নিমপুরায় প্রচারে গিয়ে তীব্র বিক্ষোভের মুখে মেজাজ হারালেন প্রদীপ, দলীয় কোন্দল মাথা চাড়া দিল তৃণমূলে

411
Advertisement
পরিস্থিতি সামাল দিচ্ছে পুলিশ 

নিজস্ব সংবাদদাতা: সোমবার বুলবুলের প্রভাব কাটিয়ে মেঘ মুক্ত খড়গপুর। সেই উজ্জ্বল আকাশের মতই ঝকঝকে ছবিও প্রকাশ করেছিল টিম পিকে। সেই ছবি তৃণমূলের ঐক্যের ছবি। খড়গপুর চার গোষ্টিতে টুকরো হয়ে থাকা তৃণমূলের দুই গোষ্টির নেতা দেবাশিস চৌধুরী ও জহর পাল প্রদীপের হয়ে প্রচারে নেমেছেন এমন ছবি। কিন্ত বেশিক্ষন স্থায়ী হয়নি সে উজ্জ্বলতা। সোমবার নিয়মমত প্রচারে বেরিয়ে নিমপুরায় জোরালো ধাক্কা খেলেন তৃনমূল প্রার্থী প্রদীপ সরকার।

Advertisement


(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
এদিন নিমপুরা ১২নম্বর ওয়ার্ডের নয়াবস্তি এলাকায় রাস্তা সারানোর প্রতিশ্রুতি ভঙ্গের দায়ে খড়গপুর পৌরসভার চেয়ারম্যান তথা তৃনমূল প্রার্থীকে এক হাত নিয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। রীতিমত হাতে প্ল্যাকার্ড নিয়ে তাঁরা  অভিযোগ করেন লোকসভা নির্বাচনের প্রাক্কালে তাদের রাস্তাটি সারিয়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল তৃনমূল কিন্তু কথা রাখেনি। পাশাপশি পয়ঃ প্রণালীর ব্যবস্থা করেনি পুরসভা। জনতার আরও অভিযোগ বিগত ৬বছর ধরে নয়াবস্তির লেপ্রোসী কলোনী যাওয়ার মুখের এই রাস্তাটি অব্যবহারযোগ্য হয়ে রয়েছে। প্রতিটি নির্বাচন আসে শাসকদল প্রতিশ্রুতি দেয় কিন্ত কাজের কাজ হয়না।

Advertisement
Advertisement
আটক করা হচ্ছে পুলিশেরই কর্মী বলে দাবি করা ব্যক্তিকে 

এই বিক্ষোভের মুখে ধৈর্য হারিয়ে পাল্টা প্রদীপ প্রশ্ন তোলেন, আগের বিধায়ক দিলীপ ঘোষ আর আগের কাউন্সিলর নান্টু মন্ডল কি করেছিল ? এরপর জনতা আরও ক্ষেপে যায়। চিৎকার চেঁচামেচি চলতে থাকলে পুলিশ গিয়ে সরিয়ে দেয় বিক্ষোভকারীদের । জনতার অভিযোগ পুলিশ মহিলাদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেছে।


(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
স্থানীয় এক বাসিন্দা যে নিজেকে কোনও একটি থানার এ.এস.আই দাবি করে মহিলাদের প্রতি দুর্ব্যবহারের আভিযোগে সোচ্চার হয় তাকে সহ বেশ কয়েকজনকে পুলিশ আটক করে বলে আভিযোগ।  এদিকে ওই ব্যক্তিকে থানা থেকে ছাড়িয়ে নিতে এলাকায় থানাতে তৃণমূলেরই লোকজনরা হাজির হয়।গোটা ঘটনায় তৃণমূলেরই গোষ্ঠিদ্বন্দ্ব ও তীব্র ক্ষোভের প্রকাশ ঘটেছে বলেই মনে করা হচ্ছে।


(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
বিক্ষোভের পেছনে স্থানীয় তৃণমূলেরই অন্তর্দ্বন্দ্ব কাজ করেছে বলেই জানা গেছে। এই ওয়ার্ড থেকে জিতে আসা সিপিএমের সরিতা ঝা বর্তমানে তৃণমূলে এসে প্রদীপ ঘনিষ্ট। এলাকার পুরোনো তৃণমূলের লোকজনদের পাত্তা দেননা সারিতা এমনকি প্রদীপও এমনটাই তাঁদের অভিযোগ। এই সারিতাই দুর্গাপুজোয় স্থানীয় একটি পুকুরে প্রতিমা বিসর্জন দিতে বাধা দিয়েছিলেন এমনটাই অভিযোগ ছিল পুজা কমিটি ও স্থানীয় বাসিন্দাদের। পৌরসভার সংস্কার করা ওই পুকুর কেবলমাত্র ছট পুজোর জন্যই সংরক্ষিত এমনটাই নাকি বলেছিলেন সারিতা। বিষয়টি নিয়ে সরব হয় এলাকার পুরোনো তৃনমূল কর্মীরা।


(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
আবার ছটপুজোয় ওই পুকুরেই এক কিশোরের মৃত্যুকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা তৈরি হয়। তখনও ওই বাড়িতে গিয়ে প্রদীপ ক্ষোভের মুখেই পড়েন। ওই দিন রাতে ফের সারিতা ঝায়ের পার্টি অফিসে চড়াও হয় জনতা। তার পেছনেও তৃণমূলের সারিতা বিরোধি গোষ্ঠিরই হাত ছিল বলে জানা গেছে। সোমবার ওই এলাকায় প্রদীপকে ঘিরে বিক্ষোভের পেছনে সেই গোষ্টিরই হাত রয়েছে এমনটাই অনুমান করা হচ্ছে।


(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
রাজনৈতিক মহলের মত,  আদতে এই উপরের নেতাদের সামনে এনে ঐক্য দেখানোর চেষ্টা হলেও নেতাদের গোষ্টি শেকড় এতটাই গভীরে প্রোথিত যে স্থানীয় স্তরে প্রদীপের বিরুদ্ধে বিরোধিতার চোরা স্রোত তাঁরা আড়ালে বইয়ে রেখেছেন। সোমবার সেই ঘটনার একটি অংশকেই সামনে এনেছে মাত্র ।


(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
ঘটনার খবরে পেয়ে গোটা খড়গপুরেই সমালোচনা শুরুই হয়েছে জোরদার। কেউ যেমন প্রচার করতে পারে কেউ তেমনই শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ জানাতেই পারে । যদিও পুলিশ জানিয়েছে বিক্ষোভের নামে প্রচারে বাধা সৃষ্টি করাই ছিল জনতার উদ্দেশ্য।