আক্রান্ত একাধিক চিকিৎসক, হাসপাতাল বন্ধ করে দিল IIT-KHARAGPUR

2124
iit kharagpur
আক্রান্ত একাধিক চিকিৎসক, হাসপাতাল বন্ধ করে দিল IIT-KHARAGPUR 1

নিজস্ব সংবাদদাতা: ঠিক ১৬ দিনের মাত্রায় জোর ধাক্কা খেল IIT-KHARAGPUR! একাধিক চিকিৎসক একই সঙ্গে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানা গেছে যাঁরা IIT ক্যাম্পাসে অবস্থিত বি.সি. রায় হাসপাতালে চিকিৎসা পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। IIT-র একটি সূত্র মারফৎ জানা গিয়েছে শুক্রবার আ্যন্টিজেন পরীক্ষায় পজিটিভ আসার পরই ফের নিশ্চিত হওয়ার জন্য দ্বিতীয় একটি বিকল্প জায়গায় পরীক্ষা করান যেখানে ফের তাঁরা পজিটিভ হয়েছেন।

এদিকে সকালেই ওই চিকিৎসক দলটি পজিটিভ হওয়ার পরই হাসপাতাল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে IIT-KHARAGPUR ক্যাম্পাসের মধ্যে থাকা সাধারন রোগিদের জন্য। কেবলমাত্র জরুরি অবস্থা ছাড়া আপাতত বন্ধ রাখা হয়েছে সাধারন বিভাগ। সকাল থেকেই পুরো হাসপাতাল স্যানিটাইজ করার কাজ শুরু হয়েছে। ঠিক কবে এই অবস্থা স্বাভাবিক হবে জানা যায়নি কারন এই বিষয় নিয়ে IIT-KHARAGPUR
রেজিষ্টারের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও ফোন ধরেননি তিনি।
অন্য একটি সূত্র মারফৎ জানা গেছে মোট ৬জন চিকিৎসক আক্রান্ত হয়েছেন করোনাতে। শবৃহস্পতিবার মোট ৯জন চিকিৎসকের আ্যন্টিজেন পরীক্ষা করা হয়েছিল যার মধ্যে ৩জনের নেগেটিভ ফলাফল আসে। ফলাফল আসার পর অনেকেই সন্তুষ্ট হতে পারেননি এই ফলাফলে। শুক্রবার ফের হাসপাতালের একটি গাড়ি নমুনা নিয়ে ছুটে যায় কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালের পরীক্ষাগারে। সেখানে ফের নমুনা পরীক্ষা করে ৬জনকেই পজিটিভ বলা হয়েছে।

আক্রান্ত একাধিক চিকিৎসক, হাসপাতাল বন্ধ করে দিল IIT-KHARAGPUR 2

এদিকে গত ১৬দিনে IIT-KHARAGPUR এ প্রায় ৪০ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানা গেছে। ওই হিসাবে বলা হয়েছে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা অবধি সংখ্যাটি ৩১ জন ছিল। অন্য একটি সূত্র বলছে লকডাউনের সময় থেকে আইআইটি আ্যকাডেমিক ক্যাম্পাস পুরোপুরি বন্ধ থাকলেও কিছু কিছু প্রশাসনিক দপ্তর খোলা ছিল। আনলক পর্ব শুরু হতে আরও কয়েকটি দপ্তর খোলা হয় কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতির ওপর নজর রেখে আগামী সোমবার থেকে আ্যকাডেমিক ক্যাম্পাস পুরোপুরি বন্ধ করে দেওয়ার কথা ভাবছে আইআইটি কর্তৃপক্ষ।

আরও পড়ুন -  করোনায় মৃত্যু ছাড়ালো ১লক্ষ ৪৫হাজার, আমেরিকাতেই প্রায় ৩১হাজার, ভ্যাকসিন ছাড়া প্রতিরোধ অসম্ভব বললেন গুতেরেস

উল্লেখ্য গত ১৯ শে আগষ্ট IIT-KHARAGPUR এ প্রথম করোনা আক্রান্তের সন্ধান মিলেছিল। কর্তৃপক্ষের নির্দেশ অমান্য করে ক্যাম্পাসে থেকে যাওয়া দিল্লি নিবাসী এক B-TECH ছাত্র প্রথম আক্রান্ত হন। ঘটনার পরই ফের তড়িঘড়ি নির্দেশ জারি করে IIT কর্তৃপক্ষ ২৩ শে আগষ্টের মধ্যে ছাত্রদের হোষ্টেল ছাড়তে বলে আর সেই ২৩ তারিখেই এক চিকিৎসাকর্মী সহ ৩ জন আক্রান্ত হন। সেই প্ৰথম বি.সি.রায় হাসপাতালের অন্দরে করোনার অনুপ্রবেশ। এর কয়েক দিনের মধ্যেই ফের কয়েকজন আক্রান্ত হন যার মধ্যে ফের একজন মহিলা চিকিৎসাকর্মী আক্রান্ত হন। তারপর এই প্ৰথম সরাসরি চিকিৎসক আক্রান্ত হওয়ার ঘটনা ঘটল IIT-KHRAGPUR ক্যাম্পাসের বি.সি.রায় হাসপাতালে। হাসপাতাল বন্ধ থাকাকালীন যে কোনো চিকিৎসক দেখাতে হলে কর্মীদের সমস্ত বিল মিটিয়ে দেবে আইআইটি।