ফিরহাদের ইলেকট্রিক স্কুটিতে চেপে নবান্নে মমতা ! জ্বালানি বৃদ্ধির প্রতিবাদে অভিনব ভোট প্রতিবাদে মুখ্যমন্ত্রী

452
ফিরহাদের ইলেকট্রিক স্কুটিতে চেপে নবান্নে মমতা ! জ্বালানি বৃদ্ধির প্রতিবাদে অভিনব ভোট প্রতিবাদে মুখ্যমন্ত্রী 1

নিউজ ডেস্ক: প্রতিবাদ জানানোর দিকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রতিদ্বন্দ্বি মেলা ভার।নিত্যনতুন প্রতিবাদের কৌশল রপ্ত করেছেন বাংলার অগ্নিকণ্যা।বৃহস্পতিবার অভিনব পদ্ধতিতে পেট্রোপণ্যের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদ জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। গাড়ির বদলে বাড়ি থেকে হেঁটে হাজরা মোড় আসেন তিনি। সেখান থেকে ইলেকট্রিক স্কুটিতে চেপে নবান্নে যান মমতা। চালক পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম।

বৃহস্পতিবার রাজ্যে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডার একাধিক কর্মসূচি রয়েছে। এদিনই মমতার এই অভিনব কর্মসূচি নিঃসন্দেহে প্রচারের আলো অনেকখানি কেড়ে নিতে সক্ষম হবে বলে মত রাজনৈতিক মহলের।

ফিরহাদের ইলেকট্রিক স্কুটিতে চেপে নবান্নে মমতা ! জ্বালানি বৃদ্ধির প্রতিবাদে অভিনব ভোট প্রতিবাদে মুখ্যমন্ত্রী 2

লিটার পিছু পেট্রেল-ডিজেল একশো টাকা ছুঁইছুঁই। দু-একটা দিন বাদ দিলে প্রতিদিনই ২৫ থেকে ৩০ পয়সা করে বাড়ছে দুই জ্বালানির দাম। বাংলায় পেট্রোলের দাম ৯১ টাকা ছাড়িয়ে গিয়েছে গত শুক্রবার। এদিকে, বুধবার রাত থেকে ভর্তুকিহীন রান্নার গ্যাসের দাম ২৫ টাকা বেড়েছে। এই নিয়ে ফেব্রুয়ারি মাসে রান্নার গ্যাসের দাম সাকুল্যে ১০০ টাকা বাড়লো।

সেই কারণে গত ২০ ও ২১ ফেব্রুয়ারি তৃণমূল কর্মীদের রাজ্য জুড়ে বিক্ষোভ-মিছিলের নির্দেশ দিয়েছিলেন এরাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। একাধিক জনসভা ও কর্মসূচিতে লাগাতার পেট্রোপণ্যের মূল্যবৃদ্ধির কারণে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সরব হয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সম্প্রতি রাজ‌্য সরকার পেট্রল ও ডিজেলের উপর থেকে আংশিক সেস প্রত্যাহার করেছে।এক টাকা করে কমেছে পেট্রোল ডিজেলের দাম।তবুও লাভ হয়নি রাজ্যবাসীর।ভোগান্তির শিকার এখনো রাজ্যের জনতা।

বিধানসভা নির্বাচনের আগে পেট্রোপণ্যের মূল্যবৃদ্ধি অন্যতম ইস্যু করেছেন মমতা। এই পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে বৃহস্পতিবার অভিনব পদ্ধতিতে প্রতিবাদ জানালেন মুখ‌্যমন্ত্রী। ইলেকট্রিক স্কুটারে চেপে নবান্নে গেলেন তিনি।

করোনা আবহে কেন্দ্রীয় সরকার বাজেটেও ভঙ্গুর অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে নানা খাতে বরাদ্দ বাড়িয়েছে।  এবার পেট্রোল-ডিজেলকে জিএসটির আওতায় আনার পথে কেন্দ্র। এতে লাগাতার দামবৃদ্ধি সব সম্ভাবনা কমে যেতে  পারে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞদের একাংশ।