IIT-Kharagpur ক্যাম্পাসে অব্যাহত করোনা ঝড়, করোনায় কাবু খড়গপুর শহর

1228
IIT-Kharagpur ক্যাম্পাসে অব্যাহত করোনা ঝড়, করোনায় কাবু খড়গপুর শহর 1
IIT-Kharagpur ক্যাম্পাসে অব্যাহত করোনা ঝড়, করোনায় কাবু খড়গপুর শহর 2

নিজস্ব সংবাদদাতা: সপ্তাহের দ্বিতীয় দিনেও IIT-Kharagpur সহ গোটা শহরেরই অব্যাহত রইল করোনা ঝড়। অক্টোবরের মাস পয়লার মতই মাসের দ্বিতীয় দিনেও শহরে নতুন আক্রান্ত মিলল ৪০ জন আর IIT-Kharagpur ক্যাম্পাসেও আক্রান্তের সংখ্যাটা ১লা অক্টোবরের মতই ২রা অক্টোবরেও দ্বিতীয় অঙ্ক ছুঁয়ে থাকল। শুক্রবারের আরটি/পিসিআর রিপোর্ট বলছে IIT-Kharagpur ক্যাম্পাসে অবস্থিত বিসিরায় টেকনোলজি হাসপাতালের পাঠানো নমুনা থেকে মোট ১০জনের শরীরে করোনা জীবাণুর অস্থিত্ব মিলেছে যার মধ্যে এক ৬৭ বছরের বৃদ্ধ খড়গপুর শহরের মালঞ্চ এলাকার বাসিন্দা। বাকি ৯ জনই ক্যাম্পসের অধিবাসী।

২ তারিখ নতুন করে আক্রান্তদের মধ্যে IIT-Kharagpur ক্যাম্পাসে একই পরিবারের ৬৪ বছরের বৃদ্ধা, ৩৫ বছরের গৃহবধূ ও ১৫ বছরের কিশোর রয়েছে। অন্য আরেকটি পরিবারের ৪৩ এবং ২৩ বছরের দুই মহিলা সদস্য রয়েছেন। আশ্চর্য জনক ভাবেই একটি পরিবারে শুধুমাত্র এক ৭ বছরের বালিকা আক্রান্ত হয়েছে। বাদ বাকি ৩জন পৃথক পৃথক পরিবার থেকে আক্রান্তরা হলেন ১৯ বছরের তরুনী, ৪০ বছরের গৃহবধূ এবং ৫২ বছরের ব্যক্তি। এই নিয়ে মাসের প্রথম ২দিনেই আক্রান্ত হলেন ১৯ জন যারমধ্যে বর্তমানে ক্যাম্পসের বাইরে থাকা ৩ জনকে বাদ দিলে ক্যাম্পসের মধ্যে রয়েছেন ১৬ জন। উল্লেখ্য গতকাল আক্রান্ত ৯ জনের ২জন, এক অবসর প্রাপ্ত অধ্যাপক তাঁর স্ত্রী ক্যাম্পাসের বাইরে থাকেন।

IIT-Kharagpur ক্যাম্পাসে অব্যাহত করোনা ঝড়, করোনায় কাবু খড়গপুর শহর 3

এরপর চলে আসা যাক রেল হাসপাতাল থেকে পাঠানো নমুনায়। মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজের ভাইরোলজি ল্যাবের পরীক্ষার ফল অনুসারে রেলে মোট ১৩ জন আক্রান্ত। এঁদের মধ্যে একজনই রেলের আবাসন ব্যবহার করেন। ৪৬ বছরের ওই ব্যক্তি ছাড়া বাকিরা খড়গপুর শহরে ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছেন। যেমন ইন্দা বোস পুকুর এলাকায় এক রেলকর্মীর ২৫ ও ২০ বছরের দুই ছেলে আক্রান্ত। মালঞ্চ এলাকায় আক্রান্ত রেল কর্মীর ৪৪ বছর বয়সী স্ত্রী এবং ১৬বছরের ছেলে।

ঝাপেটাপুর, পদ্মপুকুর ও রামকৃষ্ণনগরে ৫০, ৪৩ এবং ৪৯ বছর বয়সী ৩জন রেলকর্মীর স্ত্রী আক্রান্ত হয়েছেন। মিরপুর ও কৌশল্যা এলাকায় ৫৬ এবং ৫২ বছর বয়সী ২ রেলকর্মীই আক্রান্ত হয়েছেন। এ ছাড়া চিত্তরঞ্জন নগরের বাসিন্দা রেল হাসপাতালে কর্মেরত এক ১৯ বছরের অস্থায়ী সাফাই কর্মী এবং বারবেটিয়া এলাকায় ৬২বছরের বৃদ্ধা আক্রান্ত। এছাড়াও ঝাড়গ্রামে ৩৪ বছরের রেল কর্মী আক্রান্ত।

খড়গপুর শহরে ৩১ বছরের এক পুলিশকর্মী ছাড়াও আক্রান্তরা রয়েছেন খরিদা গুরুদুয়ারা(৬৪, পুরুষ,), ইন্দা বামুনপাড়া (২৩, মহিলা), ঝাপেটাপুর(৫৯, মহিলা এবং ৬৭, পুরুষ), ইন্দা (৮৪ এবং ৪০ পুরুষ), পুরাতন বাজার (৩২, মহিলা), রাজপুরা, রাখাজঙ্গল (২৮, পুরুষ), রামকৃষ্ণপল্লী (৫৩, পুরুষ), তালবাগিচা (১৮ এবং ২৮, পুরুষ) এবং উত্তর ইন্দার শরৎপল্লীতে ২৪ বছরের যুবতী আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানা গেছে।

পাশাপাশি খড়গপুর গ্রামীণ এলাকার বসন্তপুর সুলতানপুরের ৭৫ বছরের এক বৃদ্ধ, বনপাটনা এলাকার ২২ ও ২৩ বছরের ২ জন যুবক, বল্লা, বনপাটনা এলাকার ২৪ বছরের যুবক ও কলাইকুন্ডা এলাকায় ৩৮ বছরের এক যুবক আক্রান্ত হয়েছেন। স্মরণ রাখা দরকার যে ১ তারিখের যে রিপোর্ট দ্য খড়গপুর পোষ্টে প্রকাশিত হয়েছিল তা আরটি/পিসিআরের পাশাপাশি আ্যন্টিজেন ও ট্রুনাট রিপোর্ট মিলিয়ে ছিল। ২তারিখের এই রিপোর্ট শুধুই আরটি/পিসিআর নির্ভর। ফলে আক্রান্তের সংখ্যা আরও বেশি হতে পারে।