মেদিনীপুরে ঝাঁপালো করোনা! খড়গপুর SDPO আরটি/পিসিআরেও পজিটিভ, দাসপুর,ঘাটালে বহাল সংক্রমন, ডেবরা, সবং, দাঁতন, বেলদাতেও উঁকি ঝুঁকি

2593
Advertisement

দ্য খড়গপুর পোষ্ট ব্যুরো : পুজো কাটতেই ফের স্বমহিমায় ফিরছে করোনা সংক্রমন। আর তারই প্রমাণ মিলেছে মেদিনীপুর শহরে। পরীক্ষার পরিমান বাড়তেই বাড়ছে সংক্রমিত মানুষের সংখ্যা। অক্টোবরের।শেষ দুদিনেই মেদিনীপুর শহর ও শহরতলিতে আক্রান্তের সংখ্যা অর্ধশত ছাড়িয়ে গেছে। ৩০ এবং ৩১ তারিখের আরটি/পিসিআর রিপোর্ট বলছে মেদিনীপুর শহরে কার্যত গিজগিজ করছে করোনা। সংক্রমনের কবলে খোদ মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজের মহিলা ওয়ার্ড যেখানে একই দিনে ২৬, ৪৫, ৫৩ ও ৭০ বছরের চারজন রোগিনীর শরীরে করোনার জীবাণু মিলেছে। এই দুদিনে অশোকনগর (৬০মহিলা, ৫৮ পুং),শরৎপল্লী (৫৩ পুং, ৪৬ মহিলা), নেপালি পাড়া (৪৩ মহিলা, ১৮পুং), কুইকোটা (৪৮ ও ১৫ মহিলা), টাউন কলোনি (১১ ও ৮ পুং) এবং নতুন বাজারে (৪২ পুং, ৭৫মহিলা) পরিবারে জোড়ায় জোড়ায় আক্রান্ত হয়েছেন। এছাড়া শহরে সুস্পষ্ট ঠিকানা উল্লেখ করা হয়নি এমন একটি পরিবারের ৩জন (৫৪ ও ৫ মহিলা এবং ৭০ পুং ) ও অপর একটি পরিবারে ৩৯ বছরের মহিলা ও ১২ বছরের বালক আক্রান্ত হয়েছেন।

Advertisement

পরিবারের একক সদস্য আক্রান্ত এমন রাঙামাটি (২৪ পুং), তাঁতিগেড়িয়া (৩৮ পুং), বিধাননগর (২৮ মহিলা), দেশবন্ধুনগর (২৯পুং), কুইকোটা (৩২ মহিলা), কুইকোটা (৪৯ পুং), আবাস (১০ মহিলা), কেরানিতলা (৬০ মহিলা),আমতলা (৬০ পুং),রবীন্দ্রনগর (৬৩ পুং), বসুধা আ্যপার্টমেন্ট (৩০ মহিলা), শরৎপল্লী (৬৫ মহিলা), ক্ষুদিরামনগর (৪৬ পুং), শেখপুরা (২৬ মহিলা), শেখপুরা (৩১ পুং), সুজাগঞ্জ পালবাড়ি (২৬ পুং), নজরগঞ্জ (৫১ পুং )। এছাড়াও ঠিকানা উল্লেখিত হয়নি এমন আক্রান্তের সংখ্যা ১০ জন যাঁদের মধ্যে ৫ জন করে পুরুষ ও মহিলা রয়েছেন। এঁদের বয়স ১৯ থেকে ৬২ বছরের মধ্যে। শহরের বাইরে বেঁউচা (৫০ পুং), ঢেকপুরা (২৫ মহিলা), গুড়গুড়িপালের জামসোল নগর (২৬ পুং), গোটগেড়া (৫৮ পুং) আক্রান্ত।
,
মেদিনীপুর সদর মহকুমায় গত ২দিনে গড়বেতার দুর্লভগঞ্জে একই পরিবারের ৭৮ ও ৭১ বছরের বৃদ্ধ দম্পত্তি এবং তাঁদের ৪০ বছরের পুত্র ও ৩৬ বছরের পুত্রবধূ আক্রান্ত। অন্যদিকে সাতবাঁকুড়ায় একই পরিবারের ৩৫ ও ৩১ বছরের ২মহিলা আক্রান্ত। কেশপুরে আক্রান্ত ৪৬বছরের যুবক আক্রান্ত।
এই দুদিনে অর্থাৎ শুক্র এবং শনিনারের আরটি/পিসিআর রিপোর্ট মোতাবেক পুনরায় পজিটিভ এসেছে খড়গপুর sdpo সুকোমল কান্তি দাসের। ২৯ তারিখ আ্যন্টিজেন পরীক্ষায় প্রথম পজিটিভ আসে তাঁর। ওই দিনই তাঁর আরটি/পিসিআর পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্ৰহ করা হয়। সেই নমুনাই পজিটিভ এসেছে এদিন। বর্তমানে আরএন টেগোর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন তিনি। বর্তমানে সুস্থ রয়েছেন তিনি। এই দুদিনে ৩০জন আক্রান্ত হয়েছেন খড়গপুর শহর ও সংলগ্ন এলাকায়। যদিও সিংহভাগ আক্রান্তই শহরের। আর এর মধ্যে একটা বড় অংশই সংক্রমিত হয়েছেন IIT-Kharagpur হাসপাতালে সংগৃহিত নমুনা থেকে। সেই সংখ্যাটি ৬জন।

