Homeএখন খবরখড়গপুর শহরের ধর্মসভা থেকে ছিনতাই মহিলাদের হার পার্স মোবাইল, গ্রেপ্তার ৭মহিলা

খড়গপুর শহরের ধর্মসভা থেকে ছিনতাই মহিলাদের হার পার্স মোবাইল, গ্রেপ্তার ৭মহিলা

Advertisement

ধর্মসভা থেকে গ্রেপ্তার এরাই 

নিজস্ব সংবাদদাতা :কথায় বলে চোরা না শুনে ধর্মের কাহিনী। ধর্মের কাহিনী শুনতেও চোরেরা দলে দলে ভিড় জমায় ধর্মসভায় যদিও কাহিনীতে কান না দিয়ে চোখ দুটো সক্রিয় থাকে ধর্মকথা শুনতে ব্যস্ত ধর্মভীরু মানুষদের প্রতিই। খড়গপুর শহরের এমনই এক ধর্মসভা থেকে ভক্তদের গলার হার, মোবাইল, পার্স ইত্যাদি চুরির অভিযোগে মোট ৭জন মহিলাকে গ্রেপ্তার করল পুলিশ। পুলিশের কথায় এরা চোর নয় চোরনি।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
রবিবার খড়গপুর শহরের আর্য বিদ্যাপীঠ ময়দানে সারাদিন ব্যাপী ধর্মসভার আয়োজন করা হয়েছিল অনুকুল ঠাকুরের শিষ্য সেবকদের উদ্যোগে। সংগঠকদের অন্যতম সহপ্রতিঋত্বিক বিদ্যুৎ কুমার চৌধুরী জানিয়েছেন,  ”অবিভক্ত মেদিনীপুরের লক্ষাধিক ভক্ত সমবেত হয়েছিলেন এখানে। ঠাকুরের জীবন দর্শনের ওপর আলোচনা ছাড়াও মেডিক্যাল ক্যাম্প, দীক্ষা প্রদান ইত্যাদি আনুষ্ঠান হয়েছিল।”

খড়গপুরে অনুকুল ঠাকুরের ধর্মসভা 

এরই মধ্যে অন্তত ১৬জন মহিলার পার্স, মোবাইল, গলার হার ছিনতাই হয়ে যায়। দু’একজন বিষয়টি টের পাওয়ার পরেই উপস্থিত পুলিশ কর্মীদের জানান। সঙ্গে সঙ্গে পুলিশ তৎপর হয়ে ওঠে। পুলিশ গিরি ময়দান রেল স্টেশনে হানা দিয়ে গ্রেপ্তার করে এক মহিলাকে। তাকে নিয়েই সভায় তল্লাশি চালিয়ে গ্রেপ্তার করা হয় আরও ৬ মহিলাকে।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
পুলিশের অনুমান আরও কয়েকজন ছিল যারা পালিয়েছে। ধৃতদের কাছ থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী এরা হল লক্ষী রায়, রুকু রায়, সেরসা গোয়ালা, চিনি যাদব, দুর্গা শ, সোনালী কুমারী , রাজেশ্বরী গোয়ালা। এরা কেউ পুর্ব মেদিনীপুর , কেউ হুগলি কেউ আবার বর্ধমানের বাসিন্দা বলে পরিচয় দিচ্ছে। যদিও ৪৫ থেকে ৬০বছর বয়সী এই মহিলাদের একই এলাকার বাসিন্দা বলে পুলিশের প্রাথমিক অনুমান। অবাংলাভাষী এই মহিলারা সম্ভবত হুগলি জেলার ব্যাণ্ডেল এলাকার বাসিন্দা।

 বিজ্ঞাপন দিতে যোগাযোগ করুন 7908324920

খড়গপুর পুলিশ জানিয়েছে এদের চুরি বা ছিনতাইয়ের কায়দাটা অদ্ভুত। কোনও একজন মহিলাকে টার্গেট করার পর এরা ধর্মকথা শোনার নাম করে তার পাশে ভিড় জমাত তারপর একটা চাপ তৈরি করে তার মনঃসংযোগ অন্যদিকে নিয়ে গিয়ে লক্ষ্য বস্তুটি তার কাছ থেকে ছিনিয়ে নিত। এই কাজ করার সময়েই দুজন মহিলা বুঝতে পারেন যে তাঁদের গলার হার নেই। সঙ্গে সঙ্গেই পুলিশকে জানান তাঁরা। এরপরই ধিরে ধিরে অনেক মহিলাই বুঝতে পারেন কারও পার্স কারও মোবাইল ছিনতাই হয়েছে।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
পুলিশ অত্যন্ত দ্রুততার সাথে কাজ শুরু করে দেওয়ায় ওই মহিলাদের ধরা সম্ভব হয়েছে। কয়েকটি হার পাওয়া গেছে যদিও সেগুলি সোনার জল ধরানো ছিল বলেই জানা গেছে। ধৃতদের সোমবার আদালতে পেশ করে নিজেদের হেফাজতে নেওয়ার আবেদন জানিয়েছে। 

Advertisement

Advertisement

RELATED ARTICLES

Most Popular