সাদা জামার নিচে শমীক ভট্টাচার্য একটা লম্পট ! ওকে ভোট দেবেননা, রাজারহাট-গোপালপুরে ঘুরে ঘুরে প্রচার চালাচ্ছে সেই অনন্যা

473
সাদা জামার নিচে শমীক ভট্টাচার্য একটা লম্পট ! ওকে ভোট দেবেননা, রাজারহাট-গোপালপুরে ঘুরে ঘুরে প্রচার চালাচ্ছে সেই অনন্যা 1

নিজস্ব সংবাদদাতা: গত ১ বছর ধরে সোশ্যাল মিডিয়ায় বিজেপি নেতা শমীক ভট্টাচার্য্যকে তুলোধোনা করে আসছিলেন অনন্যা চক্রবর্তী নামে এক মহিলা। দাবি করেছিলেন বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে দিনের পর দিন সেই মহিলার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক তৈরি করেছেন ওই বিজেপি নেতা। মহিলার কাছ থেকে নিয়মিত মদ্যপান সহ নানা কারণে টাকাও নিয়েছেন বলে অভিযোগ জানিয়েছিলেন ওই মধ্যবয়সিনী। পরে সমস্ত কিছু থেকে বেরিয়ে আসার চেষ্টা করেন শমীক এমনটাই দাবি মহিলার। এবার সেই মহিলাকেই রাজারহাট-গোপালপুররের অলিতে গলিতে, বড় ছোট রাস্তায় ঘুরে ঘুরে প্রচার করতে দেখা গেল অনন্যাকে। দু’হাত জড়ো করে আশেপাশের মানুষদের উদ্দেশ্যে অনন্যা আবেদন করলেন, ‘দয়া করে শমীক ভট্টাচার্য্যকে আপনারা ভোট দেবেননা। রাজারহাট-গোপালপুরের মেয়েদের ওই নারী মাংস লোভী শমীকের হাতে তুলে দেবেননা।’

সাদা জামার নিচে শমীক ভট্টাচার্য একটা লম্পট ! ওকে ভোট দেবেননা, রাজারহাট-গোপালপুরে ঘুরে ঘুরে প্রচার চালাচ্ছে সেই অনন্যা 2

একজন সেনা জওয়ানের মা, স্কুল শিক্ষিকা অনন্যা জানালেন কী ভাবে তিনি তার নিঃসঙ্গ জীবনে শমীকের ভালোবাসার অভিনয়ের ফাঁদে পা দিয়েছিলেন এবং বিয়ে করে দুজনে পাশাপাশি থাকার স্বপ্ন দেখেছিলেন। অনন্যা তাঁর ছেলে এবং বৌমা যাঁরা অন্য রাজ্যে থাকেন তাঁদেরকে নিজেদের সম্পর্কের কথা জানিয়েও ছিলেন। এই সম্পর্ক স্থাপনের প্রতিশ্রুতি দিয়ে শমীক যে দিনের পর দিন সুন্দর সুন্দর কথা বলে অনন্যার কাছ থেকে দিনের পর দিন হাজার হাজার টাকা, দামি উপহার, মদ খাওয়ার টাকা ইত্যাদি নিয়ে গেছেন তাও এদিন রাস্তার মোড়ে দাঁড়িয়ে মানুষদের জানিয়েছেন। জানিয়েছেন এরপরই যখন বিয়ের কথা নিয়ে অনন্যা শমীককে চেপে ধরেছেন তখুনি গুন্ডা দিয়ে তাঁর মুখ বন্ধ করার চেষ্টা হয়েছে। তাঁকে এই নিয়ে বিজেপি নেতাদের কাছে যাওয়া বা বাইরে মুখ খুলতে না বলা হয়েছে।

সাদা জামার নিচে শমীক ভট্টাচার্য একটা লম্পট ! ওকে ভোট দেবেননা, রাজারহাট-গোপালপুরে ঘুরে ঘুরে প্রচার চালাচ্ছে সেই অনন্যা 3

অনন্যা দাবি করেছেন বিষয়টি নিয়ে তিনি বিজেপির রাজ্য কার্যালয়ে গেছেন এবং বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের সঙ্গে কথাও বলেছেন। বিজেপি অফিসের মহিলারাও নাকি অনন্যাকে শমীকের এই চরিত্রের কথা বলে জানিয়েছে যে শমীক এরকম বহু মেয়ের সর্বনাশ করেছেন এমনকি দলের মহিলারাও রেহাই পাননি। যদিও অনন্যার এই অভিযোগ নতুন নয়। গত প্রায় দেড় বছর ধরে অনন্যা, শমীক এবং শমীকের কোনও ঘনিষ্ঠ (যাকে অনন্যা শমীকের গুন্ডা বলে দাবি করেছেন)বেশ কয়েকটি অডিও প্রকাশ হয়েছিল একটি সোশ্যাল মিডিয়ায়। যেখানে স্পষ্ট করে এই অভিযোগই আনা হয়েছিল।

রাজারহাট-গোপালপুরের বিভিন্ন অংশে প্রচার চালাতে গিয়ে অনন্যা দাবি করেছেন মহিলা সংক্রান্ত রোগে ভুগছেন শমীক। ওঁর ৮ থেকে ৮০ বয়সী মহিলায় কোনোও বাছ বিচার নেই। এই প্রচারে অবশ্য দু’রকমের প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে। কেউ অনন্যাকে বলেছেন, এখন আর এসব বলে কী হবে? যাঁরা ভোট দেওয়ার তারা তো ভোট দেবেনই। অনন্যা পাল্টা বলেছেন, ‘ না, আমার তা মনে হয়না। মহিলারা যদি জানতে পারেন যে শমীকের আসল চরিত্র কী তাহলে তারা নিশ্চিত ভাবেই ভোট দেবেননা। আমি চাইনা আর কোনও অনন্যা শমীকের শিকার হোক।’

অন্য আরেকটি দল প্রশংসা করেছেন অনন্যার এই প্রয়াসের। তাঁরা বলেছেন, আপনি একজন মহিলা হয়ে যেভাবে রাস্তায় নেমেছেন নিজের লজ্জা সঙ্কোচ ত্যাগ করে তাতে সত্যি সাহসী পদক্ষেপ। অনন্যা অবশ্য কোথাও বিজেপির বিরুদ্ধে কোনও কথা বলেননি। যা বলেছেন, পুরোটাই একান্ত শমীকের বিরুদ্ধে। অনন্যা জানিয়েছেন, সাদা জামার নিচে শমীক আসলে একটা লম্পট, নিত্য নতুন মেয়ে বদলানোই যার কাজ।

Previous articleনিজের বিয়ের খবর নিয়ে মুখ খুললেন ঋতাভরী
Next articleদাঁতের কেরামতিতে বাজিমাত বিশ্বজিতের; পেলেন ইন্টারন‍্যাশনাল বুক অফ রেকর্ডস ও ইন্ডিয়া বুক অফ রেকর্ডস কর্তৃপক্ষের স্বীকৃতি