Homeএখন খবরদুই জেলার দুই কলেজের উদ্যোগে অনলাইনেই উদযাপিত হল যোগ সঙ্গীত দিবস

দুই জেলার দুই কলেজের উদ্যোগে অনলাইনেই উদযাপিত হল যোগ সঙ্গীত দিবস

Advertisement

নিজস্ব সংবাদদাতা: অতিমারীতে গৃহবন্দি মানুষ, গৃহবন্দি ছাত্রছাত্রীরাও। সুদীর্ঘ গৃহবন্দি জীবন মানুষের জীবনে নিয়ে আসছে নানা মানসিক ও শারীরিক সমস্যা। একেবারে অন্য রকম সমস্যা যা মানুষের ধারনাতীত। হয়ত এই সমস্যার জের চলতে পারে দীর্ঘদিন ধরে। ঘরে বসা অলস জীবন নিয়ে আসতে পারে দীর্ঘ অবসাদ। এরকমই নানা রকম ভাবনা থেকেই মুক্তির উপায় খুঁজতে মানসিক ভাবে মানুষ যেমন সঙ্গীতের আশ্রয় নিতে পারেন তেমনই শরীরবৃত্তীয় সমস্যার মুক্তি রয়েছে যোগে। বিশ্বের বহু দেশে এই থেরাপি আজ শুধু প্রমাণিত নয়, সমাদৃতও বটে। এই ভাবনা থেকেই পাশাপাশি দুই জেলা ঝাড়গ্রাম ও পশ্চিম মেদিনীপুরের দুটি শিক্ষন প্রশিক্ষণ মহাবিদ্যালয় অবতারণা করল দুটি ভিন্ন ধারার ওয়েবনারের।

পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার মেদিনীপুর সদর ব্লকের পাঁচখুরিতে অবস্থিত ঋষি অরবিন্দ বি এব কলেজ এবং ঝাড়গ্রাম জেলাতে সাঁকরাইল ব্লকে অবস্থিত কুলটিকরী বি এড কলেজের উদ্যোগে সোমবার যৌথভাবে বিশ্ব যোগ দিবস ও বিশ্ব সঙ্গীত দিবস পালিত হল । এই উপলক্ষ্যে এই দুই মহাবিদ্যালয়ের উদ্যোগে অনলাইনে একটি যৌথ ওয়েব কনফারেন্সের আয়োজন করা হয়েছিল। এই আলোচনাচক্রে উপস্থিত ছিলেন রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের সেন্টার ফর অনলাইন এন্ড ডিসটেন্স এডুকেশনের অধ্যাপিকা ড: রুমা মিত্র এবং ভারত সরকারের শংসাপত্র প্রাপ্ত বিশিষ্ট, স্বনামধন্য যোগ শিক্ষক আলোক কুমার পাল। সমগ্র অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন কুলটিকরী শিক্ষক শিক্ষণ মহাবিদ্যালয়ের অধ্যাপক অরিজিৎ সিনহা ।

আলোকবাবু যোগার বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন এবং ড: রুমা মিত্র সংগীতে সুর ও ভাব সম্পর্কে রবীন্দ্রনাথের দৃষ্টিভঙ্গিকে ব্যক্ত করেন ।এই অনুষ্ঠানে দুই মহাবিদ্যালয়ে শারীরশিক্ষা বিভাগের অধ্যাপকদ্বয় পল্লব মান্না এবং তাজমেদ খান শিক্ষার্থীদের যোগ প্রদর্শনের মাধ্যমে উদ্বুদ্ধ করেন ।এই দুই কলেজের ছাত্রছাত্রীরাও এই অনুষ্ঠানে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেন। ।ঋষি অরবিন্দ বি এড কলেজের শিক্ষিকা সহেলী বেরা খান যোগের বিভিন্ন দিক গুলিকে নৃত্যের ছন্দে মাধ্যমে তুলে ধরেন । অনুষ্ঠানটিতে সঙ্গীত পরিবেশন করেন ঋষি অরবিন্দ মহাবিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত অধ্যাপিকা সুলগ্না চক্রবর্তী এবং অধ্যাপক অমিত মন্ডল।

পাঁচখুরি ঋষি অরবিন্দ বি এড কলেজের সম্পাদক মিঠুন বারিক সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন । পাশাপাশি মিঠুন বাবু,এই দিনটি বিশ্ব যোগ দিবস ও বিশ্ব সঙ্গীত দিবস হওয়ার সাথে সাথে বিশ্ব মানবতা দিবস ও বিশ্ব জলসম্পদ বিজ্ঞান দিবস হিসাবে সমান ভাবে পালনীয় সেটিও তাঁর বক্তব্যের মাধ্যমে সকলের সামনে তুলে ধরেন ।

উল্লেখ্য এই দুটি কলেজ কোভিড পরিস্থিতিতে দুঃস্থ মানুষদের পাশে দাঁড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে অনলাইন মাধ্যমে একাধিক ওয়েবনিয়ার, সেমিনার, ওয়েব কনফারেন্স,ওয়ার্কশপ, অনলাইন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আয়োজন করে চলেছে।যা ইতিমধ্যেই সরকারিভাবে প্রংশসিত হয়েছে।

Advertisement

Advertisement

RELATED ARTICLES

Most Popular