বাড়ি বাড়িতে ক্যালেন্ডার আর গাড়ি গাড়িতে স্টিকার দেবে পশ্চিম মেদিনীপুর পুলিশ

433
Advertisement

নিজস্ব সংবাদদাতা: করোনা মোকাবিলা আর লকডাউন কার্যকর করতে এবার মিঠা কড়া পথে চলবে পশ্চিম মেদিনীপুর পুলিশ। করোনা আতঙ্কে বাঙালির নববর্ষ মাটি হয়েছে। পুরোনো খাতা ছেড়ে দোকানদের হালখাতায় নাম তোলা হয়নি। হয়নি মিষ্টি মুখ আর ক্যালেন্ডার প্রাপ্তি। এসব কথা মাথায় রেখেই এবার বাড়িতে বাড়িতে নববর্ষের বাংলা ক্যালেন্ডার পৌঁছে দেবে পশ্চিম মেদিনীপুর পুলিশ। ক্যালেন্ডার না পাওয়ার মনস্তাপ কিছুটা হলেও যাতে ঘুচে তাই এই অভিনব ভাবনার পথে করোনা যুদ্ধের খাঁকি উর্দির সৈনিকদের। নববর্ষের বাংলা ক্যালেন্ডারে তারিখ আর পঞ্জিকা তো থাকছেই সঙ্গে থাকছে করোনা মোকাবিলায় একগুচ্ছ প্রেসক্রিপশন আর লকডাউনের বিধি সম্বলিত ছবি।

Advertisement

এরই পাশাপাশি পুলিশের বাংলা নতুন বছরের জন্য আরও একটি অভিনব বিষয়। এবার রাস্তায় বের হওয়া বাইকগুলিতে বিশেষ লকডাউন স্টিকার লাগাবে পুলিশ আর সেই স্টিকারে একটি করে চিহ্ন পড়বে বাইরে বেরিয়ে পুলিশের হাতে পড়লে। পুলিশ আবার তাতে তারিখ সম্বলিত চিহ্ন দেবে। এরফলে একজন বাইক আরোহী কতবার বাইরে বের হচ্ছে তার উদাহরন পাওয়া যাবে। পুলিশ জানাচ্ছে কিছু নির্দিষ্ট ব্যক্তি বারংবার নানা অজুহাতে বাইরে বের হচ্ছে। এঁদের চিহ্নিত করা সহজ হবে এই স্টিকার লাগলে। বুধবার থেকেই এই কাজ শুরু হয়ে গেছে মেদিনীপুর শহরে। পশ্চিম মেদিনীপুর পুলিশ সুপার দিনেশ কুমার জানিয়েছেন , ‘প্রথমে সতর্ক তারপর লকডাউন ভাঙার অপরাধে গ্রেপ্তার ও কঠোর মামলা দেওয়া হবে নিয়মভঙ্গকারীদের।’

Advertisement
Advertisement

ইতিমধ্যেই মানুষকে আরও সচেতন করতে নানা ধরনের ব্যবস্থা গ্রহন করেছে পুলিশ। বুধবার তার আরেক প্রক্রিয়া হিসাবে ‘স্টে হোম, স্টে সেফ’ লেখা টি-শার্ট, যা সিভিক পুলিশেরা পরে প্রচার করেছেন। জেলা পুলিশ সুপার বলেন, রাজ্য সরকারের নির্দেশে করোনা মোকাবিলায় যে লকডাউনের সময়সীমা বাড়ানো হয়েছে। তাই জেলা পুলিশ আরোও কড়া পদক্ষেপ গ্রহণ করে লকডাউনকে সম্পূর্ণ সফল করার ক্ষেত্রে তৎপর ভূমিকা পালন করছে এবং আগামীদিনে করবে। সব মিলিয়ে পুলিশ এখন নরমে এবং গরমে হাঁটার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।