সত্য গোপন করেছেন মমতা; বিস্ফোরক অভিযোগ তুলে নির্বাচন কমিশনে নালিশ ঠুকলেন শুভেন্দু

75
সত্য গোপন করেছেন মমতা; বিস্ফোরক অভিযোগ তুলে নির্বাচন কমিশনে নালিশ ঠুকলেন শুভেন্দু 1

অশ্লেষা চৌধুরী: মমতার কাছে নির্বাচন কমিশনের কাছে নালিশ ঠূকলেন বিজেপি নেতা তথা নন্দীগ্রামের বিজেপি প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারী। এদিন তমলুকে একটি যোগদান মেলা অনুষ্ঠান কর্মসূচিতে যোগ দিতে এসে একথা জানান শুভেন্দু।

সত্য গোপন করেছেন মমতা; বিস্ফোরক অভিযোগ তুলে নির্বাচন কমিশনে নালিশ ঠুকলেন শুভেন্দু 2

শুভেন্দু বলেন, মাননীয়াকে আমরা মিথ্যাশ্রী দেবই। তিনি নন্দীগ্রাম থেকে দাঁড়িয়েছেন, আমি নির্বাচন কমিশনের কাছে অভিযোগ জানিয়েছি। ছয়টি মামলা আছে ওনার নামে; মনোনয়নের সময় হলফনামায় মমতা সেই তথ্য গোপন করেছেন বলে অভিযোগ করেন বিজেপি নেতা। তিনি বলেন, মমতার বিরুদ্ধে একাধিক মামলা থাকলেও তা গোপন করা হয়েছে। তথ্যপ্রমাণ সহ অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। তিনি এও জানান মমতার বিরুদ্ধে ২০১৮ সালে ৫টি মামলা রয়েছে অসমে, একটি মামলা সিবিআইয়ের। নির্বাচন কমিশন তদন্ত করে এও বিষয়ে সঠিক সিদ্ধান্ত নেবেন বলেও আশাবাদী তিনি। তবে যদি তিনি সুবিচার না পান, তবে অন্য রাস্তা দেখবেন বলেও হুঁশিয়ারি দেন।

সত্য গোপন করেছেন মমতা; বিস্ফোরক অভিযোগ তুলে নির্বাচন কমিশনে নালিশ ঠুকলেন শুভেন্দু 3

পাশাপাশি এদিন সভা মঞ্চ থেকে মমতাকে কটাক্ষ করে শুভেন্দু বলেন, মাননীয়াকে মিথ্যাশ্রী তারা দেবেনই। তৃণমূল সরকারকে প্রাইভেট লিমিটেডের সরকার বলে কটাক্ষ করতেও শোনা যায় এদিন শুভেন্দুকে।

প্রসঙ্গত, নন্দীগ্রাম বিধানসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী শুভেন্দু। অন্যদিকে এই নন্দীগ্রাম বিধানসভায় শুভেন্দু অধিকারীকে জবাব দিতে সেখানে তৃণমূলের পক্ষ থেকে প্রার্থী রয়েছেন খোদ তৃণমূল নেত্রী তথা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। স্বাভাবিক ভাবেই নন্দীগ্রামের লড়াই এখন কার্যত পাখির চোখ হয়ে দাঁড়িয়েছে। সকলের চোখ এদিকেই আটকে। আর নির্বাচনী লড়াই হওয়ার আগেই কিছু না কিছু ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত হয়ে উঠছে নন্দীগ্রাম। যেমন গত বুধবার, নন্দীগ্রামে ভোটের প্রচারে গিয়ে গুরুতর আহত মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ভিড়ের মধ্যে চার-পাঁচ জন তাকে ধাক্কা মেরেছে বলেই অভিযোগ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। সেই ঘটনাকে কেন্দ্র করে তোলপাড় হয়ে রাজ্য রাজনীতি। আর ওনার এই আঘাত পাওয়ার পর থেকেই জায়গায় জায়গায় তৃণমূলের কর্মী সমর্থকেরা বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন, অশান্তির খবর আসতে থাকে রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে। সকলেই বিজেপি এই ঘটনার জন্য দায়ী বলে অভিযোগ করে প্রতিবাদে সামিল হন।

এরপর রবিবার, নন্দীগ্রাম দিবসের দিনেই শুভেন্দুর নামে বিশ্বাসঘাতক পোস্টার ও নন্দীগ্রামের বিজেপি প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারীকে ঢুকতে না দেওয়ার হুমকি ঘিরে ব্যাপক উত্তেজনা সোনাচুড়া এলাকায়। শুভেন্দু অধিকারীর নামে বিশ্বাসঘাতক পোস্টার লাগিয়ে বিক্ষোভ দেখানো হয় এদিন। অভিযোগের তির, স্থানীয় তৃণমূল কর্মী ও গ্রামবাসীদের একাংশের দিকে। পাল্টা ব্রাত্য বসুকে “গো ব্যাক” স্লোগান দেওয়া হয় স্থানীয় বিজেপি সমর্থকদের পক্ষ থেকে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে পূর্ব মেদিনীপুর থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী এলাকায় উপস্থিত হয়।

Previous articleরত্না চট্টোপাধ্যায় চান শোভনকে ঘরে ফেরাতে; তবে দলে ফেরাতে রাজি নয় ঘাসফুল
Next articleশাসক শিবিরে আবারও উইকেট পতন, দল ছাড়লেন রায়দিঘির তারকা বিধায়ক দেবশ্রী