প্রদীপ সরকারই প্রার্থী, ডিফেন্স সরিয়ে নিলেন বিদ্রোহীরা , লড়াইয়ের সুবিধা হবে জানালো কংগ্রেস ও বিজেপি

177
প্রদীপ সরকারই প্রার্থী, ডিফেন্স সরিয়ে নিলেন বিদ্রোহীরা , লড়াইয়ের সুবিধা হবে জানালো কংগ্রেস ও বিজেপি 1
প্রদীপ সরকারই প্রার্থী, ডিফেন্স সরিয়ে নিলেন বিদ্রোহীরা , লড়াইয়ের সুবিধা হবে জানালো কংগ্রেস ও বিজেপি 2

নিজস্ব সংবাদদাতা: প্রাথমিক লড়াইটা জিতেই গেলেন খড়গপুর পৌরসভার চেয়ারম্যান প্রদীপ সরকার। খড়গপুর সদর বিধানসভা ক্ষেত্রের উপনির্বাচনে তাঁকেই প্রার্থী ঘোষনা করলেন তৃণমূলের সর্বোচ্চ নেতৃত্ব। পুরসভা পরিচালনায় তাঁর ‘সাফল্য’ই তাঁকে এই নির্বাচন লড়তে সাহায্য করবে এমনটাই বিশ্বাস তৃনমূল নেতৃত্বের। সাথে সাথেই হয়ত নেতৃত্ব এটাও মনে করেছেন যে প্রদীপের প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী খড়গপুর পৌরসভার কাউন্সিলর তথা দলের কর্মীদের মধ্যে জনপ্রিয় নেতা দেবাশিস চৌধুরীর দলীয় আনুগত্য এতটাই পরীক্ষিত যে তিনি বা তাঁর অনুগামীরা নির্বাচনে স্যাবোটেজ করবেননা যেটা দেবাশিস প্রার্থী হলে অন্যরা করতে পারত।

প্রদীপ সরকারই প্রার্থী, ডিফেন্স সরিয়ে নিলেন বিদ্রোহীরা , লড়াইয়ের সুবিধা হবে জানালো কংগ্রেস ও বিজেপি 3

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
যদি এই তত্ত্বের ভিত্তিতেই প্রদীপকে প্রার্থী করা হয়ে থাকে তবে কোথাও একটু ভুল থেকে যাওয়ারও সম্ভাবনাও প্রবল। কারন ৩৫টি ওয়ার্ডের মধ্যে বেশ কয়েকটি ওয়ার্ডের কাউন্সিলর এই নির্বাচনি লড়াই থেকে তাঁদের ডিফেন্স সরিয়ে নিচ্ছেন বলেই জানা যাচ্ছে। কিন্ত কি এই ডিফেন্স ? উত্তরে এক বিদ্রোহী কাউন্সিলরের জবাব দিয়েছেন, ”আমরা অফেন্স খেলব অর্থাৎ দলের সমর্থনে ভোট চাইব ঠিকই কিন্ত যেখানে প্রদীপ সরকারের বিরুদ্ধে কথা হবে, তাঁর পৌরবোর্ড চালানোর ব্যর্থতা নিয়ে কথা হবে, জমি পুকুর নিয়ে কথা হবে আমরা তার বিরুদ্ধে কথা বলবনা। কারন বহু প্রশ্নের উত্তর আমাদেরই জানা নেই।”

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
এক কাউন্সিলর আবার প্রদীপের নাম ঘোষনা হতেই ক্ষোভ উগরে দিয়ে বলেছেন, ‘ আমি এই নির্বাচনে মাইকই ধরছিনা।’ বলাবাহুল্য সুবক্তা এই নেতা।
বিজেপি ও কংগ্রেস দুই দলই জানিয়ে দিয়েছে প্রদীপ সরকার প্রার্থী হওয়ায় তাদের সুবিধাই হয়ে গেল। তাদের ভাষায়, ”চেয়ারম্যান’ প্রদীপকেই তারা জনতার সামনে হাজির করবেন। হিসাব চাওয়া হবে খড়গপুর শহরের অনুন্নয়নের।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
যদিও এসব কিছুকেই পাত্তা দিতে রাজি নন প্রদীপ। প্রার্থী ঘোষিত হয়েছেন শুনেই আবেগ তাড়িত পুরপিতা জানিয়েছেন, ‘আমি কৃতজ্ঞ মূখ্যমন্ত্রী ও শুভেন্দু অধিকারীর কাছে যে তাঁরা আমার প্রতি আস্থা রেখেছেন। আমি তাঁদের এই আস্থাকে মর্যাদা দিয়েই এই নির্বাচনে লড়াই করব। খড়গপুর বাসীকে বিজেপি ভাঁওতা দিয়ে এসেছে, দিলীপ ঘোষ বিধায়ক হওয়ার পর থেকে এই শহরের উন্নয়ন স্তব্ধ হয়ে গেছে। এর বিরুদ্ধেই লড়াই হবে এই নির্বাচনে।” 

Previous articleশালবনীতে দুই বাসের রেষারেষির খেসারত দিল দিদি, মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে ভাই
Next article১৪বছর আগের স্মৃতি ফিরল পাকিস্তানে, চলন্ত ট্রেনের আগুনে পুড়ে মারা গেলেন ৭৫যাত্রী