এবার বাইরে গিয়ে আটকে পড়া মানু্ষের হাতের কাছেই পড়শি নগরের ঠিকানা দেবে গুগুলই

211
Advertisement

নিজস্ব সংবাদদাতা: লকডাউনের সাঁড়াশি এখন ভারত জুড়ে। বন্ধ কলকারখানা, দোকান পাট, হোটেল, রেস্তোরাঁ। বেড়াতে গিয়ে আটকে পড়েছেন বহু মানুষই। হাতে টাকা আছে কিন্তু কোথায় পাবেন খাবার দাবার ? যেখানে আছেন তার চেয়ে একটু ভাল জায়গা খুঁজছেন নিজের মত করে পরিবার নিয়ে রাত কাটানোর । কিংবা এখুনি দরকার কোনও একটা গুরুত্বপুর্ন দ্রব্য। ধরা যাক এই মুহূর্তেই অচল হয়ে গেছে আপনার মোবাইল ফোনের ব্যাটারি কিংবা চার্জারটা। কী? আপনার কাছে দ্বিতীয় নেই! কিংবা কেউ কী জানত আর কিছুক্ষনের মধ্যেই লকডাউন হবে আর তার প্রভাব কতটা ? স্যানিটারি ন্যাপকিন কিনেই রাখা হয়নি। এখন চলবে কী করে ? সেই একই খাবার খাচ্ছেন ১৪দিন ধরে। স্বাদ বদলাতে চাইনিজ কিংবা তন্দুরি খেতে ইচ্ছা করছে? কোথায় যাবেন ? রেস্তোরাঁ যে বন্ধ ! কুছ পরওয়ানা নেই । এবার সবকিছুর সুলুক সন্ধান দেবে গুগুলই ।

Advertisement

 

Advertisement
Advertisement

ওই সব ছোটখাটো জিনিসের পাশাপাশি গুগল ম্যাপ আপনাকে আরও জানিয়ে দেবে কোথায় খাওয়ার পাশাপাশি নাইট স্টে বা রাতে থাকার জায়গা পাওয়া যাবে। প্রাথমিক ভাবে ভারতের ৩০ টির মতো শহরে এই পরিসেবা চালু করা হলেও পরে আরও কিছু জায়গা যোগ হতে পারে বলে জানা গেছে। আর এই কাজটা গুগুল করছে কেন্দ্র ও সংশ্লিষ্ট রাজ্য সরকারের সাথে পরামর্শ করেই।
এবার দেখে নিন কিভাবে খুঁজবেন থাকার যায়গা এবং খাওয়ার জায়গা। এর জন্য সবার প্রথমে আপনাকে যেতে হবে গুগল ম্যপস এ তারপর সার্চ করতে হবে

Food Shelters in < সেই শহরের নাম > অথবা Night Shelters in < সেই শহরের নাম >
তারপরেই আপনার পাশাপাশি সমস্ত কিছু বিস্তারিত ভাবে আপনার সামনে হাজির করে দেবে।

জানা গেছে কিছুদিনের মধ্যেই গুগল এটি হিন্দি ও স্থানীয় ভাষায় চালু করবে এবং ম্যাপে আরও আরও বেশি পরিমানে স্থান যোগ করবে বলে জানা গিয়েছে। এতে বাইরে থাকা‌ মানুষের অনেক সুবিধা হবে বলে আশা করা যায়। এরফলে যে সব মানুষেরা যারা কিনা লকডাউনের জন্য বাইরে গিয়ে আটকে গিয়েছেন তাঁদের সব চেয়ে বেশি সুবিধা হবে।

 

উল্লেখ্য হঠাৎ করে লকডাউন হওয়ায়, ট্রেন, বিমান ও যাত্রীবাহী বাস ইত্যাদি বন্ধ হয়ে যাওয়ায় হাজার হাজার মানুষ ভিন প্রদেশের ধর্মস্থান কিংবা পর্যটন কেন্দ্রে গিয়ে আটক হয়ে পড়েছেন। তাঁদের জন্য গুগুলের এই পড়শি নগরের এই ঠিকানা অত্যন্ত কার্যকরী হবে বলেই মনে করা হচ্ছে।