রেশন না দিয়েই অ্যাপে তোলা হয়েছিল গ্রাহকদের নাম, পশ্চিম মেদিনীপুরে গ্রেপ্তার রেশন দোকানের মালিক

669
Advertisement

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ বৃহস্পতিবারই রেশন ব্যবস্থায় ব্যাপক বেনিয়মের দিকে দৃষ্টি আকর্ষন করে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে খাদ্য সরবরাহ বিভাগের সচিব মনোজ আগরওয়ালকে। মন্ত্রীসভার বৈঠকে মমতা ব্যানার্জীর রোষের মুখে পড়তে হয়েছে তাঁকে। এদিনই মূখ্যমন্ত্রীর কাছে তিরস্কৃত হয়েছেন খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক আর এদিনেই গরীব মানু্ষকেও রেশন না দিয়েই তাঁদের নাম প্রাপ্য তালিকায় তুলে গ্রেপ্তার হলেন পশ্চিম মেদিনীপুরের এক রেশন দোকানের মালিক।

Advertisement

গোয়ালতোড় থানার ওই এম.আর.শপ মালিক রেশনের প্রাপ্য চাল, গম গরীব মানুষকে না দিয়ে নিজেই হজম করছিলেন এমনই অভিযোগে গ্রেফতার করা হয় তাঁকে। অভিযুক্ত, ধৃত রেশন ডিলারের নাম সঞ্জয় ঘোষ। জানা গিয়েছে, গোয়ালতোড়ের মেটালা এলাকার ঐ রেশোন ডিলারের বিরুদ্ধে দীর্ঘদিন ধরেই অভিযোগ উঠছিল। বৃহস্পতিবার তাকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে। জানা গিয়েছে, অভিযুক্ত ঘোষের বিরুদ্ধে প্রায় ৩০ জন উপভোক্তা বিডিও’র কাছে অভিযোগ জানিয়েছিলেন। তাঁদের অভিযোগ,সঞ্জয় ঘোষ তাদের জানিয়েছেন, তাদের কার্ডে কোন রেশন বরাদ্দ হয়নি। অভিযোগ খতিয়ে দেখার পর ডিলারকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

Advertisement
Advertisement

ঘটনার কথা স্বীকার করেছেন গড়বেতা-২ ব্লকের বিডিও সোফিয়া আব্বাস। তিনি বলেন, ‘কিছু উপভোক্তা রেশন না পেয়ে রেশন ডিলার সঞ্জয় ঘোষের নামে অভিযোগ জানাতে এসেছিলেন। বিষয়টি খতিয়ে দেখে পদক্ষেপ গ্রহন করা হয়েছে’।
রাজ্য জুড়ে বিভিন্ন জেলা এমনকি খোদ কলকাতাতেও ব্যাপক অসন্তোষ তৈরি হয়েছে রাজ্যের রেশন ব্যবস্থা নিয়ে। আভিযোগ এমনও উঠেছে যে রেশন দোকানেরই চাল ডাল তুলে নিয়ে গিয়ে তৃনমূল নেতারা ত্রান বিলি করছেনা নিজের ও দলের নামে। আবার লকডাউনের বাজারে অতিরিক্ত খাদ্য বরাদ্দ হওয়ায় তা লুট করছেনা এম.আর.শপ মালিক থেকে ডিলাররা। ঘোষের বিরুদ্ধে আভিযোগ ছিল চাল-গম না দিয়েই, রেশন দেওয়া হয়ে গেছে বলে অ্যাপে আপলোড করে দিচ্ছিলেন তিনি।

অভিযোগ আসার পর তা খতিয়ে দেখেন গড়বেতা ২ পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি মঞ্জু দুলে ও খাদ্য কর্মাধ্যক্ষ সুমিত্রা দে কুণ্ডু অভিযোগ খতিয়ে দেখেন। অভিযোগের সত্যতা যাচাই করার পরই এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়। তাঁর বিরুদ্ধে থানায় এফআইআর দায়ের করা হয় প্রশাসনের তরফে। বৃহস্পতিবার বিকেলে অভিযুক্ত সঞ্জয় ঘোষ গোয়ালতোড়ে ব্লক অফিসের সামনে এসেছিলেন সেখান থেকেই গ্রেফতার করা হয় তাঁকে। পশ্চিম মেদিনীপুর জেলাপরিষদের খাদ্য কর্মাধ্যক্ষ অমূল্য মাইতি বলেন, ” সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছেন প্রশাসন। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই মুহূর্তের উদ্যোগ সবার মুখে অন্ন তুলে দেওয়া। সেটা যেখানে যেখানে ব্যাহত হবে সেখানেই এই ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তিনি যেই হোন রেহাই পাবেননা।”