হুইল চেয়ারে বসেই আজ প্রথম সভা ‘আহত বাঘিনী’ মমতার! তুঙ্গে উঠেছে কর্মীদের উৎসাহ

192
হুইল চেয়ারে বসেই আজ প্রথম সভা 'আহত বাঘিনী' মমতার! তুঙ্গে উঠেছে কর্মীদের উৎসাহ 1

নিউজ ডেস্ক: নন্দীগ্রামে আহত হওয়ার ৮০ ঘন্টার মধ্যেই হুইল চেয়ারে বসে তার পদযাত্রা দেখেছিল বাংলা, তারই ২৪ ঘন্টা পর সোমবার প্রকাশ্য সভায় মুখ্যমন্ত্রী। হাসপাতালে থাকাকালীন তিনি আগেই কথা দিয়েছিলেন প্রচার কর্মসূচিতে কোন খামতি তিনি রাখবেন না, পরিবর্তনও হবে না, সেই কথা মতই এদিন প্রকাশ্য জনসভায় আসছেন মুখ্যমন্ত্রী।

হুইল চেয়ারে বসেই আজ প্রথম সভা 'আহত বাঘিনী' মমতার! তুঙ্গে উঠেছে কর্মীদের উৎসাহ 2

গতকাল রবিবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফেরার পর প্রথম রাজনৈতিক কর্মসূচিতে যোগ দেন।এদিন কঠোর নিরাপত্তা বেষ্টনীতে ছিলেন তৃণমূল নেত্রী । অন্যদিকে সোমবার ঝাড়গ্রাম-রানিবাঁধে সভা রয়েছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের। ফলে আজ জঙ্গলমহলে এই দুই হেভিওয়েটের বক্তব্যের দিকে নজর থাকবে রাজ্যের। আবার এর মাঝে মেদিনীপুরে চারটি সভা করবেন অভিষেক। ময়না, দাঁতন, গড়বেতা, মেদিনীপুরে সভা করবেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ও।

হুইল চেয়ারে বসেই আজ প্রথম সভা 'আহত বাঘিনী' মমতার! তুঙ্গে উঠেছে কর্মীদের উৎসাহ 3

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আহত হওয়ার পর চিকিৎসকদের পরামর্শ ছিলেন অন্ততপক্ষে ২ দিন বিশ্রাম নেওয়ার। কিন্তু সেই রাস্তায় মোটেই হাঁটলেন না মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। আজ থেকেই ফের প্রচারে তৃণমূল সুপ্রিমো।এদিন পুরুলিয়ার ঝালদা ও বলরামপুরে সভা করবেন মুখ্যমন্ত্রী।

ঘাস-ফুল শিবির মুখ্যমন্ত্রীর সভা ঘিরে ইতিমধ্যেই দারুণ উজ্জীবিত। কর্মীদের উৎসাহ রয়েছে তুঙ্গে। জানা গিয়েছে, হেলিকপ্টার থেকে নেমে হুইল চেয়ারে করেই তিনি সভামঞ্চে যাবেন। নন্দীগ্রামের ঘটনা থেকে শিক্ষা নিয়ে কড়া নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আগামীকাল সভা করবেন বাঁকুড়ায়। সেখানেও শুরু হয়েছে জোড় তোড়জোর। সেখানে মেজিয়া, ছাতনা ও রায়পুরে সভা করবেন মুখ্যমন্ত্রী। বুধবার আবার সভা রয়েছে ঝাড়গ্রামে। এরপর কলকাতা ফিরবেন তিনি। আবার ফের বৃহস্পতিবার তাঁর গন্তব্য হবে পশ্চিম মেদিনীপুর।মমতা বন্দোপাধ্যায় আহত বলেই যে, বিশ্রাম নেবেন এমনটা যে হওয়ার না, তা বোঝা যাচ্ছিল বেশ।

গতকাল রবিবার হাজরা থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “ভাঙা পা নিয়ে বাংলায় ঘুরে দাঁড়াবো। নিহত বাঘের চাইতে আহত বাঘ অনেক ভয়ঙ্কর। আমার শরীরের যন্ত্রণার থেকে গণতন্ত্র রক্ষার ডে অনেক বেশি। স্বৈরাচারীদের হাত থেকে গণতন্ত্রকে রক্ষা করাই আমার কাজ। তাই আমি বাইরে বেড়িয়েছি। নিহত বাঘের থেকে আহত বাঘ বেশি ভয়ঙ্কর।”

Previous articleবিজেপির প্রার্থী তালিকা ঘোষণার পরেই বিক্ষোভের ঝড় উত্তর থেকে দক্ষিণে
Next articleপ্রার্থী তালিকা ঘোষনার পর গোঁসা ঝড়ে কুপোকাৎ ‘পার্টি উইথ ডিফারেন্স’ বিজেপি! এবার লকেট কে প্রার্থী করায় দল ছাড়ার ঘোষণা হুগলির সভাপতির