ডাক্তার হওয়ার স্বপ্ন নিয়ে বিহার থেকে কলকাতায় আসা, ১০ মিনিট দেরি হওয়ায় পরীক্ষায় বসতে বাধা, স্বপ্নভঙ্গ NEET পরীক্ষার্থীর

166

ওয়েব ডেস্ক : NEET পরীক্ষা দিতে ৭০০ কিলোমিটার পথ পেরিয়ে বিহার থেকে কলকাতায় পৌঁছেছিল এক পরীক্ষার্থী। কিন্তু পরীক্ষাকেন্দ্রে ঢুকতে দেরি হয়েছে মাত্র ১০ মিনিট। তাতেই ওই পরীক্ষার্থীকে NEET-তে বসতে দিলনা কর্তৃপক্ষ। রবিবার ঘটনাটি ঘটেছে বিধাননগরে। একেই ট্রেন নেই, রাস্তায় বাসও প্রায় অমিল তবুও ডাক্তার হওয়ার একরাশ স্বপ্ন নিয়ে মাত্র ২৪ ঘন্টায় ৭০০ কিমি পাড়ি দিয়ে বিহারের দ্বারভাঙা থেকে কলকাতায় পাড়ি দিয়েছিল সন্তোষ কুমার যাদব নামে ওই NEET পরীক্ষার্থীকে। কিন্তু নির্দয় পরীক্ষার দায়িত্বপ্রাপ্ত আধিকারিকরা। ফলে কোনোমতেই ওই পরীক্ষার্থীকে পরীক্ষাকেন্দ্রে বসতে দেওয়া হল না ওই পরীক্ষার্থী।

আরও পড়ুন -  রাখি বেচেই কুলি আর হকারদের রেশন তুলে দিচ্ছেন রকি তুলিকা প্রীতিরা

ওই পরীক্ষার্থী জানিয়েছেন, রবিবার পরীক্ষাকেন্দ্রে সময়ে পৌঁছাতে হবে। এদিকে নেই ট্রেন। ভাড়ার গাড়ি বিহার থেকে কলকাতায় আসতে দাবি করে প্রায় কয়েক হাজার টাকা। ফলে অগত্যা শনিবার সকাল ৮টা নাগাদ দ্বারভাঙা থেকে বাসেই কলকাতার উদ্দেশ্যে যাত্রা করেন ওই পরীক্ষার্থী। কিন্তু পথে যানজট থাকায় কলকাতায় পৌঁছন রবিবার বেলা ১টা নাগাদ। এরপরই কোনোক্রমে ধর্মতলা থেকে ট্যাক্সিতে সে যখন বিধাননগরে তার পরীক্ষাকেন্দ্রে গিয়ে পৌঁছয় তখন বাজে দুপুর ১.৪০ মিনিট। এদিকে পরীক্ষাকেন্দ্রে ঢোকার শেষ সময় ছিল বেলা ১.৩০ মিনিট। মাত্র ১০ মিনিট দেরি হওয়ায় তাকে পরীক্ষাকেন্দ্রে ঢুকতে বাধা দিলেন নিরাপত্তারক্ষীরা।

এদিকে ওই পরীক্ষার্থী একাধিকবার তাঁর দেরির কারণ জানালেও পরীক্ষাকেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত আধিকারিকের তরফে শেষ পর্যন্ত পরীক্ষাকেন্দ্রে ঢোকার অনুমতি পায়নি ছাত্রটি। কিন্তু এদিকে পরীক্ষা শুরুর সময়সীমা দুপুর ২টো থেকে। পরীক্ষা শুরুর অনেক আগেই পরীক্ষাকেন্দ্রে পৌঁছে গিয়েছিল সন্তোষ কুমার যাদব। কিন্তু প্রোটোকল অনুযায়ী পরীক্ষাকেন্দ্রে ঢুকতে মাত্র ১০ মিনিট দেরি হওয়ায় ডাক্তার হওয়ার স্বপ্ন বিসর্জন দিতে হল দরিদ্র পরিবারের ছেলে সন্তোষকে৷

ডাক্তার হওয়ার স্বপ্ন নিয়ে বিহার থেকে কলকাতায় আসা, ১০ মিনিট দেরি হওয়ায় পরীক্ষায় বসতে বাধা, স্বপ্নভঙ্গ NEET পরীক্ষার্থীর 1