ভোট মিটতেই ছত্রধরের বাড়িতে এনআইএ(NIA)-এর হানা, টেনে হিঁচড়ে তুলে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ

423
ভোট মিটতেই ছত্রধরের বাড়িতে এনআইএ(NIA)-এর হানা, টেনে হিঁচড়ে তুলে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ 1

নিজস্ব প্রতিনিধি, ঝাড়গ্রাম: প্রথম দফার ভোট মিটতেই ছত্রধরের বাড়িতে জাতীয় তদন্তকারি সংস্থা বা এনআইএ(NIA)এর হানা। রবিবার ভোররাতে এনআইএ- এর বিশেষ দল ছত্রধর মাহাতোর বাড়িতে হানা দিয়ে জোরপূর্বক ছত্রধর মাহাতোকে তুলে নিয়ে যায় বলে অভিযোগ। কী কারনে ছত্রধরকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গেল এনআইএ (NIA) এবং তাঁকে এখন কোথায় কী অবস্থায় রাখা রয়েছে তা নিয়ে ধন্ধে রয়েছে তাঁর পরিবার।

ছত্রধরের পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, ভোর সাড়ে তিনটে নাগাদ ছত্রধর মাহাতোর লালগড়ের আমলিয়া গ্রামের উপকণ্ঠে নতুন পাকা বাড়িতে প্রথম হানা দেয় এনআইএ (NIA) । সেখানে তখন তার বড় ছেলে ধৃতিপ্রাসাদ মাহাতো এবং ছত্রধর মাহাতো ছয় জন সিক্যুইরিটির মধ্যে দুজন সিক্যুইরিটি সেই বাড়িতে ছিল । সিক্যুইরিটি বাড়ির দরজা খুলতেই প্রথমে তাঁদের মোবাইল ফোন এবং দুটো বন্দুক নিয়ে নেওয়া এনআইএ (NIA)।

ভোট মিটতেই ছত্রধরের বাড়িতে এনআইএ(NIA)-এর হানা, টেনে হিঁচড়ে তুলে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ 2

ছত্রধর মাহাতোর বড় ছেলে ধৃতিপ্রাসাদেরও মোবাইল ফোন কেড়ে নেওয়া হয় বলে অভিযোগ। তারপর পুরো বাড়িতে তন্নতন্ন করে তল্লাশি চালায় এনআইএ । ধৃতিপ্রাসাদকে সঙ্গে নিয়ে ছত্রধরের পুরনো বাড়ি যে মাটির বাড়িতে ছত্রধর তাঁর পরিবারের সঙ্গে ছিলেন, সেখানে হানা দেয় এনআইএ(NIA)। বাড়িতে ঢুকে প্রথমে সকলের মোবাইল ফোন কেড়ে নেওয়া হয়। দোতলা মাটির বাড়ির ছাদে ঘুমিয়েছিলেন ছত্রধর মাহাতো।

জানা যায়, পরনে কেবল একটি গেঞ্জি একটি গামছা ছিল ছত্রধরের । সেই অবস্থায় ছত্রধরকে বাড়ির ভেতর থেকে টেনে-হিঁচড়ে এবং চারজনে মিলে হাতে পায়ে ধরে তুলে ছত্রধরকে এনআইএ নিয়ে যায় বলে তাঁর পরিবারের অভিযোগ। রাতের মধ্যে কেন এইভাবে ছত্রধরকে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে সেই বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে এনআইএ কোন সদুত্তর দিতে পারেননি বলেও তাঁর পরিবারের অভিযোগ । ছত্রধর মাহাতোর বড় ছেলে ধৃতিপ্রাসাদ মাহাতো বলেন , “প্রথমে তারা মোবাইলফোন গুলি কেড়ে নেয় এবং আমাকে সঙ্গে নিয়ে এসে বাড়িতে ঢুকে বাবাকে টানাহেঁচড়া করে চারজনে মিলে তুলে নিয়ে যায় । আমরা জানতে চাই কি কারণে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে তার কোন কিছু উত্তর দিতে চায়নি তারা । কোন কাগজ দেখাতে চায়নি।”

এই মুহূর্তে ছত্রধরের পরিবার ধন্ধে রয়েছে ছত্রধরকে কোথায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে। ছত্রধরের স্ত্রী নিয়তি মাহাতো ও মা বেদনাবালা মাহাতো বলেন, “রাতের বেলায় ধস্তাধস্তি করে ছত্রধরকে নিয়ে গেল, কোথায় তাঁকে রেখেছে আমরা কিছুই জানি না।” ছত্রধরের মা বেদনা বালা মাহাতো বলেন, “ছত্রধর অসুস্থ তাঁকে যেন মারধর না করা হয়।” ছত্রধরের আইনজীবী কৌশিক সিনহা বলেন, “ছত্রধর কে ভোররাতে এনআইএ (NIA) নিয়ে গিয়েছে বাড়ি থেকে । তাঁকে আটক করা হয়েছে না তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে তা কোর্টে তুললে জানা যাবে।”

ছত্রধর মাহাতোকে এনআইএ (NIA) বহুবার গ্রেফতার করার আবেদন জানিয়েছিল বিশেষ আদালতে । কিন্তু হাইকোর্টের নির্দেশে গ্রেফতার না করে প্রতি সপ্তাহে তিন দিন ছত্রধরকে হাজিরা দিতে হত এনআইএ- এর কাছে। ছত্রধর মাহাতোর দাঁতের সমস্যা থাকার কারণে তিনি কয়েকটি হাজিরা দিতে পারেননি বলেও জানা যায় । ভোটের আগের দিন ২৬ তারিখ তিনি হাজিরা দিয়েছিলেন এনআইএ- এর কাছে । তারপরেই ভোট শেষ হতেই ভোররাতে ছত্রধরকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যায় এনআইএ ।