তোমাদের চাকরি আছে, ট্যুইট করে পড়ুয়াদের জানালো আইআইটি খড়গপুর

170
তোমাদের চাকরি আছে, ট্যুইট করে পড়ুয়াদের জানালো আইআইটি খড়গপুর 1
তোমাদের চাকরি আছে, ট্যুইট করে পড়ুয়াদের জানালো আইআইটি খড়গপুর 2

নিজস্ব সংবাদদাতা: শুধু মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রই জানিয়েছে করোনা যুদ্ধের শেষে ভারতে ফিরতে হবে সে দেশে কর্মরত ৭৫হাজার ব্যক্তিকে। করোনা আর লকডাউনের ধাক্কা সামলে সারা বিশ্বে কর্মচ্যুত হবেন ২৫মিলিয়ন মানুষ। রিজার্ভ ব্যাঙ্কের গভর্নর রঘুরাম রঞ্জন জানিয়েছেন, ভারতে ৪০কোটি মানুষ পেশা হারাতে চলেছেন। সরকারি হিসাবে ইতিমধ্যেই কর্মহীন ২৩শতাংশের বেশি। আর এই পরিস্থিতিতে আতঙ্কিত তাঁরাও যাঁদের নতুন চাকরিতে যোগ দেওয়ার ছিল। যার মধ্যে রয়েছে আইআইটি খড়গপুরের পড়ুয়ারা যাঁদের বিশ্বের বিভিন্ন কোম্পানীগুলি কাউন্সিলিং করার পর সবুজ বার্তা সহ প্লেসমেন্ট দিয়েই রেখেছিল শুধু জয়েনের অপেক্ষা।

শনিবার এই তাঁদের উদ্দেশ্যেই আইআইটি খড়গপুর কর্তৃপক্ষ ট্যুইট করে জানালো যে চাকরি সুরক্ষিত আছে। ।২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের এখনো পর্যন্ত ১৩০৬জন পড়ুয়া বিভিন্ন কর্পোরেট সংস্থা থেকে চাকরির অফার পেয়েছে। আইআইটি কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে এখনো পর্যন্ত কোন পড়ুয়ার চাকরি বাতিল করেছে কোন সংস্থা এরকম কোন খবর আইআইটি কর্তৃপক্ষের কাছে নেই। তবে যাতে পড়ুয়াদের চাকরি সুরক্ষিত থাকে তার জন্য একটি টাস্কফোর্স গঠন করেছে আইআইটি খড়গপুর কর্তৃপক্ষ।মূলত এই টাস্কফোর্স যে সমস্ত কর্পোরেট সংস্থার পড়ুয়াদের চাকরির অফার দিয়েছে তাদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখা এবং প্রয়োজনীয় তথ্য আদান-প্রদানের কাজ করবে।

তোমাদের চাকরি আছে, ট্যুইট করে পড়ুয়াদের জানালো আইআইটি খড়গপুর 3

মূলত করোনাভাইরাস আতঙ্ক এবং লকডাউন এর জেরে চাকরি পেতে চলা পড়ুয়াদের অনেকেই চাকরি হারাতে পারেন বলে আশঙ্কা করা হচ্ছিল। তার জেরেই আইআইটি খড়গপুর কর্তৃপক্ষ শনিবার সকালে টুইট করে তাদের অবস্থান স্পষ্ট করে জানালো বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।
দেশজুড়ে ক্রমশই বেড়ে চলেছে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা। গত কয়েক সপ্তাহের নিরিখে চলতি সপ্তাহে লাফিয়ে লাফিয়ে বেড়েছে করোনাতে আক্রান্তের সংখ্যা। বর্তমানে রাজ্য তথা পশ্চিমবঙ্গেও ক্রমশই করোনাভাইরাস এ আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে চলেছে। তবে এই করোনাভাইরাস বিশ্ব তথা দেশজুড়ে আর্থিক মন্দার পরিস্থিতি তৈরি করেছে। অর্থনীতি বিষয়ক বিশেষজ্ঞরা বলছেন দেশজুড়ে কয়েক লক্ষ কর্মহীন হতে চলেছে এই করোনাভাইরাস এর জেরে।সবচেয়ে বড় আতঙ্কের বিষয় চলতি বছরে প্লেসমেন্ট হওয়া ছাত্র-ছাত্রীদের কর্পোরেট সংস্থাগুলি আদৈও চাকরিতে নিয়োগের সম্মতি দেবে নাকি।

ইতিমধ্যেই বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ছাত্র-ছাত্রীদের চাকরির ব্যাপারে উৎকণ্ঠায় রয়েছেন। ইতিমধ্যেই শিবপুর আইআইইএসটি কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে তাদের ছাত্র-ছাত্রীদের চাকরিতে যোগদানের সময়সীমা অনেকটাই পিছিয়ে যাচ্ছে। অন্যদিকে ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অফ ম্যানেজমেন্ট( জোকা) এর কয়েকজন পড়ুয়ার চাকরির অফার বাতিল করেছে কর্পোরেট সংস্থাগুলি বলেই খবর।
এবার তাই বিভ্রান্তি এড়াতে পড়ুয়াদের চাকরি সুনিশ্চিত আছে বলে শনিবার টুইট করল আইআইটি খড়গপুর কর্তৃপক্ষ। টুইট করে আইআইটির তরফে জানানো হয়েছে ইতিমধ্যেই যে কর্পোরেট সংস্থাগুলি ছাত্র-ছাত্রীদের চাকরি দিয়েছে তাদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখার জন্য একটি টাস্কফোর্স গঠন করা হয়েছে।

আইআইটি সূত্রে খবর এই টাস্কফোর্সে আইআইটি অধ্যাপকদের রাখার পাশাপাশি কর্পোরেট সংস্থাগুলির উচ্চপদস্থ আধিকারিকদেরও রাখা হয়েছে। যদিও শেষ অবধি বাস্তব অবস্থা ঠিক কি তা জানা যাবে লকডাউন ওঠার পর সব কিছু স্বাভাবিক হলেই। এখন বহু কোম্পানীই তাঁদের নিজেদেরই ভবিষ্যৎ ঠিক করে উঠতে পারছেনা বলেই খবর।