প্রার্থী নিয়ে বিক্ষোভ, শীর্ষ নেতৃত্বের ছবিতে কালি; ৬ প্রভাবশালী নেতাকে শোকজ নোটিস ধরালো পদ্ম শিবির

415
প্রার্থী নিয়ে বিক্ষোভ, শীর্ষ নেতৃত্বের ছবিতে কালি; ৬ প্রভাবশালী নেতাকে শোকজ নোটিস ধরালো পদ্ম শিবির 1

নিউজ ডেস্ক: পছন্দের প্রার্থী না মেলায় বিজেপি কর্মীদের দফায় দফায় বিক্ষোভ ঘিরে উত্তাল উত্তর দিনাজপুর জেলা। পার্টি অফিস ভাঙচুর, শীর্ষ নেতৃত্বের ছবিতে কালী লাগানো আগুন জ্বালিয়ে প্রতিবাদ। সেই ইস্যুতেই এবার ৬ হেভিওয়েট বিজেপি নেতা কে শোকজ করলো পদ্ম শিবির।

প্রার্থী নিয়ে বিক্ষোভ, শীর্ষ নেতৃত্বের ছবিতে কালি; ৬ প্রভাবশালী নেতাকে শোকজ নোটিস ধরালো পদ্ম শিবির 2

সূত্রের খবর অনুযায়ী, উত্তর দিনাজপুরে বিজেপির দলীয় কার্যালয়ে ভাঙচুরের ঘটনায় বেশ ক্ষুব্ধ বিজেপির একটা বড় অংশ। এদিকে, উত্তর দিনাজপুরে প্রার্থীকে পছন্দ না হওয়ার তাঁর বিরুদ্ধে ক্ষোভ দেখিয়ে পার্টি কার্যালয় ভাঙচুর করা হয়। শুধু তাই নয়, কেন্দ্রীয় শীর্ষ নেতৃত্বদের ছবিতে কালী মাখানোর পাশাপাশি ছবিগুলোতে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। বন্ধ করে দেওয়া হয় বিজেপির বেশ কয়েকটি কার্যালয়ও। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী দেবশ্রী চৌধুরীর রাখা ছবিতে কালি দিয়ে দাগ এঁকে এবং দলীয় কার্যালয়ে ভাঙচুর করে প্রতিবাদ জানানো হয়। এই প্রতিবাদে সামিল হন এলাকার বিজেপির কর্মী-সমর্থকরা।। তারপরই দলের নিয়ম মেনে শোকজ করা হয়েছে ওই ভাঙচুরের ঘটনার সঙ্গে জড়িত ৬ হেভিওয়েট নেতাকে।

প্রার্থী নিয়ে বিক্ষোভ, শীর্ষ নেতৃত্বের ছবিতে কালি; ৬ প্রভাবশালী নেতাকে শোকজ নোটিস ধরালো পদ্ম শিবির 3

সামনেই বিধানসভা ভোট। এর মাঝেই বেশ কিছুদিন ধরে বিজেপির প্রার্থী তালিকা প্রকাশ হতেই বাংলার দিকে দিকে একের পর এক ক্ষোভ বিক্ষোভের ছবি ধরা পড়তে শুরু করে । বহু জায়গায় প্রার্থীর নাম পছন্দ না হওয়ায় গেরুয়া দলের একাংশের বিক্ষোভে অস্বস্তিতে পড়েছে পদ্ম শিবির। এমন অবস্থায় দলের অন্দরের বিক্ষোভকে কড়া হাতে দমনে ব্রতী হল দল। ৬ হেভিওয়েট বিজেপি নেতা কে শোকজ করলো পদ্ম শিবির। ওই শোকজ নেটিসে দলীয় কার্যালয় ভাঙচুরের ঘটনায় কারণ জানতে চাওয়া হয়েছে। যাঁদের শোকজ করা হয়েছে তাঁরা হলেন কালিয়াগঞ্জের রাণা প্রতাপ ঘোষ, চাকুলিয়ার শম্ঙু মণ্ডল, এছাড়াও রয়েছেন দিলীপ ঋষি, সন্দীপ ভট্টাচার্য, কলীদাস বিশ্বাস, সুভাষ সিংহরা। এঁরা দলীয় কনভেনার। ৩ দিনের মধ্যে তাঁদের শো কজ নোটিশের জবাব দিতে বলা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

উল্লেখ্য,পশ্চিমবঙ্গ সহ বিভিন্ন জেলায় পঞ্চম ও শেষ দফা নির্বাচনে বিজেপি প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করতেই রাজ্যের দিকে দিকে বিক্ষোভের আগুন দেখা যায়। পরিস্থিতি দমনে খানিকটা সময় ধরে অবশ্য নীরবতার পন্থাই অবলম্বন করেছিলেন বিজেপির নেতৃত্বের একাংশ। তারপরই শুরু হয়েছে শো-কজ নোটিসের পর্ব। দলের নিয়মের ভাঙন কেউ ধরালেই তাঁকে যে শোকজের মুখে পড়তে হতে পারে, তা জিতেন্দ্র তিওয়ারি ইস্যুতে সায়ন্তন বসু থেকে অগ্নিমিত্রা পলদের দিয়েই বিজেপির রাজ্য নেতৃত্ব বুঝিয়ে দিয়েছিল। এবার প্রার্থী নিয়ে বিক্ষোভের কারণে উত্তর দিনাজপুরে বিজেপির ৬ হেভিওয়েটের শোকজের ঘটনা রীতিমতো নজর কাড়তে শুরু করে দিয়েছে।

Previous articleমর্মান্তিক পথ দুর্ঘটনায় মৃত্যু ১২ জন অঙ্গনওয়ারি কর্মীর শোকস্তব্ধ গোয়ালিওর 
Next article“এক পায়ে এক শটেই ওদের মাঠের বাইরে বের করে দেব”- পুরুলিয়ার জনসভা থেকে বিজেপিকে হুঁশিয়ারি মমতার