৩দিনের মধ্যেই ফেসবুক (Facebook)লাইভে আসছেন রাজীব! কী বলবেন? সংশয় শাসকদলের অন্দরে

76
৩দিনের মধ্যেই ফেসবুক (Facebook)লাইভে আসছেন রাজীব! কী বলবেন? সংশয় শাসকদলের অন্দরে 1

অশ্লেষা চৌধুরী: ফেসবুক (Facebook )লাইভে আসছেন রাজীব, ঘোষণা ঘিরে সংশয় দানা বাঁধছে শাসকদলের অন্দরে। রাজীব নিজে ফেসবুক পেজে লিখেছেন, ‘সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছানোর জন্যে সবচেয়ে শক্তিশালী মাধ্যম হিসেবে আমি সবসময় সোশ্যাল মিডিয়াকেই এগিয়ে রাখি। আগামী ১৬ জানুয়ারি শনিবার ফেসবুক লাইভে আসছি।’

আর রাজীবের এই পোস্ট ঘিরে বঙ্গ রাজনীতিতে ফের চড়ছে জল্পনার পারদ। একে তো যেদিন থেকে শুভেন্দু পদ্ম শিবিরে যোগ দিয়েছেন, তারপর থেকেই বেসুরো বাজতে শুরু করে দিয়েছেন রাজ্যের বনমন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। নানান জায়গায় দলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিচ্ছেন মন্ত্রী। চারদিকে তার ভক্ত ও অনুগামীরা ভরিয়ে তুলছে পোস্টার। আর সেই পোস্টার বুকে সেটে আবার জসভায় করতে দেখা গিয়েছে তাঁর ভক্ত কূলকে। সেই থেকেই সন্দেহ দানা বাঁধতে থাকে তিনিও কী শুভেন্দুকেই অনুসরণ করে একই পথে পা পারাবেন! এই ড্যামেজ কন্ট্রোল করতে রাজ্য নেতৃত্ব নামে ময়দানে, কিন্তু তারপরেও সঠিক সুরে ফেরান যায়নি রাজীবকে। এরপর রাজ্য মন্ত্রীসভার বৈঠকে অনুপস্থিত থাকাতে হ্যাট্রিক করে দলবিরোধী জল্পনা আরও উসকে দিয়েছেন তিনি।

৩দিনের মধ্যেই ফেসবুক (Facebook)লাইভে আসছেন রাজীব! কী বলবেন? সংশয় শাসকদলের অন্দরে 2

এদিকে সামনেই একুশের নির্বাচন, আর তাঁর আগেই একের পর এক চমকে স্তম্ভিত রাজ্যবাসী। সময় যত গড়াচ্ছে প্রতিদিন নতুন নতুন রাজনৈতিক সমীকরণে আরও হতবাক হচ্ছেন রাজ্যবাসী। সবাইকে চমকে দিয়ে ঝাঁকে ঝাঁকে যেভাবে তৃণমূলের প্রথম সারির নেতৃত্বরা নাম লিখিয়েছেন পদ্ম শিবিরে, তাতে চিন্তার ভাঁজ পড়েছে শাসকদলের কপালে। যদিও তা প্রকাশ্যে জাহির করতে নারাজ শাসকদল।

এই এত সবের মাঝেই আবার রাজীবের ফেসবুক লাইভের ঘোষণা, যা ফের জল্পনার সৃষ্টি করেছে বঙ্গের রাজনৈতিক আঙিনায়। আগামী ১৬ জানুয়ারি, যেদিন দেশজুড়ে টিকাকরণ শুরু হবে সেদিন তিনি ফেসবুক লাইভ (Facebook)করবেন বলে জানিয়েছেন রাজীব স্বয়ং। তিনি এখন হাওড়া জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের কো–অর্ডিনেটর। তাই বঙ্গ–রাজনীতিতে জল্পনা শুরু হয়েছে, সোশ্যাল মিডিয়ায় কী জানাতে চলেছেন রাজীব বন্দোপাধ্যায়। তিনি এখন হাওড়া জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের কো–অর্ডিনেটর।

এর আগেও মন্ত্রীর একাধিক চমকের জেরে বিপাকে পড়তে হয়েছে শাসকদলকে। তার ওপর আবার ইতিমধ্যেই মন্ত্রিত্ব ও দলীয় পদ ছেড়েছেন হাওড়ার লক্ষীরতন শুক্লা। বেসুরো গাইছেন রথীন চক্রবর্তী। এই অবস্থায় বনমন্ত্রী তথা হাওড়া জেলা তৃণমূলের কো–অর্ডিনেটর রাজীব বন্দোপাধ্যায় ঠিক কী বলতে চলেছেন, সেদিকে চোখ রয়েছে রাজনৈতিক মহলের একাংশ। তাঁর এই ফেসবুক লাইভ নিছকই লাইভ, না এর পেছনে লুকিয়ে আছে কোনও জটিল সমীকরণ, সে রহস্য ভেদ হওয়ার দিকেই তাকিয়ে সকলে।