলে সঠিক জায়গায় প্রকাশ করতে পারে। এই ভাবনা থেকে খড়্গপুর আইআইটি ২০১৭  শুরু করে ‘ইয়ং ইনভেন্টরস প্রোগ্রাম’। এবার তৃতীয় বর্ষ। আর সেই তৃতীয় বর্ষের প্রাপ্তি এমনই।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
জানাগিয়েছে, এই প্রতিযোগিতায় দেশ-বিদেশের প্রায় এক হাজার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে ছাত্রছাত্রীরা তাদের প্রোজেক্ট ভাবনা জমা দিয়েছিল। যার থেকে বিভিন্ন পর্বে বাছাই হয়ে চুড়ান্ত পর্যায়ে ৩৩টি  দলকে নির্বাচিত করেছিলেন। কিন্তু এসেছে ৩২ টি দল। ৩২টি দলে প্রায় ৯০-৯৫ জন ছাত্রছাত্রী রয়েছে।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
খড়্গপুর আইআইটি আয়োজিত এই  ‘ইয়ং ইনভেন্টরস প্রোগ্রাম’ ২০১৯ এ দেশের বিভিন্ন রাজ্যের পাশাপশি সিঙ্গাপুর, ইন্দোনেশিয়া, আরব আমীরশাহি (ইউ এ ই) থেকেও ছাত্রছাত্রীরা অংশ নিয়েছে চুড়ান্ত প্রর্যায়ের এই প্রতিযোগিতায়। অনুষ্ঠানের কো-অর্ডিনেটর, খড়্গপুর আইআইটি’র অধ্যাপক আনন্দরূপ ভট্টাচার্য্য বলেন, ‘অন্যান্য বারের তুলনায় এবার অংশগ্রহনকারী স্কুলের সংখ্যা অনেক বেশি। তিনি বলেন, অষ্টম থেকে দশম শ্রেণীর ছাত্রছাত্রীরা এখানে অংশ নিতে পারে। তাঁদের মধ্যে এত ভাল ভাল প্রোজেক্ট ভাবনা যা দেখে আমরা অবাক হই। বেশকিছু ভাল ভাল প্রজেক্ট মডেল এসেছে। যেমন পরিবেশ বাঁচাতে অনেক নতুন দেখা গেছে।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
খামালুর মত অতি সাধারন জিনিস থেকে বায়োডিগ্রিটেবল প্ল্যাস্টিক তৈরি, রোড সেফটিতে নানা উদ্ভাবন, গাড়ির ধোঁয়াকে নিয়ন্ত্রন করে দূষনের মাত্রা কমানো, গাড়ির ধোঁয়া থেকে দূষন মাপার যন্ত্র, গ্রিনহাউস, সস্তার টেলিস্কোপ যার মধ্যে অত্যাধুনিক নানা ফিচার্স আছে এবং যা সাধারনের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে। এমন সব তাক লাগানো জিনিস নিয়ে হাজির ক্ষুদে  বিজ্ঞানীরা। এদের উৎসাহ দিতেই খড়্গপুর আইআইটি’র এমন ভাবনা।’

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
অনলাইনে বিজ্ঞাপন দেওয়া হয় এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করার জন্য। নাম নথিভুক্ত করে, বিভিন্ন স্কুল তাদের প্রোজেক্ট ভাবনা বিস্তারিত ভাবে জমা দেন। সেখান থেকে বাছাই পর্ব শুরু হয়। দুটি পর্বে বাছাইয়ের পর চুড়ান্ত পর্যায়ে পৌঁছেছে ৩২টি দল। তিন দিনের এই অনুষ্টানে রবিবারই বেছে নেওয়া হবে প্রথম দ্বিতীয় ও তৃতীয় প্রতিযোগীদের।

Advertisement

Advertisement

RELATED ARTICLES

Most Popular