খড়গপুরে ৩০ ফুটে নিচে রেললাইনে পড়ে গেলেন আরপিএফ জওয়ান, দুর্ঘটনা নাকি আত্মহত্যার চেষ্টা

2690
Advertisement

নিজস্ব সংবাদদাতা: প্রায় তিরিশ ফুট নিচে রেল লাইন ট্র্যাকের ওপর এক আরপিএফ বা রেল সুরক্ষা বাহিনীর জওয়ানের পড়ে যাওয়াকে ঘিরে চাঞ্চল্য ও রহস্য ছড়িয়েছে। কেউ ঘটনাটিকে আত্মহত্যার চেষ্টা কেউ আবার দুর্ঘটনা বলে জানিয়েছেন। ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার দুপুর বেলা খড়গপুর শহরের সিএমই গেট সংলগ্ন এলাকাতে।

Advertisement

জানা গেছে পি.কে.সাহু নামের ওই জওয়ান বর্তমানে রেল সুরক্ষা বাহিনীর ডগ স্কোয়াডে যুক্ত ছিলেন যার দপ্তর ওই সিএমই গেট সংলগ্ন এলাকাতেই। দুপুর বেলা সিএমই গেট সংলগ্ন যে সেতুটি রয়েছে যার নিচ দিয়ে টাটানগর ও পশ্চিমগামী অন্যান্য ট্রেন গুলি খড়গপুর স্টেশন থেকে বের হয়ে যায় সেই সেতুর ওপর থেকে গভীর খাতের মধ্যে নিচে পড়ে যান অথবা ঝাঁপ দেন ওই জওয়ান। উল্লেখ্য এই গভীর খাতের মধ্যে দিয়েই অনেকগুলি রেল লাইন বা ট্র্যাক রয়েছে। খাতের ওপর বেশ কিছুটা দুরত্ব রেখেই উত্তর দিকে খড়গপুর টাউন থানা ও দক্ষিন দিকে রেলের সিগন্যাল ট্রেনিং স্কুলের রাস্তা নেমে গেছে। কিভাবে ওই জওয়ান রাস্তা থেকে অতটা দুরে গিয়ে সেতুর ওপরে গিয়ে ট্রেন লাইনের গভীর খাতে পড়ল সেটাই রহস্য।

Advertisement
Advertisement

একটি সূত্রে দাবী করা  হয়েছে ওই জওয়ান ক্রমান্বয়ে শারীরিক অসুস্থতায় ভুগছিলেন এবং তার থেকে চূড়ান্ত অবসাদে চলে যান। রেলের চিকিৎসকরা নাকি তাঁকে বলেছিলেন যে তাঁর কোনও শারীরিক সমস্যাই নেই। কিন্তু জওয়ানের ধারনা ছিল তার অসুখ চিকিৎসকরা ধরতে পারছেনা। কোনও কঠিন অসুখ হয়েছে তাঁর। এই অবসাদ থেকেই সে তার বাইক দাঁড় করিয়ে রেখে খাতে গিয়ে ঝাঁপ দেয়।

আবার অন্য একটি সূত্র বিশেষ করে পুলিশ দাবী করেছে যে ওই জওয়ান শারীরিক ভাবে এতটাই দুর্বল ছিল যে বাইক থামিয়ে সে যখন খাতের দিকে গিয়ে দাঁড়িয়েছিল তখন মাথা ঘুরিয়ে নিচে পড়ে যায়। এরপরই স্থানীয় কিছু মানুষ নিচে নেমে তাকে উদ্ধার করে। তবে ভাগ্য ভাল যে নিচে পড়ার সময় তার শরীর রেলের উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন বিদ্যুতের তার স্পর্শ করেনি । বর্তমানে গুরুতর আহত অবস্থায় তিনি রেল হাসপাতালে ভর্তি।