কান্নাঘর

52
কান্নাঘর 1

কান্নাঘর 2✍️কলমে: মৌসুমী চট্টোপাধ্যায় দাস

যে- সব ঘরে কান্না নেই
সে -সব ঘরে আমার জন্য একটা পিঁড়ি রেখো ।
আলগা রেখো দরজাটা ;আর
আমায় খোঁজার ছলে
সে -সব ঘরে আর কেউ না ঢুকতে পারে দেখো৷

আমার জন্য হাপুস কাঁদন বসার পিঁড়ি রেখো৷
কান্না আমার, কিন্তু সেটা বাজার জন্য যেন
আর কিছু না, তোমার বুকে প্রশ্রয়টা রেখো৷

আরও পড়ুন -  দোষ - ২০

কান্নাঘরে আমার জন্য অপেক্ষাতে থেকো৷

ব্যক্তি নদী বুঝছি যদি

মৌসুমী চট্টোপাধ্যায় দাস

গঙ্গা নদী বইতো শুনি আপন খুশির ছন্দে
পাল্টে গতি ভেঙে গড়ে রাখতো ভালো মন্দে৷
যুগের হাওয়া বিষ মেশালো, কারখানার ময়লা
লোক বেড়েছ হু হু করে—ধোপা তাঁতি গয়লা।
সবার জন্য নদী আছে—নদীর জন্য কে বা!
ঠাকুর ভেবে মন্ত্রে ধূপে করলে শুধু সেবা।
গঙ্গামাতা থাকবে না আর, বুঝতে হবে খাঁটি,
থামিয়ে দূষণ রাখতে হবে জলটি পরিপাটি ৷
দেবীর আগে মানুষ উনি, ভালো থাকার হক
তারও আছে, বানাও তাকে সুস্হ রাখার ছক৷
বাঁচুক পাহাড়, বনানীরা, বাঁচুক শত ঝোরা,
গঙ্গা ছুটুক আপন তালে সজীবতায় মোড়া ৷

কান্নাঘর 3