আমফানে ক্ষতিগ্রস্ত একাধিক সিনেমা হল, আর্থিক সাহায্যের আশ্বাস রাজ্যের

57

ওয়াব ডেস্ক: করোনা সংক্রমণের জেরে দীর্ঘ ছ’মাস যাবৎ বন্ধ গোটা দেশের সিনেমা হল। আনলক ৪ এও কেন্দ্রের তরফে সিনেমা হল চালু করার নির্দেশ দেওয়া হয়নি, তারওপর আবার আমফানের তান্ডবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে রাজ্যের একাধিক সিনেমা হল। ফলে স্বাভাবিকভাবেই বেহাল অবস্থা রাজ্যের সিনেমা হলগুলির। করোনা পরবর্তীতে কিভাবে পুনরায় ঘুরে দাঁড়াবে তা নিয়ে চিন্তিত রাজ্যের সিঙ্গল স্ক্রিন সিনেমাহলগুলি। এমনিতেই রাজ্যের, মোট ৭২০ টি সিঙ্গল স্ক্রিন সিনেমাহলের মধ্যে অধিকাংশই বন্ধ হয়ে গিয়েছে। ফলে সেই সংখ্যাটা ক্রমশ কমে বর্তমানে তা এসে ঠেকেছে ২২৫-এ। এদিকে আমফানের তাণ্ডবে বেশ কয়েকটি সিনেমা হল এতটাই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে যে, সেখানে পুনরায় সিনেমার স্ক্রিনিং সম্ভব নয়। সেকারণে এবার সিনেমা হলগুলির পাশে দাঁড়ালো রাজ্য সরকার। শুক্রবার ক্ষতিগ্রস্ত সিনেমা হলগুলিকে আর্থিক সাহায্যের ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আরও পড়ুন -  শায়মি নিয়ে এলো নতুন ই-স্কুটার এক চার্জেই চলবে ৩০ কিমি।

অগাষ্ট মাসে মহাকরণে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে ইমপার তরফে আমফানে ক্ষতিগ্রস্ত সেই সমস্ত সিনেমা হলগুলিকে আর্থিক সাহায্য দেওয়ার আবেদন জানানো হয়েছিল। অগাস্ট মাসে পাঠানো সেই আবেদনের ভিত্তিতেই শুক্রবার রাজ্য সরকারের তরফে চিঠি দিয়ে জানানো হয়েছে , আমফানে রাজ্যের যে সমস্ত সিনেমা হলগুলি আংশিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত,তাদের এককালীন ১ লক্ষ টাকা ও যাদের বিপুল পরিমাণ ক্ষতি হয়েছে, সেই সমস্ত হলগুলিকে ২ লক্ষ টাকা আর্থিক সাহায্য দেওয়া হবে।

তবে হলগুলির মধ্যে বেলঘরিয়ার রূপ মন্দির, বেঁড়াচাপার বানিরূপা, বারুইপুরের লীলা, চাম্পাহাটির ইলোরা, জয়নগরের বাণী, মগরাহাটের সুলেখা, গণেশপুরের রাজলক্ষ্মী ও বেতবেরিয়ার শোভা সিনেমা হল রাজ্যের তরফে ক্ষতিপূরণ পাবে। তবে অবশ্যই এর বাইরেও ক্ষতিগ্রস্ত সিনেমা হলগুলি আবেদন করতে পারেন। তবে হলগুলিকে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার আগে প্রশাসনের তরফে প্রত্যেকটি হলের বর্তমান পরিস্থিতি খতিয়ে দেখা হবে, তারপর সেই হল্গুলি আদেও সাহায্য পাবেন কিনা সেবিষয়ে রাজ্য সরকারের তরফে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে৷

আমফানে ক্ষতিগ্রস্ত একাধিক সিনেমা হল, আর্থিক সাহায্যের আশ্বাস রাজ্যের 1