করোনা প্রকোপে অর্ধ শতাধিক খড়গপুর-মেদিনীপুরেই, দাসপুরে ফের বাড়ল আক্রান্তের সংখ্যা, ডেবরা সবংয়ে সংক্রমনের সাতকাহন

1714
Advertisement

নিজস্ব সংবাদদাতা: বৃহস্পতিবার (২২শে অক্টোবর ) জেলা জুড়ে আক্রান্ত হয়েছেন ১৩৮ জন। আর এর মধ্যে খড়গপুর মেদিনীপুর শহরেই আক্রান্তের সংখ্যা সর্বাধিক। প্রায় অর্ধশত মানুষ এই দুই শহরেই আক্রান্ত। তারপরেই রয়েছে দাসপুর। এদিনের রিপোর্ট মোতাবেক ডেবরা, সবং সহ মফস্বলের শহর গুলিতেও ফের করোনার অস্থিত্ব উঁকি মারতে শুরু করেছে।

Advertisement

মেদিনীপুর শহরে আক্রান্ত হয়েছে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা পরিষদের কর্মাধ্যক্ষ রমাপ্রসাদ গিরি। সামান্য উপসর্গ যুক্ত গিরি বর্তমানে আইসোলেশনেই রয়েছেন। আক্রান্ত হয়েছেন শহরের প্রখ্যাত স্ত্রী রোগ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ডঃ দীপক গিরি। শহরের নানুরচকে ৬৭ ও ৬০ বছরের দম্পত্তি আক্রান্ত হয়েছেন। মানিকপুরে আক্রান্ত একই পরিবারের দুই যুবক ভাই। সিপাহী বাজারে একই পরিবারের ৬০ এবং ৩৫বছরের দুই মহিলা আক্রান্ত। ঠিকানা উল্লেখ করা হয়নি এমন ৬০ ও ৫০বছরের দম্পত্তি আক্রান্ত হয়েছেন।

Advertisement
Advertisement

শহরের আবাস ও ফড়িং ডাঙায় ৬৬ বছরের বৃদ্ধা ও ৫৫ বছরের প্রৌঢ় আক্রান্ত হয়েছেন। আবাস এলাকায় আরও এক ২০বছরের যুবক আক্রান্ত। কুইকোটা এলাকায় ২৬ বছরের যুবক আক্রান্ত। রবীন্দ্রনগরে ৪০ বছরের ব্যক্তি সংক্রমিত। বিধান নগরে ৪৩ এবং বলভপুরে ৫৮ বছরের ব্যক্তি আক্রান্ত। অশোকনগরে ২৫ বছরের যুবক, পুলিশ লাইনে ৪৫ বছরের ব্যক্তি আক্রান্ত হয়েছেন। তাঁতিগেড়িয়া ও ধর্মায় আক্রান্ত দুই প্রৌঢ়েরই বয়স ৫৭ বছর। শহরের মধ্যে আক্রান্ত ৩৬ বছরের গৃহবধূ ও ২৯বছরের যুবকের কোনও ঠিকানা উল্লেখ নেই। শহরের বাইরে কামারাড়া, বালিপাতাতে ৩৪ বছরের যুবক ও ১৯ বছরের তরুনী আক্রান্ত হয়েছেন।

খড়গপুর শহর ও শহর থেকে দুরে এদিন আক্রান্ত হয়েছেন ২৬জন। সুভাষপল্লীতে দুই ৩০ এবং ২৯ বছরের ভাই ছাড়াও ৪০ ও ৩৫ বছরের দুই যুবক আক্রান্ত হয়েছেন। তালবাগিচায় আক্রান্ত ৩০ বছরের যুবক ও ৭৬ বছরের বৃদ্ধা। ঝুলি সোনামুখীতে ৩৪ বছরের গৃহবধূ ও ২২বছরের যুবক আক্রান্ত হয়েছেন। মালঞ্চ এবং মালঞ্চ সুকান্তপল্লীতে ৬৯ ও ৭৬ বছরের দুই বৃদ্ধ আক্রান্ত হয়েছেন। রেলের আবাসনে বসবাস করেন এমন ৪৬ ও ৩৫ বছরের দুই পুরুষ ব্যক্তি আক্রান্ত। ঝাপেটাপুর এলাকায় ৪২ ও ৪৬ বছরের দুই পুরুষ ব্যক্তি আক্রান্ত হয়েছেন। শ্রীকৃষ্ণপুরে একই পরিবারের ৬৯ ও ৪৭ বছরের দুই মহিলা আক্রান্ত।

