বিধিনিষেধ মেনে সেপ্টেম্বরেই রাজ্যে লোকাল ট্রেন পরিষেবা চালু করা হোক! রেলমন্ত্রককে আবেদন রাজ্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের

306

ওয়েব ডেস্ক : বুধবার নবান্নের সাংবাদিক বৈঠকে রাজ্যে পুনরায় লোকাল ট্রেন চালুতে সম্মতি দিয়েছে রাজ্য সরকার। রাজ্যের সবুজ সংকেত পেয়ে পুনরায় ট্রেন পরিষেবা চালু করতে শুক্রবারই রেলকর্মীদের সাথে আলোচনায় বসেন শিয়ালদহ ডিভিশনের ডিআরএম। এর মাঝে আনলকের চতুর্থ পর্যায়ে রাজ্যে সীমিত সংখ্যক মেট্রো ও লোকাল ট্রেন চালানো নিয়ে শুক্রবারই রেলমন্ত্রককে আবেদন জানিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গ সরকার। এদিন রাজ্য স্বরাষ্ট্রসচিব আলাপান বন্দ্যোপাধ্যায় রেলমন্ত্রককে চিঠি লেখেন। চিঠিতে জানানো হয়, রেল যদি চায় তবে এ রাজ্যে যাত্রীদের মধ্যে শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে কিছু সংখ্যক মেট্রো এবং লোকাল ট্রেন পরিষেবা চালু করতে পারে।

আরও পড়ুন -  সবংয়ে হোমিওপ্যাথি চিকিৎসক সহ আক্রান্ত ৪জন, করোনার গ্রাসে নতুন ৩ গ্রাম পঞ্চায়েত, মোট আক্রান্ত ১৫

রাজ্যে পুনরায় ট্রেন পরিষেবা চালু করতে রেলমন্ত্রকের কাছে আর্জি জানিয়ে রাজ্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক চিঠিতে লেখেন ” যাত্রীদের মধ্যে শারীরিক দূরত্ব ও নানা বিধিনিষেধ বজায় রেখে এবং প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যবিধি মেনে রেল চাইলে পশ্চিমবঙ্গে সীমিত সংখ্যক মেট্রো এবং লোকাল ট্রেন পরিষেবা চালু করা যেতে পারে।” এদিকে শুধুমাত্র মেট্রো কিংবা লোকাল ট্রেন নয়, একই সাথে মুখ্যমন্ত্রী বুধবার দেশের ৬ শহর অর্থাৎ দিল্লি, মুম্বই, পুনে, নাগপুর, চেন্নাই এবং আহমেদাবাদ থেকে পুনরায় কলকাতায় বিমান পরিষেবা পুনরায় চালু করার অনুমতি দিয়েছিলেন। প্রসঙ্গত, এই ৬ রাজ্যে করোনা পরিস্থিতি মারাত্মক হওয়ার কারণে গত জুলাই মাস থেকে এই রাজ্যগুলি থেকে কলকাতা বিমানবন্দরে উড়ান পরিষেবা স্থগিত রাখা হয়েছিল। বুধবার ক্যাবিনেট বৈঠকের পর মুখ্যমন্ত্রী জানান, “১ সেপ্টেম্বর থেকে সপ্তাহে ৩ দিন করে দিল্লি, মুম্বই, পুনে, নাগপুর, চেন্নাই এবং আহমেদাবাদ— এই ৬টি শহর থেকে কলকাতায় বিমান চলাচল আবার শুরু হতে পারে।”

এদিকে ট্রেন পরিষেবা চালু নিয়ে রাজ্যের তরফে রেলমন্ত্রকের কাছে আবেদন জানানোর পর রেল কর্তৃপক্ষের দাবি, মুখ্যমন্ত্রীর আবেদন পাওয়ামাত্র স্বরাষ্ট্র ও রেল মন্ত্রকের তরফে নিয়ম বেঁধে ট্রেন চলাচলে সম্মতি দেবে বলে তাঁদের আশা। যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচলের ফলে তার থেকে রেল বছরে ৫০ হাজার কোটি টাকা আয় করে। কিন্তু লকডাউনের কারণে ৫ মাস ট্রেন বন্ধ থাকায় রেলের প্রচুর টাকা ক্ষতি হয়েছে। ফলে রাজ্য সরকারের সবুজ সংকেত পেয়ে কেন্দ্রের তরফে পুনরায় ট্রেন চালানোয় সম্মতি দেওয়া খুব স্বাভাবিক। এই পরিস্থিতিতে চূড়ান্ত প্রস্তুতি না নেওয়া থাকলে পরে বিপদের আশঙ্কা থাকতে পারে বলেই মনে করছে রেল কর্তৃপক্ষ। তাই পাকাপাকিভাবে ট্রেন চলাচলের আগে পুনরায় প্রস্তুত হয়ে থাকতে চাইছেন রেল কর্তারা।

বিধিনিষেধ মেনে সেপ্টেম্বরেই রাজ্যে লোকাল ট্রেন পরিষেবা চালু করা হোক! রেলমন্ত্রককে আবেদন রাজ্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের 1