হৃদয়ে কান্না, দু’চোখে জল, হায়দার আলির স্মৃতিতে পথ হাঁটল মেদিনীপুর

281
হৃদয়ে কান্না, দু'চোখে জল,  হায়দার আলির স্মৃতিতে পথ হাঁটল মেদিনীপুর 1

নিজস্ব সংবাদদাতা, মেদিনীপুর: প্রিয় শিল্পীর স্মৃতিতে শোক মিছিল হলো মেদিনীপুর শহরে।প্রয়াত প্রখ্যাত জনপ্রিয় সঙ্গীতশিল্পী হায়দার আলীর স্মরণে শোক মিছিল হলো মেদিনীপুর শহরে। বৃহস্পতিবার বিকেলে মেদিনীপুরের ললিতকলায় শিল্পীদের ও সংস্কৃতিমনস্ক মানুষদের উদ্যোগে আয়োজিত এই মিছিলে মেদিনীপুরের সংস্কৃতি জগতের বিভিন্ন ক্ষেত্রের গুনীজন সহ সংস্কৃতিপ্রেমী বহু মানুষ অংশ নেন।হৃদয়ে কান্না, দু'চোখে জল,  হায়দার আলির স্মৃতিতে পথ হাঁটল মেদিনীপুর 2

ছিলেন সঙ্গীত শিল্পী, নৃত্যশিল্পী, বাচিক শিল্পী, চিত্র শিল্পী, ভাস্কর,নাট্যকার,নাট্যকর্মী, কবি, সাহিত্যেক, চলচ্চিত্র নির্মাতা, চলচ্চিত্র সমালোচক,অভিনেতা-অভিনেত্রী,যন্ত্রসঙ্গীত শিল্পী, ফটোগ্রাফার, শিক্ষক, অধ্যাপক, সমাজকর্মী থেকে শুরু করে সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রের মানুষজন। মেদিনীপুর শহরের সংস্কৃতি চর্চার অন্যতম পীঠস্থান রবীন্দ্র নিলয় প্রাঙ্গণ থেকে এই মিছিল শুরু হয়ে শহর গান্ধীমোড়, বিদ্যাসাগর মোড়, ক্ষদিরাম মোড়,হেড পোষ্ট অফিস রোগ, রবীন্দ্র মূর্তির পাদদেশ,কলেজরোড, গোলকুঁয়ারচক, বটতলাচক, নান্নুর চক হয়ে পুনরায় রবীন্দ্র নিলয়ে এসে শেষ হয়। মিছিল শুরুর আগে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে হায়দার আলীকে স্মরণ করেন রবীন্দ্র স্মৃতি সমিতির সাধারণ সম্পাদক তথা হায়দার আলীর অন্তরঙ্গ বন্ধু লক্ষণ চন্দ্র ওঝা। পাশাপাশি প্রয়াত শিল্পীর স্মরণে নীরবতা পালিত হয়। হৃদয়ে কান্না, দু'চোখে জল,  হায়দার আলির স্মৃতিতে পথ হাঁটল মেদিনীপুর 3কালো ব্যাজ পরে ,প্রজ্বলিত মোমবাতি হাতে এদিনের মিছিলে অংশ নেন সংস্কৃতিপ্রেমীরা। মিছিল শেষে সমস্ত প্রজ্বলিত মোমবাতি রবীন্দ্র স্মৃতি সমিতির প্রধান দরজার সামনে হায়দার আলির প্রতিকৃতির সামনে স্থাপন করা হয়। এদিনের মিছিলে অংশগ্রহণ করেন রবীন্দ্র স্মৃতি সমিতির সভাপতি জগবন্ধু অধিকারী, সম্পাদক লক্ষণ চন্দ্র ওঝা, সাহিত্যিক বিদ্যুৎ পাল, সঞ্চালক অখিল বন্ধু মহাপা, চিত্রশিল্পী সুদীপ মাইতি, অচিন্ত মারিক,বিশ্ব বন্দ্যোপাধ্যায়, সংস্কৃতিপ্রেমী কুনাল ব্যানাজী, সময় বাংলার কর্ণাধার জয়ন্ত মন্ডল, নৃত্যশিল্পী রাজনারায়ণ দত্ত, দোলা সাহা, ঈশিতা চ্যাটাজী, শতাব্দী গোস্বামী,সোমা চট্টরাজ, রাজীব খান, শাশ্বতী শাসমল,বাচিক শিল্পী রীতা বেরা,পাঞ্চালী চক্রবর্তী,রত্না দে,মোম চক্রবর্তী মিতালী তিপাঠী, সুতনুকা মাইতি, চিত্তরঞ্জন দাশ, মিতালী সিনহা, সঙ্গীত শিল্পী আশীষ সরকার, অনিন্দ্য সেন,শাওন সিংহ, ঝুমঝুমি চক্রবর্তী, নাট্যকার জয়ন্ত, চক্রবর্তী,চিত্র সমালোচক সিদ্ধার্থ সাঁতরা,যন্ত্রসঙ্গীত শিল্পী পরেশ দাস, ফটোগ্রাফার গৌতম দেব, সমাজকর্মী শিক্ষক সুদীপ কুমার খাঁড়া, সুব্রত মহাপাত্র সহ অন্যান্য বিশিষ্ট জনেরা। এছাড়াও এদিন সন্ধ্যায় পশ্চিম মেদিনীপুরের শিল্পীদের পক্ষ থেকে বিদ্যাসাগর হল প্রাঙ্গণে একটি স্মরণ সভা হয় সেখানেও উপস্থিত ছিলেন জেলার সংস্কৃতি জগতের বিশিষ্টজনেরা। আয়োজক দের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন নিরুপম মুখার্জি,অমিত ভৌমিক, সন্দীপ ব্যানার্জী,শেখ সফিক সুমন দাশ, অর্ণব বেরা প্রমুখ। উল্লেখ্য রবীন্দ্র স্মৃতি সমিতির সাংস্কৃতিক সম্পাদক, বিশিষ্ট সঙ্গীত শিল্পী কোভিড আক্রান্ত হয়ে কলকাতার সি এম আর আই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার সকালে ৫৩ বছর বয়সে প্রয়াত হন। তাঁর মৃত্যুতে মেদিনীপুর শহর তথা অবিভক্ত মেদিনীপুর জেলার সাংস্কৃতিক মহলে শোকের ছায়া নেমে আসে।

হৃদয়ে কান্না, দু'চোখে জল,  হায়দার আলির স্মৃতিতে পথ হাঁটল মেদিনীপুর 4