“রিয়া বলেছেন আমরা নাকি আমাদের ভাইকে ভালোবাসতাম না”, রিয়ার সাক্ষাৎকারের বিরুদ্ধে মন্তব্য শ্বেতার

206

ওয়েব ডেস্ক : দিন কয়েক আগেই এক সর্বভারতীয় সংবাদ মাধ্যমে সাক্ষাৎকার দিয়েছেন রিয়া চক্রবর্তী। সেখানে বেশ কিছু মন্তব্যে স্পষ্ট যে সুশান্ত মৃত্যুতে তাঁর পরিবারকেই কাঠগড়ায় তুলতে চাইছে রিয়া চক্রবর্তী। রিয়ার মন্তব্যের পর একের পর এক টুইটে রিয়ার বিরুদ্ধে রীতিমতো ক্ষোভ উগড়ে দিলেন সুশান্তের দিদি শ্বেতা সিং কীর্তি। শুক্রবার টুইটে সুশান্তের দিদি আফসোস করে বলেন, ”কেন যে তোমার সঙ্গে ভাইয়ের দেখা হয়েছিল।”

সাক্ষাৎকারে রিয়া চক্রবর্তী এমন বেশ কিছু মন্তব্য করেছেন যাতে স্বাভাবিকভাবেই রিয়ার উপর বেজায় চটেছেন সুশান্তের দিদি ও তার পরিবার। এদিন একটি টুইটে শ্বেতা লিখেছেন, ”এই মেয়েটির সঙ্গে ভাইয়ের যদি দেখা না হত তাহলে ভালো হত। কারোর সম্মতি ছাড়া, তাঁকে না জানিয়েই ড্রাগ দেওয়া, তারপর তাঁকে বোঝানো তুমি ভালো নেই। তাঁকে মনোবিদের কাছে নিয়ে যাওয়া। কাউকে আয়ত্তে রাখার জন্য এটা কীধরনের পদ্ধতি! কীভাবে তুমি তোমার মনকে বোঝাবে!! কিন্তু তুমি সেটাই করছো। রিয়াকে এখনই গ্রেফতার করা হোক।”

সাক্ষাৎকারে রিয়ার দাবি, সুশান্ত মানসিকভাবে অসুস্থ হওয়ার পর থেকে তার অসুস্থতার কথা রিয়ার দিদিদের বারংবার জানানো হয়েছে৷ কিন্তু তা সত্ত্বেও তারা সেভাবে গুরুত্ব দেননি। রিয়ার এমন বিস্ফোরক অভিযোগে রীতিমতো বিরক্ত শ্বেতা। এরপরই তার প্রত্যুত্তরে শ্বেতা লিখেছেন,” রিয়া বলেছেন আমরা নাকি আমাদের ভাইকে ভালোবাসতাম না। হ্যাঁ ঠিকই। সেকারণেই হয়ত আমি জানুয়ারিতে আমেরিকা থেকে তড়িঘড়ি দেশে ফিরে এসেছিলাম, যখন শুনলাম ভাই বড়দির কাছে চণ্ডীগড়ে আসছে। যখনই শুনেছিলাম ভাই ভালো নেই, তখনই ব্যবসা, সন্তান সব ফেলে রেখে চলে এসেছিলাম।”

আরও পড়ুন -  বেঁচে ফিরব ভাবতেই পারিনি, এরাই আমাদের সহ নাগরিক ! এখনও আতঙ্ক কাটেনি

সুশান্ত কেন দিদির বাড়ি চণ্ডীগড়ে গিয়েও দুদিনের মধ্যে ফিরে আসেন, তা তাঁর জানা নেই বলে জানিয়েছেন রিয়া। তাঁর কথায়, ”হয়ত সুশান্তের সেখানে ভালো লাগেনি।” এর জবাবে শ্বেতা রিয়া পাল্টা আক্রমণ করেছেন। লিখেছেন, ”আমি তড়িঘড়ি আমেরিকা থেকে দেশে ফিরেও ভাইয়ের সঙ্গে দেখা করতে পারিনি। কারণ, ভাই চণ্ডীগড় থেকে ততক্ষণে ফিরে গিয়েছিল। আর তার কারণ সুশান্ত আসার পর থেকেই ক্রমাগত রিয়া ফোন করতে থাকেন এবং কিছু কাজের প্রতিশ্রুতি থাকায় ভাই ফিরে যায়। পরিবার সবসময়ই ভাইয়ের পাশে শক্ত হয়ে দাঁড়িয়েছিল।”

আরও পড়ুন -  আমফানে ক্ষতিগ্রস্ত একাধিক সিনেমা হল, আর্থিক সাহায্যের আশ্বাস রাজ্যের

শ্বেতা আরও লিখেছেন, ”জানিয়ারিতে রানিদিকে ফোন করেছিল ভাই। সেসময় রিয়া ভাইকে ড্রাগ দেওয়া শুরু করে দিয়েছে। এমনকি আমাদের থেকে রিয়া ভাইকে আলাদা করতে শুরু করেছিল। ভাই চন্ডিগড়ে আসার পর কমপক্ষে ২৫ বার ফোন করেছিল রিয়া। কেন তাঁকে ফেরত নিয়ে যাওয়ার এত ব্যস্ততা ছিল রিয়ার?” এদিন শ্বেতা আরও লিখেছেন, ”ভাইয়ের মৃত্যুর পর তুমি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে বসে তাঁর ভাবমূর্তি নষ্টের সাহস দেখাচ্ছ! তুমি মনে করছ ঈশ্বর কিছুই দেখছেন না। আমি ঈশ্বরে বিশ্বাসী। আমি সত্যিই দেখতে চাই ঈশ্বর তোমার সঙ্গে কী করেন।”

আরও পড়ুন -  ফের ইলিশ পাচার! বাংলাদেশ থেকে ফেরার পথে পেট্রাপোল সীমান্তে ৬ বস্তা ইলিশ সহ গ্রেফতার দত্তপুকুরের ট্রাক চালক

এখানেই থেমে থাকেনি রিয়া। সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে বসে সুশান্ত সিং রাজপুতকে মানসিক অবসাদগ্রস্ত বলতেও পিছ পা হননি রিয়া৷ রিয়ার সাক্ষাৎকারের বিপরীতে সুশান্তের তুতো ভাই নীরজ জানিয়েছেন ”পরিকল্পনা করেই রিয়ার এই সাক্ষাৎকারটা নেওয়া হয়েছে। এতদিন চুপ থেকে সিবিআই জেরার আগে কেন রিয়া সাক্ষৎকার দিলেন? রিয়ার হোয়াটসআপ থেকেই স্পষ্ট যে ও মাদকচক্রের সঙ্গে যুক্ত। এবং সুশান্তের উপর ও মাদক প্রয়োগ করা হত। রিয়া বিচার ব্যবস্থা থেকে পালাতে পারবেন না।”

"রিয়া বলেছেন আমরা নাকি আমাদের ভাইকে ভালোবাসতাম না", রিয়ার সাক্ষাৎকারের বিরুদ্ধে মন্তব্য শ্বেতার 1