কোলাঘাট জাতীয় সড়কে দুর্ঘটনায় মুড়ির টিনের মতই উড়ে গেল মারুতির ছাদ, ছেলেকে স্কুলে পৌঁছে দিয়ে ফেরার পথে মৃত শিক্ষিকা

313
কোলাঘাট জাতীয় সড়কে দুর্ঘটনায় মুড়ির টিনের মতই উড়ে গেল মারুতির ছাদ, ছেলেকে স্কুলে পৌঁছে দিয়ে ফেরার পথে মৃত শিক্ষিকা 1
কোলাঘাট জাতীয় সড়কে দুর্ঘটনায় মুড়ির টিনের মতই উড়ে গেল মারুতির ছাদ, ছেলেকে স্কুলে পৌঁছে দিয়ে ফেরার পথে মৃত শিক্ষিকা 2
ছাদ উড়ে যাওয়া অভিশপ্ত মারুতি ভ্যান এবং উল্টে পড়া শিক্ষিকার দেহ 

নিজস্ব সংবাদদাতা: দুর্ঘটনার পর মারুতি ভ্যানের অবস্থা দেখলে মনে হবে জাস্ট একটা মুড়ির টিনের ঢাকনা কেউ সরিয়ে নিয়েছে আর ঢাকনাটা সরানোর সময় মাথার খুলিটাও ফাটিয়ে দিয়ে গেছে কেউ। আতংক এভাবেও হতে পারে যে এই ধরনের মারুতি ভ্যানেই প্রতিদিন হাজার হাজার মানু্ষের যাতায়ত! এমনকি আমার আপনারও।

কোলাঘাট জাতীয় সড়কে দুর্ঘটনায় মুড়ির টিনের মতই উড়ে গেল মারুতির ছাদ, ছেলেকে স্কুলে পৌঁছে দিয়ে ফেরার পথে মৃত শিক্ষিকা 3

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
বৃহস্পতিবার পূর্ব মেদিনীপুরের কোলাঘাটে ৬নম্বর হাওড়া- মুম্বাইয় জাতীয় সড়কে দুর্ঘটনাগ্রস্থ ওই মারুতিভ্যান টিকে দেখলেই বোঝা যাবে গাঁটের পয়সা খসিয়ে কী বিপদ কিনে আনি আমরা।এদিন সকাল আটটা নাগাদ মারুতি ও লরির সংঘর্ষে মৃত্যু হয়েছে এক হাইস্কুল  শিক্ষিকার, গুরুতর আহত হয়েছেন মারুতির চালকও । মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন তিনি।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
পুলিশ সূত্রে জানা গেছে মৃত শিক্ষিকার নাম শম্পা রায় চক্রবর্তী পেশায় একজন শিক্ষিকা। স্থানীয় নিকাশি হাইস্কুলের শিক্ষিকা শম্পা তাঁর শিশুপুত্রকে ওই মারুতি ভ্যানে একটি বেসরকারি স্কুলে ছেড়ে দিয়ে ফিরছিলেন। কোলাঘাট পানশিলা সেতুর আগেই চৌরাস্তার মোড়ে নিয়ন্ত্রন হারিয়ে মারুতি ভ্যানটি একটি দাঁড়িয়ে থাকা দশ চাকার লরিতে ধাক্কা মারে সজোরে আর তাতেই ছাদ উড়ে যায় মারুতি ভ্যানের।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
কোলাঘাট থানার পুলিশ গুরুতর আহত অবস্থায় একটি মেছেদা র একটি বেসরকারি নার্সিংহোম এ  ভর্তি করলে ঐ শিক্ষিকা কে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ মৃত বলে ঘোষণা করে আহত চালক এর অবস্থাও আশংকাজনক। পুলিশ মৃত শিক্ষিকা মৃত দেহ ময়না তদন্তের জন্য তমলুক জেলা হাসপাতাল এ পাঠিয়েছে। ঘটনার পরেই পালিয়ে যায় দাঁড়িয়ে থাকা লরিটি।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
সাধারন মানু্ষের অভিযোগ দিনের ব্যস্ততম সময়ে চৌরাস্তার গা ঘেঁষে নো পার্কিং জোন হওয়া স্বত্ত্বেও দাঁড়িয়ে থাকে সার সার লরি। এর ফলে রাস্তার পরিসর যেমন সংকীর্ণ হয়ে যায় তেমনই কাঙ্খিত যাত্রাপথের বাঁক মোড় আড়াল হয়ে পড়ে এবং হামেশাই দুর্ঘটনা ঘটে এই এলাকায়। পুলিশের চোখের সামনেই চলে এই বে আইনি পার্কিং। জনপ্রিয় শিক্ষিকার মৃত্যুর খবরে শোকের ছায়া নেমে এসেছে স্কুলে এবং স্থানীয় এলাকায়।