সফর শেষে অমিত শাহের সাথে বৈঠক রাহুল সিনহার, রাজ্যে গুরুত্বপূর্ণ পদ পেতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে আর্জি রাহুলের

643
সফর শেষে অমিত শাহের সাথে বৈঠক রাহুল সিনহার, রাজ্যে গুরুত্বপূর্ণ পদ পেতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে আর্জি রাহুলের 1
সফর শেষে অমিত শাহের সাথে বৈঠক রাহুল সিনহার, রাজ্যে গুরুত্বপূর্ণ পদ পেতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে আর্জি রাহুলের 2

ওয়েব ডেস্ক : মাস কয়েক আগে কেন্দ্রীয় সম্পাদক পদ থেকে তাকে সরিয়ে দেওয়ার পর একাধিক মন্তব্য করেছিলেন তিনি। এমনকি আগামী ১০-১২ দিনের মধ্যেই নিজের রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ সকলের কাছে স্পষ্ট করার দাবিও করেছিলেন তিনি। কিন্তু সপ্তাহ গড়িয়ে মাস পড়লেও এখনও পর্যন্ত তাঁর রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ স্পষ্ট তো করেননি, বরং সমস্ত সভা সমাবেশ, আন্দোলন থেকে নিজেকে দূরেই রেখেছিলেন রাহুল সিনহা। শুধু তাই নয় কেন্দ্রীয় সম্পাদকের পদ থেকে তাকে সরিয়ে দেওয়ার পর বিস্ফোরক মন্তব্য করে তিনি বলেছিলেন, “৪০ বছর বিজেপি’‌র সেবা করেছি। তারপর এটাই প্রাপ্য ছিল। তৃণমূল থেকে আসা নেতা–কর্মীদের বেশি গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। আর যাঁরা সারাজীবন বিজেপি করল তাঁরা আজ ব্রাত্য।” কিন্ত গেরুয়া শিবিরের বিরুদ্ধে এতকথা বলার পর বিজেপিতে কোনো গুরুত্বপূর্ণ পদ পেতে শুক্রবার তাঁকে অমিত শাহের সঙ্গে আলাদা বৈঠক করতে দেখা গিয়েছে।

বৃহস্পতিবার দু’‌দিনের সফরে বাংলায় এসেছিলেন দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। এতদিন গেরুয়া শিবিরের ধারে কাছে আসতে না দেখলেও অমিত শাহ রাজ্যে আসতেই প্রবল তৎপর হয়ে উঠলেন রাহুল সিনহা। অমিত শাহের আশেপাশে সর্বত্রই দেখা গেল রাহুল সিনহাকে। শেষমেশ দু’দিনের সফর শেষে শুক্রবার অমিত শাহের সঙ্গে বৈঠকে বসলেন রাহুল সিনহা। জানা গিয়েছে, অমিত শাহের সাথে বৈঠকে নিজের ক্ষোভের কথা তিনি হাসিমুখে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে। সগুধু তাই নয়, এদিন তিনি অমিত শাহকে অনুরোধ করে জানিয়েছেন, কেন্দ্রীয় সম্পাদকের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ায় বাংলার রাজনীতিতে তিনি কোণঠাসা হয়ে পড়ছেন। তাই নির্বাচনের আগে রাজ্যে আন্দোলন সক্রিয় করে তুলতে হলে তাঁকে একটা ভাল জায়গা দেওয়া হোক।

সফর শেষে অমিত শাহের সাথে বৈঠক রাহুল সিনহার, রাজ্যে গুরুত্বপূর্ণ পদ পেতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে আর্জি রাহুলের 3

তবে রাহুল সিনহা অমিত শাহের কাছে নতুন পদ চেয়ে আবদার করলেও বিভাজন এবং ব্যক্তিগত উচ্চাকাঙ্খা দূরে সরিয়ে তিনি সবাইকে এক হয়ে কাজ করার বার্তাই দিয়েছেন। অমিত শাহের কথায়, “এখন পাঁচ মাস পরিশ্রম করুন তাহলে পঞ্চাশ বছর রাজত্ব করতে পারবেন। সোনার বাংলা গড়তে সাহায্য করুন।” তবে এই একই কথা রাহুল সিনহার পাশাপাশি গেরুয়া শিবিরের বৈঠকেও একই কথা বলেছেন। এখন দেখার বিষয় দিল্লি ফিরে গিয়ে অমিত শাহ কোনও পদক্ষেপ করেন কিনা রাহুল সিনহার জন্য।