করোনার নতুন স্ট্রেইনের মধ্যেই আতঙ্ক জাগিয়ে হাজার হাজার পরিযায়ী পাখি আর কাকের মৃত্যু দেশে! কারন খুঁজছেন বিজ্ঞানীরা

725
করোনার নতুন স্ট্রেইনের মধ্যেই আতঙ্ক জাগিয়ে হাজার হাজার পরিযায়ী পাখি আর কাকের মৃত্যু দেশে! কারন খুঁজছেন বিজ্ঞানীরা 1

নিউজ ডেস্ক: করোনার আতঙ্কের মধ্যে ফের নতুন আতঙ্ক ভাঁজ ফেলেছে দেশবাসীর কপালে। একদিকে রহস্যজনক ভাবে মৃত্যুর মুখে ঢলে পড়েছে সহস্রাধিক পাখি, আর অপরদিকে কাকের মৃত্যু। প্রথম ঘটনাটি ঘটেছে হিমাচল প্রদেশের বিখ্যাত পং দাম লেকে এবং অপর ঘটনাটি ঘটছে রাজস্থান ও মধ্যপ্রদেশের একাধিক শহরে।

করোনার নতুন স্ট্রেইনের মধ্যেই আতঙ্ক জাগিয়ে হাজার হাজার পরিযায়ী পাখি আর কাকের মৃত্যু দেশে! কারন খুঁজছেন বিজ্ঞানীরা 2

জানা গিয়েছে, হিমাচল প্রদেশের বিখ্যাত পং দাম লেকে পাখিগুলির মৃতদেহ পাওয়া গিয়েছে। ধামেতা ও নাগরোটার জঙ্গলের কাছে এইসব পাখির মৃত্যু হয়েছে। আরও জানা গিয়েছে, এইসব পাখিদের মধ্যে বেশির ভাগই সাইবেরিয়া ও মঙ্গোলিয়া থেকে এসেছিল। এগুলি আসলে ‘বার হেডেড গিজ’। প্রত্যেক বছর শীতে ১.১৫ থেকে ১.২০ লক্ষ পরিযায়ী পাখি আসে এই পং দাম লেকে।

করোনার নতুন স্ট্রেইনের মধ্যেই আতঙ্ক জাগিয়ে হাজার হাজার পরিযায়ী পাখি আর কাকের মৃত্যু দেশে! কারন খুঁজছেন বিজ্ঞানীরা 3

হামিরপুর ডিভিশনের ডেপুটি কনজারভেটর রাহুল রোহানে জানিয়েছেন, ১৫ টি পাখির নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। সেগুলি ভেটেনারি রিসার্চ ইনস্টিটিউটে পাঠানো হবে। আর সেখানেই মৃত্যুর কারণ চিহ্নিত করা হবে। রোহানে আরও জানিয়েছেন, দু’দিনের মধ্যে ভাইরাল, ব্যাকটিরিয়াল ও প্যাথোজেন টেস্টের রিপোর্ট পাওয়া যাবে। তার আগে পাখির মৃত্যুর কারণ বলা সম্ভব নয়। তবে প্রাথমিকভাবে মৃত্যুর কারণ হিসেবে ফ্লু-কেই সন্দেহ করা হচ্ছে।

