দৈনিক মৃত্যুতে বিশ্বে প্রথম স্থানে পৌছাল ভারত, আক্রান্ত সাড়ে ৩ লক্ষের কাছাকাছি

112
Advertisement

নিউজ ডেস্ক: ভারতে করোনা ভাইরাসের দ্বিতীয় তরঙ্গ দিন দিন আরও বেশি ভয়ঙ্কর হচ্ছে এবং দেশজুড়ে মৃত্যুর পরিসংখ্যানও ভয় ধরাতে শুরু করেছে। গত ২৪ ঘন্টায় ভারতে কোভিড -১৯ এর ৩.৪৮ লক্ষ নতুন মামলা এসেছে। এর আগে মঙ্গলবার, ২৪ ঘন্টার মধ্যে ৩.২৯ লক্ষ নতুন মামলা এসেছিল। ভারতে কোভিড -১৯ এর নতুন কেস বৃদ্ধি পাওয়ার সাথে সাথে মৃতের সংখ্যাও উদ্বেগজনক এবং গত ২৪ ঘন্টার মধ্যে ৪,২০৫ মানুষ মারা গেছেন , মহামারীর সূচনার পর থেকে এটি সর্বোচ্চ সংখ্যা। এর আগে ৮ ই মে, সবচেয়ে বেশি সংখ্যক মৃত্যুর ঘটনা ঘটে এবং ৪,১৮৭ জন রোগী প্রাণ হারান।

Advertisement

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের দেওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘন্টায় ভারতে করোনা ভাইরাস সংক্রামিত হয়েছেন ৩ লক্ষ ৪৮ হাজার ৪২১ জন, আর এই সময়ের মধ্যে ৪,২০৫ মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন। এ পর্যন্ত দেশ জুড়ে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ২ কোটি ৩৩ লাখ ৪০ হাজার ৯৩৭ টি। মোট সক্রিয় মামলা – ৩৭ লক্ষ ৪ হাজার ৯৯ টি, মোট মৃত্যু – ২ লক্ষ ৫৪ হাজার ১৯৭ টি।

Advertisement
Advertisement

দেশে করোনার মৃত্যুর হার ১.০৯ শতাংশ এবং পুনরুদ্ধারের হার ৮৩ শতাংশেরও কম। অ্যাক্টিভ কেস ১৬ শতাংশেরও বেশি নিচে নেমে এসেছে। করোনার অ্যাক্টিভ মামলায় ভারত বিশ্বের দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে। সংক্রামিত মোট সংখ্যার দিক থেকেও ভারত দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে। যদিও আমেরিকা, ব্রাজিল এবং মেক্সিকোয়ের পরে ভারতে সবচেয়ে বেশি মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।

মঙ্গলবার মহারাষ্ট্রের রাজধানী মুম্বাইয়ে কোভিড -১৯ এর নতুন কেস কমছে এবং মঙ্গলবার সংক্রমণের ১,৭১৭ টি নতুন কেস পাওয়া গেছে, আর এই সময়ের মধ্যে ৫১ জন রোগী মারা গেছেন। নতুন মামলার আগমনের পরে, মুম্বাইয়ে সংক্রামিত মোট মানুষের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬,৭৯,৯৮৬ এবং এই মহামারী থেকে এখন পর্যন্ত প্রাণ হারানো মানুষের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৩,৯৪২ জন।

মহারাষ্ট্রের কথা বললে, মঙ্গলবার সংক্রামিত লোকের সংখ্যা কোভিডের ৪০,৯৯৬ টি নতুন কেসের সাথে বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫১,৭৯,৯২৯। স্বাস্থ্য অধিদফতরের একজন কর্মকর্তা বলেছেন যে, এই সময়ে সংক্রমণের কারণে ৭৯৩ জন রোগী মারা গেছেন। রাজ্যে এই মহামারী থেকে এখনও পর্যন্ত ৭৭,১৯১ জনের মৃত্যু হয়েছে।

অন্যদিকে পশ্চিমবঙ্গে,গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত ২০ হাজার ১৩৬ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ১৩২ জনের। গত একদিনে রাজ্যে করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ১৮ হাজার ৯৯৪ জন। যার ফলে এই মুহূর্তে রাজ্যে করোনা থেকে সুস্থতার শতকরা হার পৌঁছে গেল ৮৬.৪২ শতাংশে।