Advertisement
Advertisement

IIT সূত্রে আক্রান্তরা মিরপুর বুলবুল চটি (৫৬ এবং ২৪ পুং), তালবাগিচা রথতলা (৪৫ পুং), চিত্তরঞ্জননগর (২৯ মহিলা) এবং বাকি ৪৪ ও ৫৬ বছরের দুই মহিলা IIT Kharagpur ক্যাম্পাসেরই বাসিন্দা। এই দু’দিনে রেলসূত্রে আক্রান্ত মাত্র ৫জন যাঁরা হলেন রেল আবাসনের চাঁদমারি এলাকায় ২জন(২১ ও ৫২ পুং), সাউথ সাইড (৬২ মহিলা)। বাকি ২জন ভবানীপুর (৪৫ মহিলা) ও ছোট ট্যাংরা (২৮ যুবক)।
খড়গপুর মহকুমা হাসপাতালে এই দু’দিনের সংগৃহিত নমুনায় পজিটিভ এসেছে তালবাগিচা (৬১ এবং ৫০ পুং), মালঞ্চ (৬৭ ও ৬০ দম্পত্তি), কৌশল্যা (৩৫ যুবক), ইন্দা, রামকৃষ্ণপল্লী(৩১ পুং), ভবানীপুর (৫৩ মহিলা), ভগবানপুর (৫৫ পুং), ঝাপেটাপুর (২৬ পুং), বড়আয়মা (২৭ পুং), নিমপুরা (৪৬ পুং), গোপালনগর (৬৫ পুং)। শহরের বাইরে গ্রামীন খড়গপুর এলাকার বড়কলায় ৪৫বছরের পুরুষ, নানকার এলাকায় ২১ বছরের যুবক, যফলায় ৩২ বছরের যুবক, ডিমৌলিতে ৩৫ বছরের গৃহবধূ এবং নোশ্যুটিং এলাকায় ৮৩ বছরের বৃদ্ধ আক্রান্ত হয়েছেন।

খড়গপুর মহকুমার সবং এলাকার দেভোগের বাদলপুরে একই পরিবারের ৩জন মা বাবা মেয়ে আক্রান্ত। এঁদের বয়স যথাক্রমে ৪৯, ৪২ ও ১২ বছর। অন্যদিকে কসবা সবংয়ে আক্রান্ত ৫৯ ও ৫০ বছরের দম্পত্তি। ডেবরা এলাকায় ৫২ ও ৬৮ বছরের ২জন পুরুষ ব্যক্তি আক্রান্ত। খন্ডরুইয়ের লালপুর সাউরিতে মাত্র ১বছরের শিশুপুত্র এবং কেশিয়াড়ির মির্জাপুরে ৩৫বছরের যুবক আক্রান্ত। বেলদার মনোহরপুরে ৩৯ বছরের যুবক নারায়নগড়ের বহুরুপাতে ৬১ এবং কুলিতে ৭০ বছরের বৃদ্ধ আক্রান্ত হয়েছেন। বেলদার দেউলির একই পরিবারে ৪৭বছরের গৃহবধূ ও ১১বছরের বালক আক্রান্ত হয়েছে। দাঁতনের মনোহরপুরে ২৯ বছরের যুবক, ২৪ বছরের যুবতী আক্রান্ত হয়েছেন।

এবার ঘাটাল মহকুমার গত ৪৮ ঘন্টার আরটি/পিসিআর রিপোর্ট। এই রিপোর্ট মোতাবেক চন্দ্রকোনায় ২৭ বছরের যুবক ও ২০বছরের যুবতী আক্রান্ত। ক্ষীরপাইতে ৪ এবং ২নম্বর ওয়ার্ডে ২২বছরের যুবতী ও ৪৯বছরের প্রৌঢ়া আক্রান্ত। মৌলায় আক্রান্ত ২৫ ও ২৯ বছরের দুই যুবতী। দাসপুরের নিজামপুরে ৫১ ও ৪১ বছরের দম্পতি। রাধাকান্তপুর বাসুদেবপুরে একই পরিবারের ৪৫ ও ১৫ দুজন পুরুষ ব্যক্তি আক্রান্ত। বাসুদেবপুরে আক্রান্ত ৩২ বছরের গৃহবধূ। দাসপুর নাড়াজলের রামদাসপুরে একই পরিবারের বাবা (৩৭), মা (৩৫) ও মেয়ে (১৮) আক্রান্ত। শ্যামসুন্দরপুর (৬৬ পুং), গোবিন্দপুর (৩৪ পুং), মহব্বতপুর (৫৫পুং), দাসপুর (৫২ ও ৬৫ পুং), বড়নন্দী অজবনগর (৩৭ পুং) এবং চাঁদপুর শংকরপুরে একই পরিবারের ৪৭ বছরের পিতা ও ১৭বছরের কিশোরী আক্রান্ত হয়েছেন। গোছাতিতে আক্রান্ত ৫৩ বছরের মহিলা।

ঘাটালের বীরসিংহে ৬৬ ও ৪৭ বছরের পুরুষ ব্যক্তি ও ৩০ বছরের গৃহবধূ, দন্ডিপুরে ৬৭ বছরের বৃদ্ধ এবং নবগ্রামে ৪২বছরের গৃহবধূ আক্রান্ত। কুশপাতায় আক্রান্ত ৩০ বছরের যুবক।