মেলায় এসেও খেলার ডাক মদন মিত্রের! হকিস্টিক থেকে উইকেট, বারপোস্ট সবারই যোগান দেবেন তিনি, প্রথম দিনেই জমজমাট ডেবরা মেলা

452
মেলায় এসেও খেলার ডাক মদন মিত্রের! হকিস্টিক থেকে উইকেট, বারপোস্ট সবারই যোগান দেবেন তিনি, প্রথম দিনেই জমজমাট ডেবরা মেলা 1

নিজস্ব সংবদাদাতা: বাংলার জন্য ৮ দফার ভোট গ্রহণ নির্ঘন্ট ঘোষণা করেছেন নির্বাচন কমিশন। আর সেই ৮ দফাতেই খেলার জন্য দলীয় কর্মীদের উদ্বুদ্ধ করে গেলেন তৃনমূল নেতা মদন মিত্র। পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার ডেবরাতে শুরু হয়েছে ৫ম বর্ষ ডেবরা গ্রামীণ উৎসব। ৮দিন ব্যাপী সেই মেলার উদ্বোধন অনুষ্ঠানে শুক্রবার হাজির হয়েছিলেন মদন মিত্র। উপস্থিত ছিলেন ডেবরার একগুচ্ছ স্থানীয় নেতা। সেখানেই খোশ মেজাজে থাকা এই তৃনমূল নেতা সাংবাদিকদের জানান, ‘মেলাতে মালাইকারি রয়েছে তবে এই মালাইকারি দিয়ে হবেনা। খেলার জন্য যা যা দরকার তা এখানে দেখছিনা। যেমন হকিস্টিক, উইকেট, বারপোস্ট, ব্যাট ইত্যাদি। আমি আলোক(আচার্য্য), বিবেক(মুখার্জী)দের বলব আট দফা খেলার জন্য এসব তৈরি রাখতে। যদি না থাকে তবে আমি কলকাতা থেকে এসব পাঠিয়ে দেব।’ মিত্র অবশ্য এটাও জানিয়ে দিয়েছেন যে, ‘বিস্ফোরণের জন্য ডিটোনেটার আমি দিতে পারবনা। বাদ বাকি খেলার জন্য যা লাগে আমি দেব।’

মিত্র এদিন এও জানিয়ে দিয়েছেন ৮ দফা কেন আরও কয়েকদফা ভোট করার পরেও বিজেপি এই ভোটে জয়ী হতে পারবেনা বরং এতে আমাদের কর্মীদের খেলতে সুবিধা হবে। তারা এখানেও খেলবে, ওখানেও খেলবে। মিত্র এও দাবি করেছেন, টি-টুয়েন্টির বদলে খেলা শেষ হয়ে যাবে ৫ওভারেই।

মেলায় এসেও খেলার ডাক মদন মিত্রের! হকিস্টিক থেকে উইকেট, বারপোস্ট সবারই যোগান দেবেন তিনি, প্রথম দিনেই জমজমাট ডেবরা মেলা 2

মদন মিত্র যদিও বিষয়টি মজার ছলেই বলে দাবি করেছেন তথাপি বিষয়টিকে মোটেই হালকা করে দেখতে রাজি নয় বিরোধীরা। ডেবরার বর্ষীয়ান

বিজেপি নেতারা অধ্যাপক কাশীনাথ বসু বলেন, মদন মিত্রর ‘ম’ বিজেপি অফ করে দিয়েছে। যে কারনে উনি এই সব বলছেন। এটাই তৃনমূলের সংস্কৃতি যা ডেবরার মানুষ জানেন। এই বক্তব্য আসলে হিংসায় প্ররোচনা দেওয়া। নির্বাচন ঘোষণার দিনই মিত্রের এই বক্তব্য নির্বাচনী বিধিভঙ্গের সামিল। হিংসাকে উৎসাহিত করার জন্য তিনি এই কথা বলেছেন। ডেবরার মানুষ এতে ভয় পায়না।’

এদিকে উদ্বোধনের দিনেই জমজমাট ডেবরা গ্রামীণ উৎসব। সন্ধ্যা হতেই ঢল নেমেছে মেলায়। হাজার হাজার মানুষ প্রথম দিনেই ভিড় জমিয়েছেন। মেলা কমিটির সভাপতি ও প্রধান উদ্যোক্তা ঘাটাল লোকসভা কেন্দ্রের সাংসদ দেব বা দীপক অধিকারীর প্রতিনিধি সীতেশ ধাড়া জানিয়েছেন, ‘এই উৎসব আজ আর শুধুই ডেবরার নয়, আশেপাশের থানা এলাকা যেমন গ্রামীন খড়গপুর, পিংলা, সবং ছাড়াও পাশের জেলা পূর্ব মেদিনীপুরের পাঁশকুড়া থানার প্রচুর মানুষ সমবেত হন মেলার আনন্দ নিতে।”

উদ্যোক্তারা জানিয়েছেন, এই মেলায় থাকছে প্রতিদিন নামী দামী শিল্পী সমন্বয়ে বিচিত্রা অনুষ্ঠান যেমন আগামীকাল ২৭ শে ফেব্রুয়ারী নচিকেতা,২৮ শে ফেব্রুয়ারী জি বাংলা মীরাক্কেল খ্যত মীর ও তার ব্যন্ডেজ, ১ ই মার্চ টুম্পা সোনা খ্যত সুমনা ও RJ সায়ন,২ রা মার্চ স্বস্তিকা দত্ত যাকে সবাই রাধিকা সিরিয়ালে দেখেন,৩ রা মার্চ সোহম,৪ঠা মার্চ রাজ বর্মন,৫ ই মার্চ সারারাত আদিবাসী নাচ,গান এবং উৎসবের সমাপ্তি। এছাড়াও প্রতিদিন এলাকার ছোট ছোট বাচ্চা দের নিয়ে সংগীতানুষ্ঠান এবং বিভিন রকমের প্রতিযোগিতা। এই উৎসব অনুষ্ঠিত হচ্ছে ডেবরা হরিমতি স্কুল মাঠে।