চলন্ত গাড়ি থেকে পয়েন্ট ব্ল্যাঙ্ক রেঞ্জে প্রমোটারকে খুন ২ দুষ্কৃতির, ব্যবসায়ীক শত্রুতার জেরেই খুন, দাবি পরিবারের

273
চলন্ত গাড়ি থেকে পয়েন্ট ব্ল্যাঙ্ক রেঞ্জে প্রমোটারকে খুন ২ দুষ্কৃতির, ব্যবসায়ীক শত্রুতার জেরেই খুন, দাবি পরিবারের 1

ওয়েব ডেস্ক : ফোন করে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে গিয়ে এক প্রমোটারকে পয়েন্ট ব্ল্যাঙ্ক রেঞ্জে গুলি করে খুন করলো ২ দুষ্কৃতি। শনিবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে হাওড়াত ব্যাঁটরা থানা অন্তর্গত ইস্ট–ওয়েস্ট বাইপাসে বেলিলিয়াস পার্কের কাছে। মৃত ব্যক্তি বছর ৪৫ এর অমিত হাইত ওরফে বুবুন এলাকায় প্রমোটার হিসেবে পরিচিত। জানা গিয়েছে শনিবার রাত ৮টা নাগাদ এক ব্যক্তির ফোন পেয়ে তাঁর সাথে দেখা করতে বেরিয়েছিলেন অমিতবাবু। এরপর বেলিসিয়াস পার্কের কাছে আচমকা উলটো দিক থেকে আসা একটি চলন্ত বাইক থেকে পয়েন্ট ব্ল্যাঙ্ক রেঞ্জে অমিত হাইতকে গুলি করে চম্পট দেয় দুই দূষ্কৃতি। ঘটনায় এলাকার সিসি টিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখে ইতিমধ্যেই দুই দুষ্কৃতীকে চিহ্নিত করা হলেও যেহেতু তাদের মুখে মাস্ক ছিল, সেকারণে তাদের মুখ দেখা যাচ্ছে না বলে জানিয়েছে পুলিশ। তবে ইতিমধ্যেই জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৫ জনকে আটক করা হয়েছে।

আরও পড়ুন -  সাতসকালে খাস কলকাতায় ট্যাক্সির ডিকি থেকে উদ্ধার প্রৌঢ়ার মৃতদেহ, আটক চালক সহ ৩

ঘটনায় মৃতের পরিবারের অভিযোগ, ব্যবসায়ীক শত্রুতার কারণেই অমিতবাবুকে খুন করা হয়েছে। তারা জানান, শনিবার রাত ৮ টা নাগাদ অমিতবাবুর ফোনে একটি ফোন আসে। সেই ফোনটি পেয়েই হন্তদন্ত হয়ে বাড়ি থেকে বেরিয়ে যান অমিত। তবে কার ফোন এসেছিল কিমগবা কার সাথে দেখা করতে যাচ্ছেন তা কিছুই পরিবারকে জানিয়ে যাননি অমিতবাবু। তবে এদিন তিনি একা যাননি। স্কুটারের পিছনে একজনকে নিয়ে বেলিলিয়াস পার্কের পাশ থেকে যাওয়ার সময় উল্টোদিক থেকে আসা বাইকের আরোহী দুই দুষ্কৃতী অমিতকে লক্ষ্য করে দুই রাউন্ড গুলি চালায়। গুলিটা অনেক কাছ থেকে আসায় বুকে গুলি লেগে গুরুতর জখম হয়ে ঘটনাস্থলেই ওই প্রমোটারের মৃত্যু হয়।

চলন্ত গাড়ি থেকে পয়েন্ট ব্ল্যাঙ্ক রেঞ্জে প্রমোটারকে খুন ২ দুষ্কৃতির, ব্যবসায়ীক শত্রুতার জেরেই খুন, দাবি পরিবারের 2

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, কিছুদিন আগেই এলাকায় একটি বন্ধ হয়ে যাওয়া সিনেমা হলের জায়গা কিনেছিলেন অমিত। সেখানে সিনেমা হলটি ভেঙে ফ্ল্যাট বানানোর পরিকল্পনা ছিল। কিন্তু সেখানে কিছুদিন যাবৎ প্রমোটিং সংক্রান্ত বিবাদ চলছিল। পুলিশের প্রাথমিক তদন্তে অনুমান এর জেরেই গুলি করে খুন করা হয়েছে অমিত হাইতকে। ঘটনার সময় অমিতের সঙ্গে থাকা ব্যক্তি স্কুটারে ছিলেন তাকেও ইতিমধ্যেই জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। তারও বয়ান রেকর্ড করা হবে বলেই জানিয়েছে পুলিশ। তবে সত্যিই কি যিনি ফোন করেছিলেন তিনিই খুন করেছেন অমিত হাইটকে? যদি ব্যাবসায়িক শত্রুই হত তবে কাউকে কিছু না বলে ফোন পেয়েই বা ছুটে গেলেন কেন অমিত বাবু? নাকি ব্যবসায়ীক শত্রুতা ছাড়াও কোনও পারিবারিক বিবাদের হেরেই খুন হতে হল ওই প্রমোটারকে তা ইতিমধ্যেই খতিয়ে দেখছে পুলিশ।