কিনারা হয়নি খড়গপুর খুনের, অর্জুনের জন্য হয়ে গেল বাজার বনধ! ধিক্কার বিজেপির

1625
কিনারা হয়নি খড়গপুর খুনের, অর্জুনের জন্য হয়ে গেল বাজার বনধ! ধিক্কার বিজেপির 1

নিজস্ব সংবাদদাতা: ২৪ঘন্টা পেরিয়ে গেলেও কিনারা হলনা ১লা জানুয়ারির সন্ধ্যায় খড়গপুর শহরের যুবক অর্জুন সোনকার খুনের। কিছু কিছু অস্পষ্ট সূত্র ছাড়া এখনও তেমন কিছুই মেলেনি যা থেকে এই খুনের মূল রহস্যের কাছাকাছি পৌঁছানো যায়। শুক্রবার রাত থেকে শনিবার অবধি দফায় দফায় আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ চালানো হয়েছে ৫জনকে যাঁদের মধ্যে মহিলাও ছিল বলে জানা গিয়েছে কিন্তু খুব বেশি দুর পৌঁছানো যায়নি। মহিলা জনিত ঘটনা নাকি রাজনৈতিক শত্রুতা দু’তরফই ঘেঁটে ফেলা হয়েছে কিন্তু না, এক্ষেত্রেও এখনও অবধি মেলেনি কিছুই।

অর্জুনের রাজনৈতিক পরিচিত স্পষ্ট করে দিয়েছিলেন তৃনমূলের পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা সভাপতি অজিত মাইতি। বলেছিলেন, অর্জুন আমাদের দলীয় কর্মী ছিলেন। অর্জুনকে সমর্থক বলেছিলেন দলের জেলা তথা খড়গপুর শহরের তৃনমূল নেতা দেবাশিস চৌধুরী। শনিবার ময়নাতদন্তের আগে খড়গপুর মহকুমা হাসপাতালে উপস্থিত ছিলেন খড়গপুর শহর বিধায়ক প্রদীপ সরকার। শুধু তাই নয় কার্যত তৃনমূলের উদ্যোগেই শনিবার গোলবাজারে বনধ পালিত হয়ে গেল!

কিনারা হয়নি খড়গপুর খুনের, অর্জুনের জন্য হয়ে গেল বাজার বনধ! ধিক্কার বিজেপির 2

যদিও রাজনৈতিক পরিচয় ছাড়িয়ে শহরে স্পষ্ট হয়ে গেছে অর্জুনের সমাজবিরোধী যোগও।
চার বছর আগে খড়গপুর শহরেই এক শ্যুট আউটের খলনায়ক ছিল অর্জুন। শুধু তাই নয় খড়গপুর শহরের অপরাধ জগতের অন্যতম উৎস সাট্টা আর জুয়াতেও জড়িয়ে ছিলেন অর্জুন। শহরের বিভিন্ন এলাকায় জমি কেনা বেচার ওপর নিয়ন্ত্রন, দালালিতেও সিদ্ধহস্ত ছিলেন অর্জুন আর সেই সূত্রেই অপরাধের দুনিয়ায় তার অবাধ যাতায়ত ছিল। খড়গপুরের নিহত মাফিয়া ডন শ্রীনু নাইডুর একদা ঘনিষ্ট অর্জুন পরবর্তীকালে জেলবন্দি মাফিয়া ডন রামবাবুরর সাকরেদরও ঘনিষ্ট হয়ে পড়ে। পুলিশের নজরে আগাগোড়া সমাজ বিরোধী অর্জুন সোনকারের জন্য বাজার বনধে রীতিমত বিস্মিত মানুষ জন।

বিজেপির রাজ্য কমিটির অন্যতম সম্পাদক তথা খড়গপুর শহরের প্রবীণ নেতৃত্ব তুষার মুখার্জি বলেন, ‘ সমাজবিরোধীদের নিজেদের মধ্যে লড়াইয়ে মৃত্যু হয়েছে একজনের তারজন্য বাজার বনধ! সমর্থন তৃনমূলের আর নিষ্ক্রিয় পুলিশ। কারনটা আর কিছুই না, নির্বাচনের আগে সমাজ বিরোধীদের পাশে দাঁড়ানো যাতে আগামী বিধানসভা নির্বাচনে ফের কাজে লাগানো যায়। কিন্তু মানুষ একে ভালো চোখে দেখছেননা, এর জবাব পাবে তৃনমূল।”

পুলিশ অবশ্য হাল ছাড়েনি, সম্ভাব্য সকল সূত্র থেকেই খোঁজ চলছে অর্জুনের খুনির। বিজেপির এক শক্তি প্রমুখ, অর্জুনের হাতেই চারবছর আগে আহত হওয়া রাজেশ, অর্জুনের সঙ্গে পরিচিত মহিলা সহ বেশ কয়েকজনকে জেরা করেছে পুলিশ কিন্তু এখনও তেমন কিছুই মেলেনি বলেই জানা গেছে।

Previous articleবছরের শুরুতেই ফের বাংলায় আসছেন নাড্ডা! রোড-শো সেই বীরভূমেই
Next articleপ্রাচীর ছাড়িয়ে ৬৭বছর ! জঙ্গলমহলের অভিভাবক মৌপাল দেশপ্রাণ বিদ্যাপীঠের প্রাতিষ্ঠানিক সঙ্গীত প্রকাশ