ক্যাম্পাসে ক্রমবর্ধমান সংক্রমনের মুখেই মোবাইলেও টেলিমেডিসিন ব্যবস্থা চালু করল IIT Kharagpur

1063
ক্যাম্পাসে ক্রমবর্ধমান সংক্রমনের মুখেই মোবাইলেও টেলিমেডিসিন ব্যবস্থা চালু করল IIT Kharagpur 1

নিজস্ব সংবাদদাতা: এবার মোবাইল ফোনের মাধ্যমেই নিজেদের কর্মী ও তাঁদের পরিবারকে চিকিৎসা সংক্রান্ত পরিষেবা দিতে চলেছেন IIT-Kharagpur. করোনা সংক্রমন বাড়ছে IIT-Kharagpur ক্যাম্পাসে। আগষ্ট মাসের ১৯ তারিখ প্রথম করোনা সংক্রমন ধরা পড়ে ক্যাম্পাসে আর সেপ্টেম্বরের শুরু থেকে সেই সংক্রমনের প্রাবল্য দেখা দেয় যার প্রতাপ এখন মারাত্মকভাবে প্রকট হয়ে দাঁড়িয়েছে। গত ৪৮ ঘন্টায় ক্যাম্পাসেই আক্রান্ত হয়েছেন ১৭ জন আর বি.সি.রায় টেকনোলজি হাসপাতালের সুবিধা গ্রহণ করে থাকেন অথচ ক্যাম্পাসের বাইরে  থাকেন এমন আরও তিনজন আক্রান্ত এই সময়ে।

সব মিলিয়ে IIT-Kharagpur ক্যাম্পাসে আক্রান্তের সংখ্যা কমবেশি ১০০জন। প্রথম প্রথম কর্তৃপক্ষ আক্রান্তদের কোনোও ঝুঁকি না নিয়ে কলকাতার বেসরকারি হাসপাতালে পাঠাচ্ছিলেন। পরে খড়গপুর মহকুমা হাসপাতালের সেফ হোমেও পাঠানো হয়। বর্তমানে অবশ্য বেশিরভাগ আক্রান্তই হোম কোয়ারেন্টাইনেই। এই বড় সংখ্যক আক্রান্তকে বাড়িতে বসেই চিকিৎসা পরিষেবা দেওয়ার জন্য টেলিমেডিসিন পদ্ধতি চালু করলেন IIT-Kharagpur কর্তৃপক্ষ যার নাম দেওয়া হয়েছে iMediX।২ রা অক্টোবর, গান্ধীজির জন্মদিনে সেই পদ্ধতির উদ্বোধন হয়ে গেল।

ক্যাম্পাসে ক্রমবর্ধমান সংক্রমনের মুখেই মোবাইলেও টেলিমেডিসিন ব্যবস্থা চালু করল IIT Kharagpur 2

বাড়িতে থাকা রোগিকে স্বাস্থ্য পরিষেবা দেওয়া এমনকি সঙ্কটকালীন অবস্থাতেও চিকিৎসা সহায়ক এই পদ্ধতিতে মোবাইল কিংবা যেকোনও ইন্টারনেট ব্রাউজারেই একজন সর্বক্ষণের চিকিৎসক অপরপ্রান্ত থেকে রোগিকে সাহায্য করে যাবে। এই সুবিধা পাওয়ার জন্য একজন রোগি তাঁকে দেওয়া ইমেল আইডিতে সাইনআপ করবেন অথবা তাঁর মোবাইল নম্বরটি পদ্ধতির সঙ্গে যুক্ত করবেন। আক্রান্ত তাঁর সমস্ত চিকিৎসা সংক্রান্ত নথি এখানে আপলোড করবেন এবং হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে আবেদন করবেন চিকিৎসা পরিষেবা পাওয়ার জন্য।

আরও পড়ুন -  ভোর থেকেই ঝমঝম, খড়গপুর মেদিনীপুরে এক লাফে তাপমাত্রা নামল ৫ ডিগ্রি! দক্ষিণবঙ্গে বজ্রবিদ্যুৎ, উত্তরে হলুদ সতর্কতা

এরপরই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ সেই নথি পরীক্ষা নিরীক্ষার পর একজন চিকিৎসককে তাঁর দায়িত্ব দেবেন। চিকিৎসক সমস্ত নথি খতিয়ে দেখার পর আক্রান্তকে একটি নির্দিষ্ট দিন এবং সময় ম্যাসেজ করে পাঠাবেন। ওই দিন, ওই সময় মোবাইল বা অন্য কোনও মাধ্যমে ভিডিও কনফারেন্স মারফৎ রোগির সঙ্গে কথাবার্তা, শারীরিক লক্ষন পরীক্ষা ইত্যাদি করবেন। তারপর তিনি প্রেসক্রিপশন পাঠাবেন ই মেলে যা রোগি ডাউনলোড করে নিতেও পারেন।

আরও পড়ুন -  দ্য খড়গপুর পোষ্ট'য়ের হাত ধরেই হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন পৌঁছাল খড়গপুরের মেয়ের কাছে,বেনজির উদ্যোগ জেলাশাসকের

এই পদ্ধতিটি যারা সংযুক্ত করেছেন IIT-Kharagpurয়ের সেই কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের অধ্যাপক গবেষক জয়ন্ত মুখোপাধ্যায় বলেছেন, ” বাড়তি সংক্রমনের মুখে দাঁড়িয়ে যেখানে অধিক সংখ্যক মানুষকে হোম আইসোলেশনে বা হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হচ্ছে সেখানে এই পদ্ধতি সমস্ত আক্রান্তকেই গুরুত্ব দিয়ে পরিষেবা প্রদান করতে পারবে। পাশাপাশি বয়স্কদের চিকিৎসা সংক্রান্ত ধারাবাহিকতা রাখতে এই পদ্ধতি অত্যন্ত ফলপ্রসূ।” iMedX ইতিমধ্যেই ক্যাম্পাসের আক্রান্তদের জন্য চালু করেও দিয়েছে IIT কর্তৃপক্ষ।

আরও পড়ুন -  মণীশ শুক্ল খুনে বাংলাদেশ থেকে শ্যুটার আনিয়েছিল তৃণমূল, দাবি কৈলাস বিজয়বর্গীয়-র

IIT-Kharagpur ডিরেক্টর অধ্যাপক বীরেন্দ্র কুমার তেওয়ারি জানিয়েছেন, ” এই অতিমারিকে মোকাবিলা করার জন্য জাতির পাশে দাঁড়াতে এপ্রিল মাসে আমরা ৮টি গবেষনা মূলক প্রোজেক্ট গ্রহণ করেছিলাম। এটি তারই একটি। করোনা মোকাবিলায় সামাজিক দূরত্বের নীতি একটি গুরুত্বপূর্ণ উপায়। এই পদ্ধতিতে সেই দূরত্ব বজায় রেখেই চিকিৎসা পরিষেবা দেওয়া সম্ভব। আর আমাদের সমস্ত মেডিক্যাল কার্ড ব্যবহারকারীদের নিজস্ব ই-মেল আ্যকাউন্ট তৈরি করে দিচ্ছি যাতে তারা এই ভিডিও কলের মাধ্যমে চিকিৎসা সুবিধা নিতে পারেন।”
এই সফটওয়্যারটির বাণিজ্যিক সুবিধা নেওয়ার জন্য কর্তৃপক্ষ ইতিমধ্যে রাজ্যের স্বাস্থ্য ভবন ও বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন বলে জানা গেছে।