লকডাউনের আশঙ্কায় ফের বাংলায় ফেরার হিড়িক পরিযায়ী শ্রমিকদের

387
লকডাউনের আশঙ্কায় ফের বাংলায় ফেরার হিড়িক পরিযায়ী শ্রমিকদের 1

নিউজ ডেস্ক: ভারতে ক্রমাগত বাড়ছে করোনা সংক্রমণ; কেন্দ্রের মোদি সরকার এখনও দেশ জুড়ে লকডাউন লাগু করেনি। এখন বিভিন্ন জায়গায় নির্বাচন চলছে কিন্তু সেই নির্বাচন মিটলেই তা লাগু হয়ে যেতে পারে। তাই একদিকে কাজ হারিয়ে অন্যদিকে লকডাউনের আশঙ্কায় এবার বাংলায় ফের ফেরত আসতে শুরু করেছেন পরিযায়ী শ্রমিকেরা। কার্যত দলে দলে হাজারো শ্রমিক ফিরে আসছেন যে যার নিজের জেলায়, নিজের গ্রাম বা শহরে। আর এই শ্রমিকদের হাত ধরেই এখন ওই সব এলাকায় কোভিড ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

লকডাউনের আশঙ্কায় ফের বাংলায় ফেরার হিড়িক পরিযায়ী শ্রমিকদের 2

ভারতবর্ষের মহারাষ্ট্র, দিল্লি, উত্তরপ্রদেশ,কেরল, কর্ণাটক, রাজস্থান প্রভৃতি রাজ্য থেকে দলে দলে পরিযায়ী শ্রমিকেরা পশ্চিমবঙ্গে ফিরতে শুরু করেছেন।ট্রেনে করেই এরা ফিরে আসছেন নিজ রাজ্যে। কিন্তু এরা কেউ নির্দিষ্ট কোনও স্টেশনে নামছেন না। কেউ হাওড়া, কেউ সাঁতরাগাছি আবার কেউ পথিমধ্যে নানা স্টেশনে নেমে যাচ্ছেন। সেখান থেকে তাঁরা বাসে করে নিজ বাড়িতে চলে যাচ্ছেন।

লকডাউনের আশঙ্কায় ফের বাংলায় ফেরার হিড়িক পরিযায়ী শ্রমিকদের 3

উল্লেখ্য,গতবছর এই সব শ্রমিকরা ফিরলে তাঁদের আরটি-পিসিআর টেস্ট করানোর পাশাপাশি তাঁদের থার্মাল চেকিংয়ের ব্যবস্থা ছিল নানা স্টেশনে। সেই সঙ্গে নিজ নিজ জেলায় ছিল কোয়েরেন্টিন সেন্টার যেখানে এইসব শ্রমিকদের ১৪দিন রেখে দেওয়া হত। তারপরে তাঁরা নিজ বাড়িতে ফিরতে পারতেন। মূলত এদের মাধ্যমে যাতে এলাকায় সংক্রমণ ছড়িয়ে না পড়ে তার জন্যই এই ব্যবস্থা করা হয়েছিল।

কিন্তু এখন কোনও স্টেশনেই আরটি-পিসিআর চেকিংয়ের কোনও ব্যবস্থাই নেই কোনও স্টেশনে। সেই সঙ্গে বাইরে থেকে ফিরলে ১৪ দিনের জন্য আলাদা থাকার ব্যস্থাও এখনও কোথাও লাগু হয়নি। তাই এই পরিযায়ী শ্রমিকদের নিয়েই এখন নতুন করে আশঙ্কা ছড়াচ্ছে নানা জেলায়।

Previous articleকলকাতা যেন কুড়ির মুম্বাই, একদিনেই সংক্রমন ২ হাজার ছাড়ালো! রাজ্যে দৈনিক সংক্রমন সাড়ে ৮ হাজার ছুঁয়ে, মহানগরে বড় সভা বাতিল করলেন মমতা
Next articleরাজ্যে বহিরাগত প্রবেশের ক্ষেত্রে RT-PCR টেস্ট বাধ্যতামূলক করলেন মমতা; কেবলই করোনা রুখতে, না কোনও রাজনৈতিক অভিসন্ধি