ইতিমধ্যেই ফ্লু নিয়ে বিশে নজরদারি চালানো হচ্ছে। গত মার্চেও পরীক্ষা হয়েছিল। তখন কোনও পাখির মধ্যে অ্যাভিয়ান ফ্লু পাওয়া যায়নি।
উল্লেখ্য, অ্যাভিয়ান ফ্লু ভাইরাস মূলত আক্রান্ত মুরগির শরীর থেকে ছড়িয়ে পড়ে। আর এই ভাইরাসে মুরগি, হাঁস সহ প্রাণীরা দ্রুত আক্রান্ত হয়ে পড়ে। এই ভাইরাসে আক্রান্ত হলে সাধারণ জ্বর, গলা ব্যাথা বা মাথা যন্ত্রণার মত উপসর্গ দেখা যায়।
এই মুহূর্তে যেহেতু করোনা আতঙ্ক ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে, তাই অ্যাভিয়ান ফ্লুর বিষয়টিও যথেষ্ট গুরুত্ব সহকারে দেখে এবং সকলের নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে পং দাম লেকের আশেপাশে কোনও পর্যটককে যেতে নিষেধ করা হয়েছে।
অপরদিকে, রাজস্থান ও মধ্যপ্রদেশের একাধিক শহরে কাকের মড়ক লেগেছে। মৃত কাকের শরীর থেকেই পাওয়া যাচ্ছে বার্ড ফ্লু-র ভাইরাস, যা থেকে স্বাভাবিকভাবেই ছড়িয়েছে নতুন আতঙ্ক।
রাজস্থানের প্রধান সচিব কুঞ্জিলাল মিনা রবিবার জানিয়েছেন, রাজস্থানের কোটায় উদ্ধার হয়েছে ৪৭টি মৃত কাক, ১০০টি ঝালওয়ারে ও ৭২টি বারানে। একসঙ্গে এতগুলি কাকের মৃত্যু চিন্তায় ফেলেছে বিশেষজ্ঞদের।

প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করা হচ্ছে। পরিস্থিতি যাতে হাতের বাইরে না যায়, সে দিকে খেয়াল রাখছে প্রশাসন। এরই পাশাপাশি আবার মাছরাঙার মতো পাখির মৃত্যুর খবরও পাওয়া যাচ্ছে। এ সবের শুরু গত মঙ্গলবার। মধ্যপ্রদেশের ইন্দোরে একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ক্যাম্পাসের মধ্যে ৫০টি মৃত কাক উদ্ধার করা হয়। তার মধ্যে কিছু পরিমাণ পরীক্ষায় পাঠালে দেখা যায়, কাকের শরীরে এইচফাইভএন ভাইরাস রয়েছে।

সেই কারণেই পাখিদের মৃত্যুতে আতঙ্কে রয়েছেন সাধারণ মানুষ। কোনও ভাবে পশুর শরীর থেকে মানব শরীরে এই ভাইরাস আক্রমণ করতে পারে কি না, তাও বুঝতে পারছেন না অনেকেই। কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে রাজস্থান সরকারকে বিশেষ নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। যেখানে যেখানে বার্ড ফ্লু থেকে মৃত্যুর খবর আসছে, সেখানে যেন দ্রুত পরীক্ষা করা হয়।

ইন্দোরে করোনা প্রকোপ অত্যধিক বেশি। তার মধ্যেই বার্ড ফ্লু নামক আতঙ্ক গ্রাস করছে এই শহরকে। সেখানকার পশু চিকিৎসা পরিষেবার উপ-অধিকর্তা প্রমোদ শর্মা জানিয়েছেন, নতুন করে ২০টি পাখির দেহ পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে, যার ফল এখনও এসে পৌঁছয়নি। এদিকে করোনার নতুন স্ট্রেইন চিন্তায় ফেলেছে বিশ্ববাসীকে, তাঁর ওপর আবার পাখি মৃত্যু, সব মিলিয়ে নতুন এক ভয়ানক পরিস্থিতির কথা ভেবেই দিশেহারা সাধারণ মানুষ।

Previous articleরাতে শ্যুট-আউট আসানসোল-মালদাতে, দুই বিজেপি নেতাকে লক্ষ্য করে গুলি! একজন রক্ষা পেলেও গুলিবিদ্ধ একজন, নেতা-কর্মীদের সতর্ক করল বিজেপি
Next articleশুভেন্দুর দল পরিবর্তনে শক্তি পেল এবিভিপি! টিএমসিপির সঙ্গে সংঘাত বাজকুল কলেজে, বোমাবাজি, ভাঙচুর, আগুন