প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধন ছাড়াই সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের নাম বদলে দিল আইআইটি খড়গপুর (IIT Kharagpur)

1494
প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধন ছাড়াই সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের নাম বদলে দিল আইআইটি খড়গপুর (IIT Kharagpur) 1

প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধন ছাড়াই সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের নাম বদলে দিল আইআইটি খড়গপুর (IIT Kharagpur) 2নিজস্ব সংবাদদাতা: প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি উদ্বোধন না করলেও আইআইটি খড়গপুরের (IIT Kharagpur)য়ের হাসপাতালটি শ্যামাপ্রসাদের নামেই বহাল হয়ে গেছে। সম্প্রতি একটি বিজ্ঞপ্তিতে দেখা যাচ্ছে ওই সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালকে ডঃ শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জী ইনস্টিটিউট অফ মেডিক্যাল সায়েন্স এন্ড রিসার্চ বলেই জানানো হচ্ছে। উল্লেখ্য গত ২৩শে ফেব্রুয়ারি ওই নামেই হাসপাতালের উদ্বোধন করার কথা ছিল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির। কিন্তু দেশব্যাপী তৈরি হওয়া বিতর্ক ও বাঙালির ভাবাবেগের কথা ভেবেই পিছিয়ে আসন প্রধানমন্ত্রী। আইআইটি কর্তৃপক্ষ জানিয়ে দেন আপাততঃ স্থগিত রইল এই সিদ্ধান্ত। কিন্তু ১লা মার্চ আইআইটির রেজিস্টার তমাল নাথের স্বাক্ষর করা একটি বিজ্ঞপ্তিতে দেখা যাচ্ছে শ্যামাপ্রসাদের নামেই ডাকা হচ্ছে হাসপাতালটিকে।

উল্লেখ্য আইআইটি খড়গপুর (IIT Kharagpur) ৬৬তম সমাবর্তন অনুষ্ঠানে প্রতিষ্ঠানের সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের নাম পরিবর্তন করে শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জী ইনস্টিটিউট অফ মেডিক্যাল সায়েন্স এন্ড রিসার্চ হিসাবে উদ্বোধন করার কথা ছিল গত ২৩শে ফেব্রুয়ারি। ১৪বছর আগে যে হাসপাতালের নামের পরিকল্পনা করা হয়েছিল ডঃ বিধান চন্দ্র রায় ইনস্টিটিউট অফ মেডিক্যাল সায়েন্স এন্ড রিসার্চ নামে। যার ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন তৎকালীন রাষ্ট্রপতি এপিজে আবদুল কালাম। সেই হাসপাতালের নাম বদল হচ্ছে এমনটাই ঘোষণা করেন ডিরেক্টর অধ্যাপক বীরেন্দ্র কুমার তিওয়ারি। ১৩ই ফেব্রুয়ারি তিওয়ারি নিজের ফেসবুকে জানান যে সমাবর্তনের দিন প্রধানমন্ত্রী স্বয়ং এই হাসপাতালের উদ্বোধন করবেন। আর সেটা জানার পরই তীব্র প্রতিবাদের ঝড় ওঠে সারা দেশ জুড়েই।

প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধন ছাড়াই সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের নাম বদলে দিল আইআইটি খড়গপুর (IIT Kharagpur) 3

১৮০জন আইআইটির প্রাক্তনী এর প্রতিবাদ জানিয়ে চিঠি লেখেন প্রধানমন্ত্রীকে। সম্ভবতঃ পশ্চিমবঙ্গে বিধানসভা নির্বাচনের আগে কোনও বিতর্কে জড়াতে না চেয়েই প্রধানমন্ত্রী সমাবর্তনে ভার্চুয়ালি উপস্থিত থাকলেও হাসপাতাল উদ্বোধন করার পরিকল্পনা থেকে সরে আসেন। যদিও তাতেও বিক্ষোভ কিংবা বিতর্ক পিছু ছাড়েনি। নাম পরিবর্তনের প্রতিবাদে আইআইটি খড়গপুরের মূল ফটকের সামনে বিক্ষোভ দেখায় আমরা বামপন্থী, ডিএসও, কংগ্রেসের শ্রমিক সংগঠন। অনলাইন সমাবর্তন চলার সময় বহু প্রাক্তনী রিমার্কের জায়গায় কটাক্ষ করে লেখেন, ‘আর পি হলটা আদৌ আছে তো?’ কেউ লেখেন, ‘আজাদ কি নাম ভি না চেঞ্জ কর দে ইয়ে লোক।’ উল্লেখ্য আর পি হল কিংবা আজাদ হল হল ছাত্রাবাস।