একক সংক্রমন হয়েছে এমন এলাকার ডিভিসি বাজারে আক্রান্ত ৩২ বছরের যুবতী। ইন্দায় ৩৭ বছর এবং নিউ টাউনে ৪২ বছরের দুই পুরুষ আক্রান্ত। প্রেমবাজারে ৩৬ বছরের যুবক, ছোট ট্যাংরায় ৬৩ বছরের বৃদ্ধ, উত্তর ভবানীপুরে ৪৮ বছরের ব্যক্তি এবং মিরপুরে ৫৫ বছরের ব্যক্তি আক্রান্ত। হিজলি গ্রামীন হাসপাতালের ২৯ বছরের চিকিৎসাকর্মী আক্রান্ত হয়েছেন।শহর থেকে দুরে গ্রামীন খড়গপুরের বাড় গোকুলপুরে ৪৬ বছরের পুরুষ, গঙ্গারামপুর চাঙ্গুয়ালে ৩৯ বছরের এবং হরিয়াতাড়া গ্রামে ৩৩ বছরের যুবক আক্রান্ত হয়েছেন।

দাসপুর ১ ব্লকের জয়কৃষ্ণপুরে একই পরিবারে স্বামী(৪৮) স্ত্রী(৩৮) পুত্র-কন্যা (দুজনেই ১৭)এবং বয়স্কা(৮৫) আক্রান্ত হয়েছেন। দাসপুরে আক্রান্ত স্বামী (৪০),স্ত্রী(৩৫) ও কন্যা (১৭)। রাধানগর (৩৪, মহিলা), কিসমৎ কলোরা(৩৪, পুং), মামুদপুর (৩২,পুং) , পাইকান দুর্যোধন (৪৮, পুং) ,তাতারপুর (৪৯, পুং), রাজনগর (৩২, মহিলা) এবং রামদাসপুরে ৫৫ বছরে মহিলা আক্রান্ত হয়েছে। ঘাটালের ইড়পালাতে ৬০ বছরের বৃদ্ধ ও সিংহডাঙ্গা মোহনপুরে ৪৬ ও ৩৪ বছরের দম্পত্তি আক্রান্ত।
দাসপুর ২ ব্লকের গোছাতি এলাকায় ৫১, ৩০ ও ৩২ বছরের পুরুষ ব্যক্তি এবং ৫৩ বছরের মহিলা আক্রান্ত। কেলাগোদা (৩৬, পুং), ফরিদপুর (৬৭, পুং), পলাশপাই (৫৪,পুং) ও খেপুতে ৪৩ বছরের পুরুষ ব্যক্তি আক্রান্ত হয়েছেন। চন্দ্রকোনা থানার মহেশপুরে আক্রান্ত ৩৪ বছরের যুবক।

জেলার ডেবরা থানার নয়হাটি (৪০, মহিলা), নয়াপাড়া (৪৪, পুং), লোয়াদা (৩২,পুং), বালিচক(৫৩, পুং) ও ঢেঙ্গায় ৩২ বছরের যুবক আক্রান্ত। সবংয়ের রুইনান ৫৫বছরের মহিলা ও কেরুর গ্রামে ৫৬ বছরের পুরুষ আক্রান্ত। পানপাড়াতে ২৯ বছরের যুবতীর দেহে করোনার অস্তিত্ব পাওয়া গেছে।