মৃত্যু হার কমাতে বাংলা, মহারাষ্ট্র সহ ৪ রাজ্যকে চিঠি কেন্দ্রের, সংক্রমণ রুখতে কড়া দাওয়াই কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যসচিবের

81
মৃত্যু হার কমাতে বাংলা, মহারাষ্ট্র সহ ৪ রাজ্যকে চিঠি কেন্দ্রের, সংক্রমণ রুখতে কড়া দাওয়াই কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যসচিবের 1

ওয়েব ডেস্ক : প্রতিদিন রাজ্যে আক্রান্তের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যা৷ এই পরিস্থিতিতে সংক্রমণ রুখতে নাজেহাল প্রশাসন। এর মধ্যেই করোনায় মৃত্যুহার কমাতে কেন্দ্রের তরফে গোটা দেশের চার রাজ্যকে চিঠি দেওয়া হয়েছে। এই চারটি রাজ্যের মধ্যে রয়েছে বাংলা, বিহার, ওড়িশা ও অসম। চিঠিতে স্বাস্থ্যমন্ত্রকের তরফে রাজ্যগুলির কনটেনমেন্ট জোনগুলিতে কড়া হাতে লকডাউন পালনের দিকে নজর দিতে বলা হয়েছে৷ সেই সাথে যেহেতু রাজ্যগুলির মৃত্যুর হার ক্রমশ বাড়ছে, সেকারণে মৃত্যুর হার যাতে ১% এর উপরে না ওঠে সেদিকে নজর রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। কিন্তু মহারাষ্ট্র, তামিলনাড়ু, গুজরাটের মতো রাজ্য যেখানে প্রতিদিন গড়ে প্রায় ২-৩ হাজার মানুষ আক্রান্ত হচ্ছেন, এমনকি বাংলাতেও গত দুদিনে সংক্রমণের সংখ্যা গড়ে ১৫০০-২০০০ সেখানে কেন্দ্রের তরফে এই চারটি রাজ্যকে চিঠি দেওয়ার পিছনে স্বাভাবিকভাবেই রাজনৈতিক অভিসন্ধি বলেই মনে করছেন ওয়াকিবহাল মহল।

আরও পড়ুন -  আলুগাড়ির ধাক্কায় ভাঙল গিরি ময়দানের গেট, ধাক্কা বাসেও , যানজটে নাকাল মানুষ

স্বাস্থ্যমন্ত্রকের চিঠিতে বলা হয়েছে, প্রতি এক লক্ষের মধ্যে ন্যূনতম ১৪ জনের করোনা পরীক্ষা নিশ্চিত করতে হবে। সেই পরীক্ষায় ১০% এর বেশি মানুষ যাতে আক্রান্ত না হন, রাজ্যগুলিতে তার দিকে নজর রাখতে হবে৷ একই সাথে রাজ্যগুলিতে যাতে সংক্রমণের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে আসে সেবিষয়ে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যসচিবের তরফে বেশ কিছু নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তাতে বলে হয়েছে, কনটেনমেন্ট জোনে লকডাউনের পাশাপাশি কড়া নজরদারি রাখতে হবে। একইরকম কড়াকড়ি নজরদারি রাখতে হবে বাফার জোনগুলিতেও৷ সেই সাথে আগের থেকে কয়েকগুণ বেশি বাড়াতে হবে করোনা পরীক্ষার হার। পাশাপাশি গত কয়েকদিন যাঁরা সংক্রমিত হয়েছেন তাঁদের সংস্পর্শে আসা প্রত্যেক ব্যক্তিকে দ্রুত চিহ্নিত করে তাদের আগামী তিনদিন আইসোলেশনে রাখতে হবে। সেই সাথে নজর রাখতে হবে তাঁদের মধ্যে কোনোরকম উপসর্গ দেখা দিচ্ছে কি না। যদি উপসর্গ দেখা দেয় সেক্ষেত্রে দ্রুত আইসোলেশনের ব্যবস্থা করতে হবে।

তবে মহারাষ্ট্র, গুজরাট, তামিলনাড়ুর পাশাপাশি কেন্দ্রের তরফে পাঠানো চিঠিতে রাজ্যের যে সমস্ত জেলাগুলিতে সংক্রমণের মাত্রা ঊর্ধমুখী তাদের নাম উল্লেখ করা হয়েছে। সে অনুযায়ী এরাজ্যের কলকাতা, দুই ২৪ পরগনা, হাওড়া, হুগলির পাশাপাশি ঝাড়গ্রাম, পুরুলিয়া, নদিয়াও ক্রমাগত করোনার হটস্পট হয়ে উঠছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। বলা হয়েছে, গত ৪ দিন বাংলায় গড়ে ১৬০০ মানুষ করোনা আক্রান্ত হয়েছে। তাঁদের মধ্যে ৯৩% রোগীই এই হটস্পটগুলিতে জেলাগুলির বাসিন্দা। ফলে দ্রুত হারে এই মারণ ভাইরাসের কবল থেকে বাঁচতে কড়া লকডাউনই এখন এক মাত্র পথ।

মৃত্যু হার কমাতে বাংলা, মহারাষ্ট্র সহ ৪ রাজ্যকে চিঠি কেন্দ্রের, সংক্রমণ রুখতে কড়া দাওয়াই কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যসচিবের 2