প্রধানমন্ত্রী হাসপাতালের উদ্বোধন করছেননা জানার পরই সমাবর্তনের আগের দিন রাতেই বলরামপুর ক্যাম্পাসে অবস্থিত হাসপাতালটির সামনে হিন্দি, ইংরেজী, বাংলা এবং সংস্কৃতে শ্যামাপ্রসাদ নামাঙ্কিত অংশটি সাদা আচ্ছাদনে ঢেকে দেওয়া হয়। আইআইটির রেজিষ্টার জানান, ‘টেকনিক্যাল কারনে এই উদ্বোধন স্থগিত রাখা হল।’

এদিকে প্রধানমন্ত্রী শ্যামাপ্রসাদের নামে হাসপাতালটি উদ্বোধন না করায় খুশি ব্যক্ত করেন অনেকেই। এই হাসপাতালের প্রকৃত স্বপ্নদ্রষ্টা আইআইটির প্রাক্তন অধ্যাপক অজয় রায় জানিয়েছিলেন, ‘শুনে ভাল লাগছে যে প্রধানমন্ত্রী হাসপাতালের উদ্বোধন করছেননা জেনে। আশা করছি আগের মতই ডাঃ বিধানচন্দ্র রায়ের নামেই হাসপাতালটি থাকবে। চিকিৎসা জগতে ওনার অবদানের জন্যই তাঁর নামে এই নামকরন করা হয়েছিল। পাশাপাশি বাংলায় দেশের প্রথম আইআইটি প্রতিষ্ঠারও অনেকখানি কৃতিত্ব তাঁরই।”

যদিও আইআইটি খড়গপুর কর্তৃপক্ষ তাঁদের নিজের জায়গাতেই অটল থাকলেন বলেই জানা গেল। আগেই বোর্ড অফ গভর্নরে এই নাম বদলের প্রস্তাব পাশ হয়ে গিয়েছিল আর সেই সিদ্ধান্ত মোতাবেকই হাসপাতালটিকে ‘ডঃ শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জী ইনস্টিটিউট অফ মেডিকেল সায়েন্স এন্ড রিসার্চ’ বলেই কাগজে কলমে কাজ শুরু করে দিয়েছেন। ১লা মার্চ রেজিষ্টার আইআইটি খড়গপুরের সমস্ত প্রধান, ডিন, আধিকারিক, চেয়ারম্যান ইত্যাদিদের জানিয়েছেন, ‘ডিরেক্টর খুশির সঙ্গে ডাঃ বিসি রায় টেকনোলজি হাসপাতালের প্রধান ডাঃ প্রশান্ত কুমার সান্নিগ্রাহীকে ডঃ শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জী ইনস্টিটিউট অফ সায়েন্স এন্ড রিসার্চের প্রশাসনিক কর্তা হিসাবে নিযুক্তিতে সম্মতি দিয়েছেন যা এখন থেকে কার্যকরী হল।’

উল্লেখ্য আইআইটি ক্যাম্পাসের অভ্যন্তরে একটি ছোট হাসপাতাল রয়েছে যা বিধানচন্দ্র রায় টেকনোলজি হাসপাতাল নামে পরিচিত। এই হাসপাতালের বর্তমান প্রধান রয়েছেন ডাঃ সান্নিগ্রাহী যাঁকে অতিরিক্ত দায়িত্ব হিসাবে নিয়ে যাওয়া হল সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের। চলতি বর্ষেই এর পাঠক্রম চালু হওয়ার কথা।