দলের প্রতি ক্ষোভ উগরে দিয়ে দল ছাড়লেনতৃণমূলের পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার কিষান ক্ষেতমজুর সেলের সভাপতি

290
দলের প্রতি ক্ষোভ উগরে দিয়ে দল ছাড়লেনতৃণমূলের পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার কিষান ক্ষেতমজুর সেলের সভাপতি 1

নিজস্ব সংবাদদাতা, গোয়ালতোড় :- দলের প্রতি একরাশ ক্ষোভ উগরে দিয়ে নিজের অনুগামী দের নিয়ে দল ছাড়লেন পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার তৃণমূলের কিষাণ ক্ষেতমজুর সেলের জেলা সভাপতি দুলাল মন্ডল। বৃহস্পতিবার গোয়ালতোড়ের গাংদুয়ারীতে নিজের বাড়িতে বসেই ইস্তফা পত্র পাঠিয়ে দেন বিভিন্ন মহলে৷ যা নিয়ে ইতিমধ্যেই গোয়ালতোড় এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। জানা গিয়েছে শুভেন্দু অধিকারী তার মন্ত্রিত্ব সহ বিধায়ক ও দলীয় সদস্য পদ থেকে ইস্তফা দেওয়ার পরই তারই অনুগামী হিসাবে পরিচিত পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার তৃণমূল কিষান ক্ষেতমজুর সেলের সভাপতি তথা গোয়ালতোড় এলাকার দোন্ডর্তপ্রতাপ নেতা দুলাল মণ্ডল এদিন প্রায় একশো তৃণমূল কর্মীকে সঙ্গে নিয়ে দল থেকে পদত্যাগ করলেন। যদিও তার এই দলছাড়ার ঘটনায় দলে কোনো প্রভাব পড়বে না বলেই জানান গোয়ালতোড় ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি ভাস্কর চক্রবর্তী।

এদিন দুপুরে নিজের বাড়িতেই বেশ কিছু অনুগামী দের নিয়ে বৈঠক করেন তিনি। তার পরই সিদ্ধান্ত নেন দল ছাড়ার৷ দল ছাড়ার ব্যাপারে বলতে গিয়ে দুলাল মন্ডল দলের প্রতি একাধিক ক্ষোভ উগরে দিয়ে বলেন,”১৯৯৮ সাল থেকে দল করে আসছি হার্মাদ ও মাওবাদীদের কার্যকলাপের মাঝে, আতঙ্কের মধ্যেও দলকে ব্লকে প্রতিষ্ঠায় পৌঁছিয়েছি। কিন্তু সেই দল থেকে কোনো মর্যাদা পাওয়া যায়নি। পাশাপাশি পেয়েছি শুধু লাঞ্ছনা ও অপমান”। শুধু তাই নয়, “দীর্ঘদিন ধরে দলের কার্যকলাপ থেকে দূরে সরে থাকলেও শীর্ষ নেতৃত্বের কোন সহানুভুতি পাইনি।” পাশাপাশি এদিন বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি শালবনীর বিধায়ক শ্রীকান্ত মাহাত ও গড়বেতার বিধায়ক আশীষ চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে একাধিক ক্ষোভ উগরে দেন।
দুলাল বাবু বলেন, “আগামী ১৯ তারিখ মেদিনীপুরের কলেজ মাঠে অমিত শাহ এর সভাতে জেলার একাধিক তৃণমূল নেতৃত্ব যোগদান করতে চলেছে বিজেপিতে। পাশাপাশি শুভেন্দু অধিকারী কে তার প্রাপ্য মর্যাদা দিতে পারেনি তৃণমূল। তার জনপ্রিয়তা কমানোর জন্য একাধিক পদক্ষেপ নিয়েছে তৃণমূল এমনটাই মন্তব্য করেন দুলাল মণ্ডল। পাশাপাশি প্রশান্ত কিশোরের দল পরিচালনা করা প্রসঙ্গে তিনি বলেন তারাও এক দুর্নীতিবাজ তাদের কর্মীরা এলাকায় এলেও প্রকৃত যারা তৃণমূল করতেন তাদের কোনো খোঁজ-খবর নেন না বা তাদের সঙ্গে কোন কথা বলেন না।

দলের প্রতি ক্ষোভ উগরে দিয়ে দল ছাড়লেনতৃণমূলের পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার কিষান ক্ষেতমজুর সেলের সভাপতি 2

যেখানে মর্যাদা নেই যেখানে আত্মসম্মান নেই সেই দল না করাই ভালো এমনটাই মন্তব্য করলেন তৃণমূলের কিষান ক্ষেতমজুর সেলের সভাপতি দুলাল মণ্ডল। পাশাপাশি তিনি তার পদত্যাগপত্র বেচারাম মান্না কে ইতিমধ্যেই হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে পাঠিয়ে দিয়েছেন বলে জানান। যদিও এই ব্যাপারে ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি ভাস্কর চক্রবর্তী জানান,”এর ফলে দলের কোনো ক্ষতি হবে না এরা সবাই দুর্নীতিবাজ। এদের দুর্নীতির জন্যই আজ গোয়ালতোড়ে তৃণমূল কংগ্রেসের অবস্থা তলানিতে ঠেকেছে৷ এদের দল থেকে চলে যাওয়া দলের পক্ষে মঙ্গল “।