করোনা আবহে ব্যাপক রদবদল নবান্নে, এখনই কেন বদলি উঠছে প্রশ্ন

108
করোনা আবহে ব্যাপক রদবদল নবান্নে, এখনই কেন বদলি উঠছে প্রশ্ন 1

ওয়েব ডেস্ক : করোনা পরিস্থিতির মধ্যেই প্রতিবছরের মতো এবছরও রুটিন মেনে একাধিক পদের রদবদল হল রাজ্য প্রশাসনে। নবান্নের তরফে একাধিক সচিবদের দায়িত্ব বদল করা হল। শুক্রবার এমনি নবান্নের তরফে এমনই নির্দেশিকা জারি করা হল। তবে এইমূহুর্তে যে সকল সচিবদের বদলির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে তাদের মধ্যে বেশিরভাগই আইএএস। পরবর্তীকালে ধীরে ধীরে বিভিন্ন দফতরের বেশকিছু আধিকারিকের বদলির নির্দেশিকা জারি করা হবে। রাজ্যে এই মূহুর্তে করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ। ক্রমশ বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। এই পরিস্থিতিতে রাজ্য সরকারের তরফে সচিবদের এভাবে রদবদলে রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় সরকারের ব্যার্থতা স্পষ্টভাবে প্রকাশ পাচ্ছে।

জানা গিয়েছে, শিক্ষা দফতরের সচিব অনিল ভার্মাকে বর্তমানে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি দফতরে এসিএস করা হল। এতদিন এই দফতরের দায়িত্ব ছিল বরুণকুমার রায়ের। বর্তমানে তাকে পাঠানো হল যুব কল্যাণ ও ক্রীড়া দপ্তরের প্রধান সচিব পদে। এছাড়া অপ্রচলিত শক্তি দপ্তরের সচিব ছিলেন রাজীব কুমার। তিনি এবার শিক্ষা দপ্তরের দায়িত্ব পেলেন। পাশাপাশি পঞ্চায়েত দফতরের সচিব পদে ছিলেন ছোটেন ধেন্দুপ লামা। তাঁকে অপ্রচলিত শক্তি দপ্তরের সচিব পদে নিয়ে আসা হল। সুমন্ত চৌধুরি এতদিন এটিআইয়ের ডিজি পদের দায়িত্বে ছিলে। এবার থেকে তার ওপর অতিরিক্ত দায়িত্ব দেওয়া হল। তিনি ‘বিশ্ব বাংলা’র দিল্লির রেসিডেন্ট কমিশনারের অফিসের ওএসডি’র দায়িত্ব পেলেন।

করোনা আবহে ব্যাপক রদবদল নবান্নে, এখনই কেন বদলি উঠছে প্রশ্ন 2

পাশাপাশি, পি অ্যান্ড এআর দফতরের ওএসডি ছিলেন তেজস্বী রানা। এবার থেকে তিনি ভূমি ও ভূমি রাজস্ব এবং উদ্বাস্তু, পুনর্বাসন দপ্তরের ওএসডি পদে নিয়ে আসা হল। শুক্রবার নবান্ন থেকে তাঁদের বদলির নির্দেশিকা জারি হয়েছে। প্রতিবছর অনেক আগেই এই রদবদল হয় কিন্তু এবছর করোনা পরিস্থিতি ক্রমশ ভয়াবহ হওয়ার জন্য সচিবদের বদলি না করে তাদের ওপর বাড়তি দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু এতদিন পর যখন রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি যখন ক্রমশ চূড়ান্ত রূপ নিচ্ছে, তখন নবান্নের এমন সিদ্ধান্তে স্বাভাবিকভাবেই হতবাক রাজনৈতিক মহল।