করোনা আক্রান্ত হলেন মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী, উদ্বিগ্ন ‘দাদার অনুগামী’রা

442
করোনা আক্রান্ত হলেন মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী, উদ্বিগ্ন 'দাদার অনুগামী'রা 1

নিজস্ব সংবাদদাতা: শত সতর্কতা ও সাবধানতা স্বত্ত্বেও করোনা সংক্রমিত হলেন পরিবহণ ও সেচমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। বৃহস্পতিবার তাঁর শরীরেও করোনাভাইরাসের অস্থিত্ব ধরা পড়েছে বলে জানা গেছে। ওই দিন দুপুরে তাঁর অ্যান্টিজেন টেস্ট করার পর প্রথম পজিটিভ রেজাল্ট পাওয়া যায়। এরপর আরও নিশ্চিত হওয়ার জন্য আরটি/পিসিআর পরীক্ষা করা হয়। সেখানেও রিপোর্ট পজিটিভ আসে তাঁর।

করোনা সংক্রান্তি কালে রাজ্যের অন্যান্য নেতা মন্ত্রীদের মধ্যে তিনিই ছিলেন নজির বিহীন ভাবে সক্রিয়। যথাযোগ্য সতর্কতা নিয়েই ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন আমফান বিপর্যয় চলাকালীন সময় থেকে শুরু করে
পরবর্তী ত্রাণ ও উদ্ধারের কাজে। শুধু নিজের জেলা নয় জঙ্গলমহল সহ পিছিয়ে পড়া পশ্চিমাঞ্চলে বাড়িয়ে দিয়েছেন সাহায্যের হাত।

করোনা আক্রান্ত হলেন মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী, উদ্বিগ্ন 'দাদার অনুগামী'রা 2

ঝাড়গ্রাম, পুরুলিয়া, বাঁকুড়া ইত্যাদি এলাকায় তাঁর নেতৃত্বে ‘দাদার অনুগামী’রা ছুটে গেছেন ত্রাণ নিয়ে।
মাত্র তিনদিন আগেই নন্দীগ্রামে ভূমি আন্দোলনের নেতা নিশিকান্ত মন্ডলের স্মরণ সভায় উপস্থিত থাকতেও দেখা গিয়েছে তাঁকে। সেখানেও দেখা গেছে মাস্ক আর গ্লোভস পরেই কর্মসূচিতে অংশ নিতে।বাস্তবিকই কোভিড পর্যায়ে মন্ত্রীর মাস্ক বিহীন মুখ কেউ দেখতেই পাননি।

আরও পড়ুন -  বাজারে আসার পথে গোপীবল্লভপুরে দুর্ঘটনায় মৃত্যু হেলমেট বিহীন বাইক আরোহীর

এত সতর্কতা স্বত্ত্বেও তিনি কিভাবে আক্রান্ত হলেন তাই নিয়ে বিস্ময় রয়েছে তাঁর অনুগামীদের মধ্যে। খবর পাওয়ার পরই দুশ্চিন্তায় তাঁরা কারন বেশ কয়েকটি কর্মসূচি রয়েছে তাঁর। এদিকে জানা গেছে মন্ত্রীর মা গায়ত্রী অধিকারীর শরীরেও কোভিড পজিটিভ পাওয়া গিয়েছে। কিছুদিন আগেই চিকিৎসার জন্য গায়ত্রীদেবীকে কলকাতার অ্যাপোলো হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। সে সময়ে তাঁর শরীরের একটি অস্ত্রোপচারও হয়।

আরও পড়ুন -  একদিনের বৃষ্টিতেই পুকুর-রাস্তা-গৃহস্থের উঠোন একাকার বালিচকে! আন্দোলনে নামার হুঁশিয়ারি কমিটির

তার পর সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরতেই কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন তিনি। গায়ত্রী দেবীকে বৃহস্পতিবার রাতেই অ্যাপোলো হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অধিকারী পরিবারে অবশ্য প্রথম করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন তাঁর ভাইপো। তার পর কোভিডে আক্রান্ত হন মন্ত্রীর বড়দা। সেখান থেকেই পরিবারের মধ্যে ভাইরাসের সংক্রমণ ছড়িয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।
তবে আশার কথা যে শুভেন্দু আধিকারী বর্তমানে মৃদু উপসর্গ যুক্ত।