Homeএখন খবররেড ভলেন্টিয়ার উদ্যোগে আরও একটি স্বাস্থ্য পরিষেবা কেন্দ্র চালু হল খড়গপুর শহরে

রেড ভলেন্টিয়ার উদ্যোগে আরও একটি স্বাস্থ্য পরিষেবা কেন্দ্র চালু হল খড়গপুর শহরে

Red Volunteers launched another health care center in Kharagpur city. The service center was launched at Inda Kamala Cabin. A similar health service center has already been set up at Prembazar, south of Kharagpur city. Across the city, Red Volunteers responded to the call of the Corona victims. This team of Red Soldiers has set a shining example in various roles such as taking the human being to the hospital from the oxygen cylinder. The city of Kharagpur mustered the courage to fight against another such initiative by the Red Volunteers. Especially when there is a risk of a third wave of corona in front. Free blood pressure measurement, thermal scanning, nebulizer service, blood sugar measurement, pulse oximeter etc. services will be provided here. There are also all the corona related advice and arrangements to reach the hospital if needed. Multiple physicians are involved with this service who will provide emergency advice.

Advertisement

নিজস্ব সংবাদদাতা: খড়গপুর শহরে রেড ভলেন্টিয়ারদের উদ্যোগে আরও একটি জনস্বাস্থ্য পরিষেবা কেন্দ্র চালু হয়ে গেল খড়গপুর শহরের ইন্দাতে। দু’বলে দুঘন্টা করে স্থানীয় মানুষদের জনস্বাস্থ্য পরিষেবার পাশাপাশি করোনা সংক্রান্ত যাবতীয় পরামর্শ দেওয়া হবে এই পরিষেবা কেন্দ্রটি থেকে। সকাল ১০টা থেকে ১২টা এবং সন্ধ্যা ৬টা থেকে রাত ৮টা অবধি যে-কেউ এখানে গিয়ে স্বাস্থ্য সম্পর্কিত যাবতীয় পরামর্শ নিতে পারেন।

রবিবার সকালে সিপিএম খড়্গপুর শহর পূর্ব এরিয়া কমিটির রেড ভলেন্টিয়ারের উদ্যোগে ইন্দা, কমলা কেবিনে এই জনস্বাস্থ্য পরিষেবা কেন্দ্র চালু হয়েছে। যার উদ্বোধন করতে এসেছিলেন  মেদিনীপুর শহরের প্রখ্যাত শিশু চিকিৎসক ডাঃ বি বি মন্ডল। উপস্থিত ছিলেন: ডা: ধরিত্রী গোস্বামী, ডা: জয়দেব মণ্ডল, ডা: বর্ষা মুখার্জি, ডা:সৌগত সান্যাল, ডা: প্রদীপ শামুই প্রমুখ একগুচ্ছ চিকিৎসক। ছিলেন স্টুডেন্টস হেলথ হোমের সংগঠক ও সিপিএমের পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য বিজয় পাল সহ অন্যান্য নেতৃত্ব।

সংগঠকরা জানিয়েছেন, করোনা এবং লকডাউন বিপর্যস্ত করে দিয়েছে মানুষের অর্থনৈতিক অবস্থার। বিশেষ করে গরিব খেটে খাওয়া, দিন আনি দিন খাই মানুষের অবস্থা আজ সঙ্কটে। ন্যূনতম চিকিৎসা করানোর মত সম্বল তাঁদের নেই। অন্যদিকে অনেক মানুষ বিভ্রান্ত হচ্ছেন, করোনা হয়েছে কিনা, হলে কোথায় যাওয়া যাবে, কোথায় মিলবে অক্সিজেন, কোন হাসপাতালে শয্যা পাওয়া যাবে ইত্যাদি নানা প্রশ্নে। এই সমস্ত মানুষকে সঠিক পরামর্শ ও পরিষেবা দেওয়াই এই জনস্বাস্থ্য পরিষেবা কেন্দ্রের লক্ষ্য। যে কোনও মানুষ প্রয়োজনে নির্দ্বিধায় এখানে আসতে পারেন।

এখানে বিনামূল্যে ব্লাড প্রেসার মাপা, থার্মাল স্ক্যানিং, নেবুলাইজার পরিষেবা, ব্লাডসুগার পরিমাপ, পালস অক্সিমিটার ইত্যাদি পরিষেবা দেওয়া হবে। এছাড়াও করোনা সংক্রান্ত যাবতীয় পরামর্শ এবং প্রয়োজনে হাসপাতাল অবধি পৌঁছানোর ব্যবস্থা থাকছে। একাধিক চিকিৎসক জড়িত আছেন এই পরিষেবার সঙ্গে যাঁরা আপৎকালীন অবস্থায় পরামর্শ দেবেন। সংগঠকরা জানিয়েছেন, বহু ব্যক্তি এবং সংগঠন এগিয়ে এসেছেন এই জনস্বাস্থ্য পরিষেবা চালু করতে। অর্থ এবং অন্যান্যভাবে সাহায্য করেছেন তাঁরা। তাঁদের ধন্যবাদ জ্ঞাপন করা হয়।

ইতিপূর্বে খড়গপুর শহরের দক্ষিণে প্রেমবাজারে এরকমই একটি স্বাস্থ্য পরিষেবা কেন্দ্র চালু হয়েছে। তাই ইন্দার এই জনস্বাস্থ্য কেন্দ্রটিকে দুটি পরিষেবা কেন্দ্র চালু হল। গোটা শহর জুড়েই করোনা কালে করোনা আক্রান্তদের আহ্বানে সাড়া দিয়ে তাঁদের কাছে পৌঁছে গিয়েছেন রেড ভলেন্টিয়াররা। অক্সিজেন সিলিন্ডার থেকে আর্তমানুষকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া ইত্যাদি নানা ভূমিকায় উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন এই লাল সৈনিকের দল। সারা রাজ্য জুড়ে ৮০ হাজার রেড ভলেন্টিয়ার কাজ করছেন রাত-দিন। শুধু একটা ফোনেই পৌঁছে যাচ্ছেন মানুষের পাশে। সেই রেড ভলেন্টিয়ারদের উদ্যোগে এরকম আরও একটি উদ্যোগ করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সাহস জোগাল খড়গপুর শহরকে। বিশেষ করে যখন সামনে রয়েছে করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কা।

Advertisement

Advertisement

RELATED ARTICLES

Most Popular