নাবালিকার বিয়ে রুখল খেজুরির দুই স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা

254

ভীষ্মদেব দাশ, খেজুরিঃ নাবালিকার বিয়ে প্রতিরোধ করা হল খেজুরিতে। মূলত দুই স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠান অজয়া সর্বোদয় সংঘ এবং খেজুরি লায়ন্স ক্লাবের উদ্যোগে বিয়ে রুখল নাবালিকার। প্রসঙ্গত চলতি বছরে মাধ‍্যমিক পরীক্ষায় উত্তীর্ন হয়েছে মেয়েটি, উচ্চশিক্ষা নিতে আগ্রহী সে। কিন্তু কন্যাদায় সারতে দ্রুত পদক্ষেপ নেন পরিবার। বাবা রাজমিস্ত্রী, দিন-আনা দিন-খাওয়া। কোনওরকম সংসার চলছে। উচ্চ-শিক্ষার জন্য খরচ বহন করা কষ্টসাধ্য। পড়া বন্ধ তাই মেয়েকে বিয়ে দিয়ে কন্যাদায় থেকে মুক্তি পেতে চাইছেন অভাগা পিতা। কিন্তু অভাবের তাড়নায় তিনি ভুলে গিয়েছেন নাবালিকা মেয়ের বিয়ে দিলে কতটা সর্বনাশ হতে পারে। তিনি ভাবেননি মেয়ের ইচ্ছের কথা।

আরও পড়ুন -  পরীক্ষায় বসতে গেলে করতে হবে করোনা পরীক্ষা! কলকাতার নামী স্কুলের তুঘলকি ফতোয়ায় আশঙ্কায় পরীক্ষার্থীরা

বর্তমানে সরকারি প্রচার এবং প্রশাসনিক পদক্ষেপ সত্বেও কোভিড ১৯ মহামারীর পরিস্থিতিকে ঢাল করে বহু প্রান্তিক পরিবারে নাবালিকা বিবাহ হয়ে চলেছে অবিরত। এমনকি তাদের মতের বিরুদ্ধে গিয়েও সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন পরিবার। উক্ত নাবালিকা খেজুরির-২ ব্লকের বারাতলা গ্রাম পঞ্চায়েতের শেরখাঁনচক গ্রামের বাসিন্দা। গোকুলনগর জি জে শিক্ষানিকেতনের চলতি বছরের মাধ‍্যমিক পরীক্ষা উত্তীর্ন ছাত্রী। বিয়ে করতে চায়নি সে। মতের বিরুদ্ধে পরিবার বিয়ে ঠিক করায় বাড়ি থেকে লুকিয়ে চলে এসে খেজুরি-১ ব্লকের কামারদা গ্রামে দিদি জামাইবাবুর বাড়িতে আশ্রয় নেয় মেয়েটি। তারপর খেজুরি লায়ন্স ক্লাব ও অজয়া সর্বোদয় সংঘের নাবালিকা বিবাহ প্রতিকার উদ‍্যোগের প্রতিনিধি শিক্ষক অরিন্দম মাইতি ও জয়দেব মাইতির সঙ্গে যোগাযোগ করে। বিষয়টি জানবার পরে খেজুরি-১ ব্লকের বিডিও তীর্থঙ্কর ঘোষকে জানান অরিন্দম মাইতি ও জয়দেব মাইতি। জানবার পরে বিডিও মেয়েটির পরিবার, খেজুরি লায়ন্স ও সর্বোদয়ের প্রতিনিধিদের সঙ্গে কথা বলেন।নাবালিকার বিয়ে রুখল খেজুরির দুই স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা 1

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন লায়ন্স ক্লাব খেজুরির সভাপতি বিশ্বনাথ মালিক,সম্পাদক বিষ্ণুপদ জানা, সর্বোদয়ের সম্পাদক সুব্রত মাইতি,শিক্ষক অরিন্দম মাইতি,জয়দেব মাইতি,সমাজসেবী মনোরঞ্জন দাস,অমরেশ মাইতি প্রমুখ। বৈঠক শেষে মেয়েটির উচ্চ শিক্ষার বিষয়ে খেজুরি-১ ব্লকের বিডিও তীর্থঙ্কর ঘোষ সহযোগিতার আশ্বাস দেন। পাশাপাশি পশ্চিমবঙ্গ সরকারের উৎকর্ষ বাংলা প্রকল্পে মেয়েটির প্রশিক্ষণের ব‍‍্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান। স্থানীয় জনপ্রতিনিধি সহ অন‍্যান‍্যরা নাবালিকা ও তার পরিবারের পাশে থাকার ব‍্যাপারে অঙ্গীকার বদ্ধ হন। লায়ন্স ও সর্বোদয়ের এই পদক্ষেপ কে বিডিও তীর্থঙ্কর ঘোষ সাধুবাদ জানান। বিডিও তীর্থঙ্কর ঘোষ বলেন,”বর্তমান সরকার বিশেষ করে মুখ‍্যমন্ত্রী নাবালিকা ছাত্রীদের বিয়ে বন্ধ করতে ও তাদের লেখাপড়া চালিয়ে যেতে এই অতিমারীর সময়েও ঐ প্রকল্প গুলিতে কোনো ব‍্যয় সংকোচ করেননি। জনসাধারনকে এটা বুঝে সহযোগী হতে হবে।”

নাবালিকার বিয়ে রুখল খেজুরির দুই স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা 2