পুজোর মুখেই আক্রান্ত Town I.C রাজা মুখার্জি, চাপে খড়গপুর পুলিশ! সাদাতপুর ফাঁড়িতেও করোনা বিস্ফোরণ

2519
পুজোর মুখেই আক্রান্ত Town I.C রাজা মুখার্জি, চাপে খড়গপুর পুলিশ! সাদাতপুর ফাঁড়িতেও করোনা বিস্ফোরণ 1

নিজস্ব সংবাদদাতা: দীর্ঘ আটমাসের অক্লান্ত লড়াই শেষে করোনা আক্রান্ত হলেন শহরের প্রথম শ্রেণীর করোনা যোদ্ধা খড়গপুর শহর পুলিশের ভারপ্রাপ্ত আধিকারিক তথা খড়গপুর টাউন থানার অফিসার ইনচার্জ (IC)রাজা মুখার্জি। পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা স্বাস্থ্যদপ্তরের ১৮ তারিখের আরটি/পিসিআর রিপোর্ট তাঁর করোনা সংক্রমন সুনিশ্চিত করা হয়েছে। শহর জুড়ে উৎসবের আমেজ আর পুজোর আয়োজনের মধ্যেই IC রাজা মুখার্জির সংক্রমন নিশ্চিত ভাবেই পুলিশকে চাপে ফেলে দেবে কারন উৎসবের সময়ে শহরের আইন শৃংখলা রক্ষায় রাজা একজন দক্ষ পুলিশ আধিকারিক হিসাবেই পরিচিত।

কয়েকদিন ধরেই সামান্য গলা ব্যথা ও হাঁচি হচ্ছিল তাঁর। কয়েক দিন অতিবাহিত হওয়ার পরই উপসর্গের উপশম না হওয়ায় ১৭তারিখ খড়গপুর মহকুমা হাসপাতালে নমুনা দিয়েছিলেন। ১৮তারিখ পজিটিভ আসে তাঁর। তবে রাজা মুখার্জির খুবই ক্ষীণ উপসর্গ থাকায় এই মুহূর্তে আইসোলেশনে বা নিভৃতবাসে রয়েছেন তিনি। জানা গেছে খড়গপুর টাউন থানার আবাসনে পরিবার থাকায় অন্য একটি জায়গায় রয়েছেন তিনি।

পুজোর মুখেই আক্রান্ত Town I.C রাজা মুখার্জি, চাপে খড়গপুর পুলিশ! সাদাতপুর ফাঁড়িতেও করোনা বিস্ফোরণ 2

করোনা কালের বিগত ৮মাস খড়গপুর শহরে যে কয়েকজন দক্ষ আধিকারিক প্রায় নিদ্রাহীন পরিশ্রম করে গিয়েছেন বা এখনও যাচ্ছেন তাঁদের অন্যতম তিনি। করোনার শুরু এবং বাড়বাড়ন্ত সময়ে শহরের করোনা টিমকে কার্যত তাঁকেই সামলাতে হয়েছে। আক্রান্তকে হাসপাতালে পৌঁছানোর ব্যবস্থা, কন্টেনমেন্ট জোন বানানো এবং পাশাপাশি লকডাউনে শহরের একটি বড় অংশের কাছে খাদ্য কিংবা খাদ্য সামগ্রী পৌঁছানো, লকডাউন বলবৎ করা ইত্যাদি নানা কর্মকাণ্ডের পরিকল্পনা করার পাশাপাশি মধ্য রাতে তাঁর কাজ ছিল জেলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা করোনা আক্রান্ত অবস্থায় মৃতদের সৎকারের ব্যবস্থা করা। রাত ১২টা থেকে মন্দিরতলার শ্মশানে থাকতেন দিনের সমস্ত সৎকার শেষ না হওয়া অবধি। এ হেন মানুষ প্রায় লড়াইয়ের শেষ পর্যায়ে আক্রান্ত হওয়ায় তাই শহরবাসীর মধ্যে তাঁর জন্য সমবেদনা কাজ করছে। শহর প্রার্থনা করছে তাঁর সুস্থতা কামনায়।

আরও পড়ুন -  লিটিল ম্যাগাজিনের বাংলার গর্ব সৃজন সম্পাদক লক্ষন কর্মকারকে সম্মাননা জানিয়ে সম্মানিত কোরাস

রাজা মুখার্জির পাশাপাশি এদিন করোনা বিস্ফোরণ ঘটেছে খড়গপুর গ্রামীন থানার অন্তর্গত সাদাতপুর ফাঁড়িতে। এখানে একই সঙ্গে ৪ জন পুলিশ কর্মী আক্রান্ত হয়েছেন। কয়েকদিন আগেই ফাঁড়িতে আক্রান্ত হয়েছিলেন ২ পুলিশ কর্মী। এদিনের ঘটনা মিলিয়ে এই কদিনে হাফডজন আক্রান্ত হলেন সেখানে। রাজা মুখার্জি ও এই ৪ জন পুলিশকর্মীকে বাদ দিয়ে ১৮ ই অক্টোবরের।রিপোর্টে খড়গপুর শহর ও শহরতলিতে আক্রান্ত হয়েছেন আরও ১৫ জন। যার মধ্যে সুভাষপল্লী ও ভবানীপুর এলাকায় আক্রান্ত ৪ জন। সুভাষপল্লী এলাকায় পৃথক ভাবে আক্রান্ত ৫৪বছরের প্রৌঢ়া ও ২০বছরের যুবতী। ভবানীপুরে ৬২ ও ৭৩ বছরের দুই বৃদ্ধ আক্রান্ত হয়েছেন।

আরও পড়ুন -  শুভ জন্মদিন খড়গপুর টাউন থানার নতুন ভবনের, নস্টালজিয়ার ব্রিটিশ কলোনি

শহরের ইন্দা বামুনপাড়া (১৭, কিশোর), মথুরাকাটি (৫৫, মহিলা), রাজগ্রাম (৪৭, পুরুষ), কৌশল্যা (৩৮, যুবক) ও তলঝুলিতে ৫৫ বছরের ব্যক্তি আক্রান্ত। এছাড়াও ঝাপেটাপুর এলাকায় এক ২৮ বছরের যুবক ও ঝুলি সোনামূখী এলাকায় ৩১ বছরের রেলকর্মী এবং রেল আবাসনের বাসিন্দা ২৫,বছরের গৃহবধূ আক্রান্ত। শহরের বাইরে সালুয়া ইএফআর নতুন বিল্ডিংয়ে ৪৬ বছরের জওয়ান আক্রান্ত হয়েছেন।