Homeএখন খবরকোচবিহারের মদের দোকানের মালিককে অপহরণের ছক ভেস্তে দিল পুলিশ! দিনহাটা থেকে গ্রেপ্তার...

কোচবিহারের মদের দোকানের মালিককে অপহরণের ছক ভেস্তে দিল পুলিশ! দিনহাটা থেকে গ্রেপ্তার আন্তঃরাজ্য দুষ্কৃতি দল, উদ্ধার আগ্নেয়াস্ত্র

Advertisement

নিজস্ব সংবাদদাতা: বাংলাদেশ সীমান্ত ঘেঁষে কোচবিহারের দিনহাটায় ঘাপটি মেরে বসে থাকা বিহার ও উত্তরপ্রদেশের একাধিক দুস্কৃতিকে গ্রেপ্তার করল পুলিশ। এরই সঙ্গে ভেস্তে দেওয়া হল তাদের বড়সড় একটি অপহরণের ছক। দুস্কৃতিদের কাছ থেকে উদ্ধার হয়েছে একাধিক আগ্নেয়াস্ত্র। জানা গেছে কোচবিহার শহরের এক মদের দোকানের মালিককে অপহরণের পর মোটা মুক্তিপণ আদায়ের ছক কষেছিল ওই দুস্কৃতির দল। সঙ্গে ছিল দিনহাটার দুই বাসিন্দা। পুলিশ তাদেরও গ্রেপ্তার করেছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে অপরাধীদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে দিনহাটার ভরত কলোনি থেকে। সেখানে একটি বাড়ি ভাড়া করে অপহরণের ছক কষে ছিল ওই ব্যক্তিরা। নির্দিষ্ট সূত্র মারফৎ খবর পেয়ে সেখানে অভিযান চালায় কোচবিহার কোতোয়ালি থানার পুলিশ। আর তারপরই বেআইনি আগ্নেয়াস্ত্র সহ গ্রেফতার করা হয় ৬জন দুষ্কৃতীকে। সোমবার ভোরে এই অপারেশন চালানো হয়। ভোরেই ঘিরে ফেলা হয় বাড়িটি। পুলিশের ফাঁদ কেটে বেরুনোর কোনোও সুযোগই পায়নি তারা। তাদের কাছ থেকে ২টি আগ্নেয়াস্ত্র সহ ১০ রাউন্ড গুলি উদ্ধার হয়েছে বলে জানা গেছে যা কিনা বাজেয়াপ্ত করেছে পুলিশ। ধৃতদের মধ্য ২জনের বাড়ি দিনহাটায়। তাদের সঙ্গেই উত্তরপ্রদেশের ২জন ও অসমের ১ জন ছিল। আরও ১জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

ধৃতরা এই এলাকায় অন্যান্য অপরাধ বিশেষ করে মাদক পাচারের সঙ্গেও জড়িত বলে পুলিশের কাছে প্রাথমিক প্রমানও এসেছে। জেলা পুলিশ জানিয়েছে, দিনহাটার দুজন বাসিন্দা ২টি আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে ওই ভাড়া বাড়িতে এসেছিল। ওই ভাড়া বাড়িতে আগে থেকেই ভিনরাজ্যের দুষ্কৃতীরা ছিল। মূলত অপরাধমূলক কাজের সঙ্গেই তারা যুক্ত। তাদের ভাড়া করে নিয়ে আসা হয়েছিল। জেলা পুলিশ সুপার দেবাশিস ধর বলেন, ধৃতদের কাছ থেকে আগ্নেয়াস্ত্র ও গুলি পাওয়া গিয়েছে।

পুলিশ সূত্রে খবর, ধৃতদের জেরা করে প্রাথমিকভাবে জানা গিয়েছে, কোচবিহার রাজবাড়ি সংলগ্ন একটি মদের দোকানের মালিককে অপহরণের ছক কষেছিল এই দুষ্কৃতীদল। কিন্তু তার আগেই সেই ছক বানচাল করে পুলিশ। এদিকে এর আগেও দিনহাটা থেকে একাধিক অস্ত্র কারবারীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পুলিশের দাবি, সীমান্তের বিভিন্ন এলাকায় বিহারের অস্ত্রকারবারীদের যোগ রয়েছে। তাদের খোঁজ পেতে পুলিশের একটি স্পেশাল টিমও তৈরি করা হয়েছে। আন্তঃরাজ্য অস্ত্র ও মাদক কারবারীদের খোঁজ পেতে বিশেষ উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। এই বিশেষ দলটিই নিজেদের সূত্র মারফৎ এই অপরাধীদের জড়ো হওয়ার খবর পেয়েই অপারেশন চালায়।

Advertisement

Advertisement

RELATED ARTICLES

Most Popular